শুক্রবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

“আমার বাবা আমাকে ধর্ষণ করেছে, ধর্ষক বাবার কঠোর শাস্তি চাই।“

আপডেটঃ ৪:২৭ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৫, ২০১৪

পর পর দু`বার গণ ধর্ষিত হওয়ার পর নিজের বাবার হাতেই ফের ধর্ষণের শিকার হল হরিয়াণার এক স্কুলছাত্রী। দিল্লি থেকে এক ঘণ্টারও কম দূরত্বে অবস্থিত সোনেপাতের এই কিশোরী পুলিসকে তার তার উপর ঘটে যাওয়া নৃশংস এই অত্যাচারের কথা জানানোর সময় ভয়াবহ অভিযোগ তুলল।

নিগৃহীতা কিশোরীর বয়ানে জানা গেছে তার গ্রামেরই একদল তরুণ গত দু`মাসে দু`বার ধর্ষণ করে তাকে। কিন্তু এখানেই শেষ নয়। মেয়েটিকে ধর্ষণ করার অভিযোগে অভিযুক্তরা সবাই গ্রেফতার হওয়ার পরেও আতঙ্ক ছেড়ে গেল না তাকে। ঘরের চৌহদ্দীর মধ্যেই তার উপর নেমে এল যৌন নির্যাতনের অভিশাপ। দিনের পর দিন নিজের বাবার বিকৃত যৌন লালসার শিকার হতে হল তাকে। অভিযোগ, ওই কিশোরীর বাবা নিজের মেয়েকেই ধর্ষণ করে।

মেয়েটি তার বয়ানে জানিয়েছে গত বছরের সেপ্টেম্বরে বাবা তাকে ধর্ষণ করে। “বাবা বলেছিল কারোর কাছে মুখ খুললেই আমাকে খুন করবে। আমি পড়াশোনা করতে চাই। কিন্তু আমার বাবা আমাকে যৌন পেশা গ্রহণ করতে বাধ্য করছে। দয়া করে আমাকে বাঁচান।“ পুলিসের কাছে করুণ আর্তি করেছে অসহায় ওই কিশোরী।

স্থানীয় একটি এনজিও মেয়েটিকে পুলিসের কাছে নিয়ে এলে তার ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। মেয়েটি জানিয়েছে সে আর বাড়ি ফিরে যেতে চায় না।
নিগৃহীতা কিশোরীর বাবাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের মামলা দায়ের করা হয়েছে।

“আমার বাবা আমাকে ধর্ষণ করেছে। আমি আর বাবার সঙ্গে থাকতে চাই না। ওই লোকটার শাস্তি হওয়া উচিৎ। আমি বিচার চাই।“ পুলিসকে খোলা চিঠতে দাবি জানিয়েছে ওই স্কুল ছাত্রী। মেয়েটি আপাতত ওই এনজিও-টির তত্ত্বাবধানে রয়েছে।

মেয়েটির মা জানিয়েছেন তাঁর বাড়ির চৌহদ্দির মধ্যে এই নৃশংস ঘটনার কথা আগে থেকে কিছুই টের পাননি। তিনি জানিয়েছেন তাঁর মেয়ে এই বিষয়ে তাঁকে আগে কিছুই জানায়নি। এখনই মেয়ের মুখ থেকে এই ভয়াবহ অভিজ্ঞতা জানতে পেরেছেন তিনি। স্বামীর যথোপযুক্ত কঠোরতম শাস্তির দাবি করেছেন ওই ভদ্রমহিলাও।