শুক্রবার ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

গাজীপুরে ভুয়া(র‌্যাব)কর্ণেল পরিচয় দানকারী প্রতারক চক্রের সদস্য আটক………..

আপডেটঃ ৩:০৭ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ০৭, ২০১৯

বিশেষ প্রতিনিধিঃ- গাজীপুর -: র‌্যাব-১, গাজীপুর ক্যাম্প কর্তৃক গাজীপুরের জোলারপাড় এলাকা হতে ভুয়া(র‌্যাব)কর্ণেল পরিচয় দানকারী অভিনব কায়দায় প্রতারণার মাধ্যমে কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়া ভয়ংকর প্রতারক চক্রের ০১ জন সদস্যকে আটক করেছে।
দেশের বিভিন্ন জেলার মতো গাজীপুর জেলার বিভিন্ন এলাকায় প্রতারকচক্রের তৎপরতা দিন দিন বৃদ্ধি পাইতেছিল। প্রতারক দলের সদস্যরা নিরীহ মানুষদেরকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের বেকার যুবকদের চাকুরী দেওয়ার নামে অভিনব কায়দায় তাদের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে জন জীবন অতিষ্ঠ করে তুলেছিল। এই প্রতারক দলটিকে র‌্যাব-১ এর পোড়াবাড়ী ক্যাম্প কমান্ডার লেঃ কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন দীর্ঘ দিন যাবৎ উক্ত চক্রকে গ্রেফতারের লক্ষ্যে র‌্যাবের সকল ধরনের গোয়েন্দা কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিল।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ০৪ জুলাই ২০১৯ তারিখ রাত অনুমান ২৩.৫০ ঘটিকার সময় র‌্যাব-১, স্পেশালাইজড্ কোম্পানী, পোড়াবাড়ী ক্যাম্প, গাজীপুর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন যে, জিএমপি, গাজীপুর সদর থানাধীন জোলারপাড় এলাকায় র‌্যাব এর এডিজি মহোদ্বয় এবং সেনাবাহিনীর কর্ণেল পরিচয়ে একটি সংঘবদ্ধ ভয়ংকর প্রতারক চক্র প্রতারণা করার উদ্দেশ্যে অবস্থান করিতেছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে অত্র কোম্পানীর কোম্পানী কমান্ডার লেঃ কমান্ডার আব্দুল্লাহ আল-মামুন এর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্সসহ জিএমপি, গাজীপুর সদর থানাধীন জোলারপাড় নিয়াউদ্দিন এর বাড়ীতে অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানকালে আসামী ১। মোঃ সায়েদুজ্জামান(৫৭), পিতা-মৃত আলহাজ জিল্লার রহমান, সাং-চান্দলাই, থানা-সদর, জেলা-চাপাইনবাবগঞ্জ, এ/পি-জোলারপাড়, থানা-সদর, জিএমপি, গাজীপুরদের’কে হাতে নাতে গ্রেফতার করা হয়। এসময় উপস্থিত স্বাক্ষীদের সামনে ধৃত আসামীদের দখল হতে ০২টি ভূয়া কর্ণেল পদবীর (সেনা ও র‌্যাব) এর আইডি কার্ড, সোনালী ব্যাংকের, ফার্ষ্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক লিঃ এর ০৭টি চেক বই। ০১টি ৭.৬৫ এমএম পিস্তল সাদৃশ্য লাইটার পিস্তল এবং ০৪ (চার) টি মোবাইল ফোন নগদ ৩২১৮/-টাকা উদ্ধার করা হয়।
ধৃত আসামীদেরকে জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, সে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একজন অবসর প্রাপ্ত ওয়ারেন্ট অফিসার এবং ২০১১ সালে স্বাভাবিক চাকুরী হতে অবসর গ্রহণ করে। সে দীর্ঘদিন যাবৎ বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কর্ণেল এবং র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন) হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিয়ে বাংলাদেশ সেনা, নৌ, বিমান, পুলিশ, বিজিবিসহ দেশের বিভিন্ন সরকারী অফিসে চাকুরী দেয়ার নামে সাধারণ মানুষের বেকারত্বের সুযোগ নিয়ে তাদের কাছ থেকে অভিনব কায়দায় প্রতারণার মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে আসিতেছিল।
উদ্বারকৃত আলামত ও গ্রেফতারকৃত আসামীদেরকে থানায় হস্তান্তরের ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।