বৃহস্পতিবার ১৫ই এপ্রিল, ২০২১ ইং ২রা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

প্রিয়ভাষিণী পেলেন ‘মুক্তিযোদ্ধা’ স্বীকৃতি

আপডেটঃ ১:৪০ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১১, ২০১৬

সচিবালয় প্রতিবেদক: সরকার ১২৩তম বীরাঙ্গনাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। তিনি হলেন দেশের প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। এর মাধ্যমে দেশের বীরাঙ্গনা থেকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়ার সংখ্যা হলো ১২৩।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা সুফি আব্দুল্লাহিল মারুফ রাইজিংবিডিকে এই তথ্য জানান।

তিনি বলেন, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের ৩৫তম সভায় এই স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এর আগে বিভিন্ন সভায় ১২২ জনকে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছিল। আজ ১২৩ ক্রমে থাকা বীরাঙ্গনাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হলো, তিনি হচ্ছেন ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী।

১৯৭১ সালে ডিসেম্বরে বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর ১৯৭২ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মুক্তিযুদ্ধের সময় নির্যা‌তিত নারীদের ‘বীরাঙ্গনা’ স্বীকৃতি দিয়ে তাদের সম্মান জানান। তার নির্দেশনায় বীরাঙ্গনাদের ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসনের কাজ শুরু হয়, যা ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের আগ পর্য‌ন্ত চলছিল। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর এই প্রক্রিয়াটি বন্ধ হয়ে যায়।

vv

আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার বীরাঙ্গনাদের মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এ বিষয়ে আদালতের নির্দেশনাও আসে। শেষ পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের ৪৩ বছর পর ২০১৪ সালের ১০ অক্টোবর বীরাঙ্গনাদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল। এরপর ২০১৫ সালের ২৯ জানুয়ারি জাতীয় সংসদে ওই প্রস্তাব পাস হয়।

এরপর তিনটি আলাদা আলাদা গেজেটে বীরাঙ্গনাদের মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়। এতে সর্বশেষ সম্মানপ্রাপ্ত হলেন ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী।