শুক্রবার ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং ১লা অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

ট্রেকিং এ র্দুঘটনা ও আমাদরে করনীয়……….

আপডেটঃ ১:০৯ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ১৫, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি –{ :Photojournalist-:} মোঃ তাইফুল ইসলাম খান: – চ্যানেল সেভেন বিডি ডট কম-: বিগত কয়েক বছরে বাংলাদেশ এ আনন্দ ভ্রমন এর পাশাপাশি বিভিন্ন ট্রেইল এ ট্রেকিং খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে বিশেষ করে কলেজ/ইউনিভার্সিটি পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীদের মাঝে। তবে দুঃখজনক সংবাদ হল সাম্প্রতিক সময়ে ট্রেকিং করতে গিয়ে বেশ কিছু দুর্ঘটনা ঘটেছে যাতে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটেছে। তিনাপ সাইতার, ক্ষইয়াছরা, আফিয়াখুম ইত্যাদি জনপ্রিয় ট্রেইলগুলোতে বিগত দু-সপ্তাহে বেশ কিছু মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। চ্যানেল সেভেন বিডি ডট কম এর নিজস্ব অনুসন্ধানে জানা গেছে এসব দুর্ঘটনার প্রায় সবগুলোর পেছনেই ভ্রমণকারীর অসাবধানতাই দায়ী।

ট্রেকিং হল লোকালয় থেকে দূরে প্রকৃতির মাঝে কোন দর্শনীয় স্থান যেমন ঝর্না, পাহারের চূড়া, গিরিখাত অথবা কোন গুহা দেখতে যাওয়া। ট্রেকিং এ সাধারণত মানুষের তৈরি কোন কৃত্রিম রাস্তা থাকেনা, প্রকৃতির নিজস্ব তৈরি ট্রেইল বা রাস্তা খুজে নিয়ে হেটে এগোতে হয়। এ কারনেই অ্যাডভেঞ্চার প্রিয়দের কাছে ট্রেকিং খুবই জনপ্রিয়। বাংলাদেশে মূলত কোন ঝর্না অথবা পাহারের চূড়ায় পৌঁছানোর জন্যই ট্রেকিং করা হয়। তিনাপ সাইতার, ক্ষইয়াছরা, নাফাখুম, আফিয়াখুম, নাপিত্তাছরা, হাম হাম জনপ্রিয় ট্রেইলগুলোর মধ্যে অন্যতম এবং বেশ ঝুঁকিপূর্ণও বটে। বিশেষ করে বর্ষাকালে এসব ট্রেইল ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠে, তাই ভরা বর্ষা কোনোভাবেই এসব স্থান দর্শনের উপযুক্ত সময় নয়। যদি যেতেই হয় তবে উপযুক্ত সাবধানতা অবলম্বন করা উচিৎ।

ট্রেকিং এমন একটি শখ যেটা তে সাবধান না হলে বিপদ অনিবার্য। ট্রেকিং এ অভিজ্ঞতা থাকলেও অসাবধানতা বিপদ ডেকে আনতে পারে যেকোনো মুহূর্তে।ট্রেকিং সংক্রান্ত কিছু সাবধানতা এবং ট্রেকিং উপভোগের জন্য কিছু পরামর্শ নিম্নে দেয়া হলঃ

  • সময় নিয়ে ট্রেকিং রুট প্ল্যান করুন। কোথায় খাবার পানি পাবেন নিশ্চিত হয়ে নিন। সঙ্গে রাখুন কাগজের ম্যাপ আর কম্পাস কারণ আপনার ইলেকট্রনিক ডিভাইস হয়ত একসময় কাজ করবে না।
  • ভালো ট্রেকিং পোল বা স্টিক অবশ্যই সঙ্গে রাখুন।কিছু পরিস্থিতি আপনার প্রতিকূল থাকেবেই এবং সেটাই এরকম সখের মূল নেশা হয়ে থাকে। তবে প্রাণের চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কিছু নেই। সাবধান থাকুন, জীবন কে উপভগ করুন।