বৃহস্পতিবার ৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং ২১শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

বাঁশের চাইতে কঞ্চি শক্তিশালী…

আপডেটঃ ১:০৮ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ১৬, ২০১৯

গাজীপুর প্রতিনিধিঃ গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজিজুর রহমান শিরিষের সচিব সানাউল্লাহ বাঁশের চাইতে কঞ্চি শক্তিশালী বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী। এলাকাবাসী জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ৪০নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজিজুর রহমান শিরিষের সচিব সানাউল্লাহ শুক্রবার স্থানীয় কুদাব এলাকায় গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন মেয়র আলহাজ্ব মো: জাহাঙ্গীর আলমের টেন্ডারকৃত রাস্তা ২০ফুট হলেও টেন্ডারের বাইরে মেয়রের নির্দেশে গ্রাম্য রাস্তা ৪০ ফুট করার সিদ্ধান্ত নেন মেয়র। এরই প্রতিবাদে এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে এর প্রতিবাদ করেন। এক পর্যায়ে স্থানীয় কাউন্সিলর আজিজুর রহমান শিরিষ মেয়রের নির্দেশে ৪০ফুট রাস্তার জন্য দুই পাশের বাড়িঘর ভাঙ্গার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। এক পর্যায়ে এলাকাবাসী বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার স্বনামধন্য সাংবাদিকদের উপস্থিত থাকার জোর দাবী জানালে বেশ কিছু জাতীয় দৈনিক ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা গতকাল শুক্রবার কুদাব এলাকায় উপস্থিত থেকে সংবাদ সংগ্রহ করার জন্য ঘটনাস্থলে যান। কাউন্সিলর আজিজুর রহমান শিরিষের সাথে এলাকাবাসীর কথাকাটাকাটি শুরু হলে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা ছবি ও ভিডিও করতে থাকেন। তা কাউন্সিলর আজিজুর রহমান শিরিষের দৃষ্টিগোচর হলে এক পর্যায়ে সাংবাদিকদের প্রতি চড়াও হয়ে যান এবং সাংবাদিকরা তার ওয়ার্ডে কার নির্দেশে এসেছেন উচ্চ কন্ঠে জানতে চান। তার ওয়ার্ডে তার নির্দেশ ছাড়া কোন কাজ সাংবাদিকরা করতে পারবে না বলে হুমকি প্রদান করেন। স্থানীয় প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকরা নিশ্চুপ থাকলেও কাউন্সিলর আজিজুর রহমান শিরিষের সচিব সানাউল্লাহ সাংবাদিকদের মারমুখি হয়ে উঠেন।
এলাকাবাসী আরো জানান, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক রাস্তা উন্নয়নে গ্রাম্য রাস্তা ২০ ফুট টেন্ডার দেয়া হয়েছে। কিন্তু মেয়র জাহাঙ্গীর আলম তা ৪০ ফুট করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। কিন্তু সাধারণ মানুষের ক্ষতিপূরণ না দিয়ে দু’পাশের ঘরবাড়ি ও ২০টি কবরস্থান, মসজিদ, মাদ্রাসা ভেঙ্গে রাস্তা তৈরি করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। কিন্তু সাধারণ মানুষ দিশেহারা হয়ে এর প্রতিবাদ জানান। এলাকাবাসী আরো জানান, এলাকার মানুষের অনেক ঘরবাড়ি ভেঙ্গে রাস্তা তৈরি করার উদ্যোগ। এলাকাবাসী উন্নয়নের পক্ষে রাস্তা প্রয়োজন বলে মনে করেন। এলাকাবাসী আরো জানান আমরা উন্নয়নের পক্ষে ক্ষতিগ্রস্ত হলেও সিডিউল অনুপাতে রাস্তা দিতে আমাদের আপত্তি নাই। ২০ফুট রাস্তা করলে আমাদের ক্ষতি হলেও আমরা রাস্তা দিতে রাজি। কিন্তু সিডিউলের বাইরে ৪০ফুট রাস্তা করলে আমাদের ক্ষতিপূরণ অবশ্যই দিতে হবে।
এছাড়াও এলাকাবাসী আরো জানান, বর্তমানে রাস্তুগুলো ৮ থেকে ১০ফুট প্রস্ত আছে। ৪০ফুট রাস্তা করার পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। উক্ত রাস্তাগুলো ৪০ফুট প্রসস্ত করা হলে রাস্তার দুই পাশের প্রায় দুই শতাধিক পরিবার মারাত্মক ক্ষতি হবে।এছাড়াও কিছু পরিবার একেবারে নি:স্ব হয়ে যাবে এর মধ্যে ১৫টি মার্কেট, ১৫টি বহুতল ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হবে। এই অবস্থায় অসহায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোর কথা মানবিক বিবেচনায় এনে ৪০ফুট প্রসস্ত করার পরিবর্তে ড্রেনসহ ২০ফুট প্রসস্ত করার জন্য এলাকাবাসী বিনীত অনুরোধ করেন। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন দু’পাশের ৪০ফুট রাস্তা করার জন্য আমাদের ব্যাপক ক্ষতি করছে। কারো ৫০ লক্ষ টাকার জমি ও ঘরবাড়ি ভেঙ্গে তাকে ক্ষতিপূরণ বাবদ ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেন সিটি মেয়র ও কাউন্সিলর। উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন ৪০নং ওয়ার্ডের জয় বাংলা রোড হইতে কুদাব কমিউনিটি হাসপাতাল, কমিউনিটি হাসপাতাল হইতে কুদাব মধ্যপাড়া মসজিদ, কুদাব মধ্যপাড়া মসজিদ হইতে নূর আলম খানের বাড়ি হয়ে বাইপাস পর্যন্ত, করমতলা হইতে কুদাব হয়ে মিরের বাজার তুরাগ পাম্প পর্যন্ত গ্রাম্য রাস্তার টেন্ডার হয়েছে ড্রেনসহ ২০ ফুট। কিন্তু মেয়রের নির্দেশে ওই রাস্তা দুই পাশের বাড়িঘর ভেঙ্গে সাধারণ মানুষের ক্ষতিপূরণ না দিয়ে ৪০ফুট করার উদ্যোগ গ্রহণ করেন। এরই প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার পূবাইল থানা যুবলীগ নেতা মামুনুর রশিদ ভূঁইয়ার নেতৃত্বে এলাকাবাসী প্রতিবাদ করেন। প্রতিবাদ ও মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন ভোক্তভোগী বীরমুক্তিযোদ্ধা শফিউদ্দিন খান, আব্দুর রব ভূঁইয়া, রফিকুল ইসলাম মোড়ল, সাইজ উদ্দিন খান, আসাদুজ্জামান খোকন, আব্দুল হক, পূবাইল কলেজের অধ্যাপক আফজাল হোসেন, রিয়াজ উদ্দিন শেখ, মশিউর রহমান গং, রফিক মোড়ল, সাইজউদ্দিন শেখ, বাদশা মিয়া শেখ, আমজাদ হোসেন ভূঁইয়া।
এব্যাপারে এলাকাবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়ে গত ১৪ নভেম্বর গাজীপুর জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসনের উর্দ্ধতন মহলে ড্রেনসহ ২০ফুট রাস্তা করার জন্য লিখিত অভিযোগ জানান।