শুক্রবার ১৩ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং ২৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

বুয়েটের এক ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ॥ দুই শিক্ষার্থী আটক..

আপডেটঃ ১১:৩৮ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ০৭, ২০১৯

এস,এম,মািনর হোসেন জীবন ॥বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) আবরার ফাহাদ (২১) নামে এক শিক্ষার্থীকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ হত্যার ঘটনায় মেহেদী হাসান রাসেল ও ফুয়াদ নামে দুই শিক্ষার্থীকে পুলিশ জিঞ্জাসাবাদের জন্য আটক করছে। আটক রাসেল ও ফুয়াদ বুয়েটের শিক্ষার্থী। আজ সোমবার সকালে পুলিশ এই দুই শিক্ষার্থীকে আটক করে।

নিহত আবরার ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। নিহতের শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তার গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়া সদর উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা রোডে। বাবার নাম বরকত উল্লাহ।রোববার দিবাগত রাত ৩টার দিকে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের দ্বিতীয় তলা থেকে আববার ফাহাদ এর মরদেহ উদ্ধার করেছে বুয়েট কর্তৃপক্ষ।
রোববার (৬ অক্টোবর) দিনগত রাত ৩টার দিকে (বুয়েট) শেরে বাংলা হলে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ ও ফাহাদের সহপাঠীরা জানান, রোববার দিবাগত রাত ৮টার দিকে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষ থেকে কয়েকজন ছাত্র ফাহাদকে হল থেকে ডেকে নিয়ে যান। এরপর রাত ২টা পর্যন্ত তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পরে সোমবার (৭ অক্টোবর) ভোর চারটার দিকে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের উত্তর বলকের ২য় তলার সিঁড়ি থেকে ওই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তিনি বুয়েটের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। তার শরীরে অনেক গুলো আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পরে, বুয়েট কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকে বিষয়টি জানানো হয়। খবর পেয়ে বকবাজার থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁেছ নিহতের মরদেহ উদ্বার করে। উক্ত ঘটনার পর বুয়েটের শিক্ষার্থী ও বুয়েট কর্তৃপক্ষ ফাহাদের মরদেহ আজ সোমবার ভোর সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে আসেন।
ডিএমপি চকবাজার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সোহরাব হোসেন ফাহাদের মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
ওসি জানান, বুয়েট শিক্ষার্থী ফাহাদ হত্যার ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রাসেল ও ফুয়াদকে আটক করা হয়েছে। তারা দু’জনই বুয়েট শিক্ষার্থী। মারধরের কারণেই ফাহাদের মৃত্যু হয়েছে। নিহতের শরীরে আঘাতের দাগ রয়েছে। বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।