সোমবার ২০শে অক্টোবর, ২০১৯ ইং ৬ই কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

শুদ্ধি অভিযানের লিড এজেন্সি র‌্যাব নয় : আমরা সরকারের নির্দেশে কাজ করছি ————-বেনজীর আহমেদ

আপডেটঃ ১:১১ পূর্বাহ্ণ | অক্টোবর ০৫, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন ॥ র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) মহাপরিচালক (ডিজি) র‌্যাব বেনজীর আহমেদ বলেছেন, দেশে চলমান শুদ্ধি অভিযানের লিড এজেন্সি র‌্যাব নয়, আমরা সরকারের নির্দেশে সহায়ক ফোর্স হিসেবে কাজ করছি।
ডিজি র‌্যাব বলেন, দুর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতির অংশ হিসেবে দেশজুড়ে এখন শুদ্ধি অভিযান চলছে। এখানে আমরা সহযোগী প্রতিষ্ঠান হিসেবে (র‌্যাব) শুধু সহায়ক ফোর্স হিসেবে কাজ করছে। আমরা অভিযানের লিড এজেন্সি নই। সরকারের নির্দেশে যখন যেখানে প্রয়োজন হবে, তখনই অন্য প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে র‌্যাব কাজ করবে।
তিনি শুক্রবার (৪অক্টোবর) বেলা ১১টায় রাজধানীর বনানী মাঠ রোড নম্বর ২৭ বনানী শারদীয় দুর্গাপূজা মন্ডপের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিজি র‌্যাব একথা বলেন।

যারা এখনো পর্যন্ত ধরা-ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে- তাদের কোনও তালিকা করা হয়েছে কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে র‌্যাব ডিজি বলেন, শুদ্ধি অভিযানের বিষয়টি অনেক বড় বিষয়। এর সঙ্গে শুধুমাত্র র‌্যাব ফোর্সেস জড়িত না।ক্যাসিনোর ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে যুবলীগ নেতা সম্রাটের অবস্থান প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে বেনজীর আহমেদ বলেন, আমি স্পেসিফিক কোনও প্রশ্নের উত্তর দিতে চাই না। আমরা ধৈর্য ধরি, আশা করি সমস্ত কিছুর উত্তর পাবো।র‌্যাব ডিজি বলেন, শুদ্ধি অভিযানে কারা গ্রেফতার হবে, আর কারা গ্রেফতার হবে না সেটা আমাদের দেখার বিষয় না। যাদের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়া যাবে, অবশ্যই তাদেরকে গ্রেফতার করা হবে।
সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে ডিজি র‌্যাব বলেন, প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতি বিরোধী যে উদ্যোগ নিয়েছেন এটা সুদুর প্রসারী। এর সুফল দেশের মানুষ পাবেন, সার্বিক উন্নয়নে এর প্রভাব পড়বে। আমরা সাতটি ম্যান্ডেট নিয়ে কাজ করছি উল্লেখ করে বেনজীর আহমেদ বলেন, আমাদের সর্বশেষ ম্যান্ডেট হচ্ছে সরকার যখন যা নির্দেশ দিবে তাই করব। সুতরাং সরকার নির্দেশিত না হলে, সাধারণত আমরা ম্যান্ডেটের বাইরে গিয়ে কাজ করি না।
পূজার সার্বিক নিরাপত্তা বিষয়ে জানতে চাইলে বেনজীর আহমেদ বলেন, বর্তমান সরকার যখন প্রথমবার ক্ষমতায় আসে তখন সারা দেশে প্রায় ১১ হাজার পূজামন্ডপ সাজানো হতো। সারা দেশে এবার প্রায় ৩১ হাজার ৮০০ পূজা মন্ড করা হয়েছে। আর এতেই বোঝা যাচ্ছে দেশের মানুষের অর্থনৈতিক উন্নতি হচ্ছে।
সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের জনবল কম, তবুও আমরা সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে সার্বিক নিরাপত্তা বজায় রাখার চেষ্টা করব। দেশের গুরুত্বপূর্ণ পূজামন্ডপ গুলোতে সার্বক্ষণিক আমাদের নজরদারি থাকবে।
ডিজি র‌্যাব বলেন, র‌্যাব প্রিভেন্টিভ পেট্রোল এবং গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে মনিটরিং করা হবে। সেই সঙ্গে ডগ স্কোয়াডের মাধ্যমে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।
শুক্রবার রাজধানীর বনানী পূজা মন্ডপের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ কালে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- র‌্যাবের আইনও গনমাধ্যম শাখার মূখপাত্র লেফটেন্ট্যান্ট কর্ণেল সারোয়ার বিন কাশেম, গুলশান-বনানী পূজামন্ডব উৎযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ, র‌্যাবের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা সহ অন্যান্যরা সাথে ছিলেন।