বুধবার ২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

রাজিবপুরে পাটের ভালো দাম পেয়ে কৃষকরা খুশি হাট-বাজারে পাট উঠতে শুরু করেছে। দামও ভালো, চাষিরা মহাখুশি

আপডেটঃ ৭:৪১ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১০, ২০১৪

আলতাফ হোসেন সরকার, রাজিবপুর, কুড়িগ্রাম থেকে :
রাজিবপুরের হাট-বাজারগুলোতে নতুন পাট উঠতে শুরু করেছে। পাটের দাম মোটামুটি ভাল পেয়ে খুশি কুড়িগ্রামের রাজিবপুর উপজেলার কৃষকরা। এ বছর লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৫ শ’ হেক্টর জমিতে বেশি পাট চাষ হলেও ফলন হয়েছে বেশি। উপজেলায় ২ হাজার ৭শ’ ৫ হেক্টর জমিতে পাট চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল। সেখানে পাট চাষ হয়েছে ৩ হাজার ২শ’ ৫হেক্টর জমিতে। তার মধ্যে দেশী জাতের পাটের আবাদ হয়েছে ৫ হেক্টর জমিতে আর বাকী জমিতে তোষা জাতের পাটের চাষ করা হয়েছে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের পিপি আব্দুর রশিদ মন্ডল জানান, চাষ বেশি হলেও পাটের ফলনও বেশি হয়েছে। এবার উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম করার আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি। ইতোমধ্যে প্রায় পঞ্চাশ শতাংশ জমির পাট কাটা হয়েছে।
উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে নতুন পাট উঠতে শুরু করেছে। শনিবার ও রোববার উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে সরজমিনে দেখা গেছে, অনেক নতুন পাট আমদানী হয়েছে। হাটে প্রতিমণ পাট ১৫শ’ টাকা থেকে ১হাজার ৬শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। রাজিবপুর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, প্রতিমণ পাট উৎপাদনে কৃষকের খরচ হয়েছে সাড়ে ৯ শ’ থেকে এক হাজার টাকা।
রাজিবপুর উপজেলার উত্তর কোদালকাটি গ্রামের কৃষক রুস্তম আলী জানান-এবার পাটেও লাভ পাটের খড়িতে আরো বেশি লাভ হবে। তবে বাদ সেজেছে পাট পঁচানোর পানি। এলাকার খাল-বিলে পানি না থাকায় বাড়তি টাকা খরচ করে বাহির নদীতে পাটের জাগ দিতে হচ্ছে এই এলাকার কৃষকদের। তারপরও দাম বেশি হওয়ায় এই উপজেলার কৃষকরা সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেছেন।