সোমবার ১৯শে এপ্রিল, ২০২১ ইং ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

কে এই টুটুল ? এদের খুঁটির জোঁর কোথায়-নীরব প্রশাসন….

আপডেটঃ ৪:৩০ অপরাহ্ণ | মার্চ ১৩, ২০২১

বিশেষ প্রতিনিধি: গাজীপুর জেলা-: বিগত ২৬/০২/২১ইংতারিখ আনুমানিক ১২টার সময় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে। গাজীপুরা সাতাইশ এলাকার চিন্হিত কিশোর  গ্যাং  সন্ত্রাসী টুটুল, নূর মোহাম্মদ, মিলন,রাসেল,আদম,হাবু,সাত্তার,, সহেল,আনোয়ার, আল আমিন,মিথুন,তরিকুল,  ,সৈকত, নিজাম সহ আরো ত্রিশ থেকে চল্লিশ জন সন্ত্রাসী।  পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে টঙ্গী পশ্চিম থানা বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের অফিসে জামাত স্টাইলে পত্যকের হাতে লোহার রড,চাপাতি, ধারালো দা,চাইনিজ কুড়াল,সহ দেশীয় অস্রসস্র নিয়ে  অত্রকৃত হামলা চালিয়ে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন টঙ্গী পশ্চিম থানার সভাপতি মোঃআবু বক্কর সিদ্দিক, সহ-সভাপতি মোঃ আবদুল্লাহ,সহঃ সভাপতি সজিব,সাধারণ সম্পাদক মহসীন,  সহঃ সাধারণ সম্পাদক, নূর উদ্দিন,সাংগঠনিক সম্পাদক মান্নান, নির্বাহী সদস্য সুমন শাহী,শাহীন,হুমায়ুন, হারুন,জুয়েল, আবেধ আলী,সুমন,শাকিলসহ বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন টঙ্গী পশ্চিম থানার আরো অনেক নেতাকর্মীকে জামাত শিবিরের স্টাইলে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে আহত করে।  বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাকর্মী এবং গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা, এবং হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের  শিরোমণি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পথপ্রদর্শক জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি সম্মেলিত বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনর ব্যানারের উপর দারালো চাপাতি, চাইনিজ কুড়াল দিয়ে জামাত শিবির স্টাইলে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে হামলাকারীরা। হামলাকারী হাবু,এবং  নূর মোহাম্মদ হামলার   কিছু দিন পূর্বে হাবু এবং  নূর মোহাম্মদ  কে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন টঙ্গী পশ্চিম থানার কমিটিতে যুক্ত করে নিতে বলেন। হামলাকারী টুটুল  বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের টঙ্গী পশ্চিম থানার কমিটির সহঃ সভাপতি পদ ছাইলে কমিটি তার উশৃংখলা এবং বিভিন্ন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের জন্য কমিটি টুটুলকে পদ দিতে অসীকৃতি জানান।টুটুলের নেত্রীত্তে গাজীপুরা সাতাইশ গড়ে উঠেছে কিশোর গ্যাং। তারা গাজীপুরা সাতাইশ এলাকায় চিন্তাই চাঁদাবাজি সহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করেন।টুটুলের কিশোর গ্যাং বাহীনির অত্যাচারে অতিষ্ট গাজীপুরার এলাকাবাসী।তার পর  থেকে টুটুল তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নেতাকর্মীদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়ে আসেন।তার জের ধরে গত ২৬/০২/২১ তারিখ সকাল থেকে টুটুল তার সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের সকল নেতাকর্মীকে অফিস বন্ধ করে এলাকা ছেঁড়ে চলে যাওয়ার জন্য হুমকি দিতে থাকে। আনুমানিক ১২টার দিকে টুটুল তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন টঙ্গী পশ্চিম থানার অফিসে ফ্লিম স্টাইলে হামলা চালায়। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় বঙ্গবন্ধুর ছবির উপর হামলা করে বাংলাদেশ আওয়ামিলীগের রাজনৈতিক ইতিহাসে এক কালো অধ্যায়ের সুচনা করেন সন্ত্রাসী টুটুল৷ যাহা রাষ্টদ্রোহী আচরন।বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নেতাকর্মীদের উপর হামলার পর তারা প্রশাসনের সহোযোগিতার জন্য জরুরী নাম্বার ৯৯৯ কল করেন। কিছুক্ষন পর ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন টঙ্গী পশ্চিম থানার তিন জন পুলিশ কর্মকর্তা। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হওয়ার পর টঙ্গী পশ্চিম থানার পুলিশ কর্মকর্তা মালেক, সহেল,হামলাকারীদের পক্ষ পাতিত্ত করেন বলে দাবি করেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনর নেতাকর্মীরা। টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা শাহ আলমের সাথে কথা বললে তিনি সাংবাদিকে বলেন ঘটনার সত্যতা পাওয়া যায়নি।এ দিকে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন টঙ্গী পশ্চিম থানার কমিটির নেতাকর্মীরা তাদের নিরাপত্তার জন্য মামলা দায়ের করতে গেলে টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ করেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নেতাকর্মীরা।এ দিকে  বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন কেন্দ্রীয় কমিটির নেতাকর্মীদের সাথে কথা বললে তারা বলেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনর উপর হামলার ঘটনা খুবই দুঃখ জনক। প্রশাসন কেনো নীরব ভূমিকা পালন করছে এই বিষয়টি খতিয়ে দেখার জন্য মন্ত্রী সভায় আলোচনা চলিতেছ। প্রশাসনের নীরবতার বিস্তারিত নিয়ে আসছি আগামী পর্বে।দেখতে চোখ রাখুন অনলাইন চ্যানেল সেভেন বিডি ডট কম অনলাইন পত্রিকায়………….www.channel7bd.com