সোমবার ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ ইং ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

থানা ও ট্রাফিক অফিসে হামলা, গাড়ি ভাংচুর : আহত ১০

আপডেটঃ ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ১৯, ২০১৪

জসিম উদ্দিন ছিদ্দিকি, কক্সবাজার।
কক্সবাজার শহরে ট্রাফিক পুলিশ কতৃক ছাত্রলীগ নেতার মোটরসাইকেল আটক ও ছাত্রলীগ নেতাকে লাঞ্চিত করার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ নেতারা প্রধান সড়কে অগ্নি-সংযোগ, গাড়ি ভাংচুর, ট্রাফিক অফিস ও সদর মডেল থানায় কয়েক দফা হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করেছে।
hjk
এ সময় ছাত্রলীগের সাথে পুলিশের গুলাগুলির ঘটনা ও ঘটে। গুলিতে কক্সবাজার পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মুজিবুর রহমানসহ ১০ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে। ১৮ জুলাই রাত সাড়ে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও ছাত্রলীগ জানায়, ১৮ জুলাই বিকেলে এক ছাত্রলীগ নেতার লাইসেন্স বিহিন মোটরসাইকেল আটক করে ট্রাফিক পুলিশ। এ সময় পুলিশের সাথে উক্ত নেতার কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পুলিশ সদস্য কামরুল আহত হয়। পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আলী আহমদ ছাত্রলীগের নেতাকর্মী জড়ো করে প্রধান সড়কে ব্যারিকেট দেয় এবং টায়ারসহ বিভিন্ন যানবাহনে অগ্নি-সংযোগের ঘটনা ঘটায়। এক পর্যায়ে শতাধিক ছাত্রলীগ নেতাকর্মী লাঠি সোটা নিয়ে মডেল থানা ও ট্রাফিক অফিসে হামলা চালায় এবং পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট পাটকেল ছুড়ে। পুলিশ প্রতিহত করতে গিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে গুলাগুলির ঘটনা ঘটে। এতে ১০ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হয়। তবে অভিযোগ ওঠেছে হামলার সময় ছাত্রলীগের সাথে ছাত্র শিবিরও যোগ দেয়। এ ঘটনা নিয়ে এখনো শহরের উত্তেজনা বিরাজ করছে।