শনিবার ৩রা এপ্রিল, ২০২০ ইং ২১শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

সুন্দরগঞ্জে করোনা প্রতিরোধে জনসমাগম কমেছে….

আপডেটঃ 11:21 pm | March 24, 2020

নাজিব হোসেন শান্ত, সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রয়োজন জনসমাগম বন্ধ রাখা। প্রশাসনসহ গণমাধ্যমের এমন প্রচার-প্রচারনায় সুন্দরগঞ্জে কমছে জনসমাগম-সচেতন হচ্ছে সাধারণ মানুষ। এমন ইতিবাচক পরিবর্তনে করোনা প্রতিরোধে আশার আলো দেখছেন সংশ্লিষ্টরা।
মঙ্গলবার সুন্দরগঞ্জে দিনভর নগরীর ব্যস্ততম পৌর বাজার, মীরগঞ্জ বাজার, সোনারায় বাজার, শোভাগঞ্জ বাজারসহ উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার গুলোতে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি ছিলো অন্য যে কোন দিনের চাইতে অনেক কম। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাইরে বের হয়নি কেউ।
সরেজমিনে দুপুরে পৌর বাজার, মীরগঞ্জ বাজার, সোনারায় বাজার, শোভাগঞ্জ বাজারে ঘুরে দেখা যায়, রাস্তার পাশে ভ্রাম্যমাণ ফল বিক্রেতারা অলসভাবে বসে আছেন। রিক্সা, অটোরিক্সার চালকরা অলসভাবে বসে আছেন। ক্রেতার অভাবে হাকডাক নেই ফুটপাতের ফেরীওয়ালাদের। চোখে পড়েনি হোটেলগুলোতে দুপুরে খেতে আসা লোকজনের ভীড়।
পৌর বাজার এলাকায় ফুটপাতের ভ্রাম্যমান ফল বিক্রেতা আকবার জানান,গতকাল সোমবার থেকে আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত বিক্রি নেই বললেই চলে। আজ মঙ্গলবার এখন পর্যন্ত ৮’শ টাকার ফল বিক্রি করেছি। যেখানে অন্যদিন গড়ে আড়াই হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা বেঁচাকেনা হতো।
বিভিন্ন হোটেলে যোগাযোগ করলে জানা যায়,অন্য যে কোন দিনের চাইতে ক্রেতা সমাগম কম ছিলো। মীরগঞ্জ কাঁচা বাজারেও অলস বসে থাকতে দেখা যায় খুচরা তরকারি বিক্রেতাদের।
পৌর শহর যেখানে যানবাহনের কারনে দিনভর যানজট লেগে থাকতো সাধারণ মানুষ ঘরে অবস্থানের কারনে শহর ফাঁকা ছিলো।
করোনা থেকে বাঁচতে সর্তকতা অবলম্বন জরুরি। আর সাধারণ মানুষজন ঘরে অবস্থান করার বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছেন বিশিষ্ট উপজেলা চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম সরকার লেবু।
তিনি জানান, বাইরে সাধারণ মানুষের উপস্থিতি কম বিষয়টি অবশ্যই শুভ লক্ষণ। আমরা সচেতন হলেই করোনা প্রতিরোধ সম্ভব।