রবিবার ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ ইং ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

আইএসের প্রতিষ্ঠাতা ওবামাই : ট্রাম্প

আপডেটঃ ৬:৪৯ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১১, ২০১৬

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: এবার কোনো জড়তা নয়, উচ্চকণ্ঠে বললেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, ‘আইএস প্রতিষ্ঠা করেছেন বারাক ওবামাই।’ এ ছাড়া তিনি ‘বারাক হুসেইন ওবামা’ নামেও অভিহিত করেন ওবামাকে।  ফ্লোরিডা রাজ্যের ফোর্ট লৌডারডেলের বাইরে এক সমাবেশে বক্তব্য দেওয়ার সময় জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস)  প্রতিষ্ঠাতা হিসেবে অন্তত তিনবার প্রেসিডেন্ট ওবামার নাম উল্লেখ করেন ট্রাম্প।

আইএস এবং ওবামার উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘অনেক ক্ষেত্রে তারা তাকে সম্মান করে। তিনিই আইএসের প্রতিষ্ঠাতা।’

বার্তাসংস্থা অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসের বরাত দিয়ে ডন অনলাইনের এক খবরে বৃহস্পতিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

এর আগে ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ও তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটনকে আইএস প্রতিষ্ঠার জন্য দায়ী করেন ট্রাম্প। বুধবারের বক্তব্যেও তিনি হিলারিকে জড়িয়ে কথা বলেন, ‘আসলে হিলারি হলেন এই গ্রুপের (আইএস) সহ-প্রতিষ্ঠাতা।’

এবার নিয়ে কমপক্ষে তিনবার আইএস প্রতিষ্ঠার জন্য ওবামা এবং হিলারিকে দায়ী করলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। তব বরাবরের মতোই বক্তব্যের পক্ষে কোনো তথ্য-প্রমাণ হাজির করেননি তিনি।

মধ্যপ্রাচ্যে অশান্তি সৃষ্টির জন্য প্রেসিডেন্ট ওবামা ও তার প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারিকে অনেক দিন ধরে অভিযুক্ত করে আসছেন ট্রাম্প। ইরাকে ক্ষমতার শূন্যতা তৈরি করে দেওয়ায় সেই সুযোগে উত্থান হয়েছে আইএসের বলে মনে করেন ট্রাম্প।

ইরাক ইস্যুতে ওবামাকে কঠোর ভাষায় সমালোচনা করে ট্রাম্প ঘোষণা দেন, তিনি প্রেসিডেন্ট হলে ইরাক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের সেনাদের প্রত্যাহার করে নেবেন। এ নিয়ে নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং দাবি করেন, এতে ইরাকের পরিস্থিতি আরো অবনতি হবে এবং আইএস জেঁকে বসবে।

এদিকে ট্রাম্পের বক্তব্যের বিষয়ে হোয়াইট হাউসের প্রতিক্রিয়া জানতে চাওয়া হলে, তারা কিছু বলতে অস্বীকৃতি জানায়।

আল-কায়েদার দলছুট একটি অংশ প্রতিষ্ঠাতা করে আইএস। তারা ইরাকে শিয়া ও সংখ্যালঘু অন্যান্য সম্প্রদায়ের মানুষের ওপর বর্বর নির্যাতন ও গণহত্যা চালাচ্ছে। ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্রে হামলার জন্য যে আল-কায়েদাকে দায়ী করা হয়, তাদের একটি অংশ থেকে আইএস নামে আত্মপ্রকাশ করা জঙ্গিগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠার জন্য যুক্তরাষ্ট্রেরই প্রেসিডেন্টকে দায়ী করছেন আরেক মার্কিনি নেতা।

আইএসের প্রতিষ্ঠাতা এবং ওবামার মধ্য নাম ‘হুসেইন’ ব্যবহার করে ওবামার প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব পালনের বিষয়টিকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা করেছেন ওবামা- এমনটি মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

এর আগে ওবামার পরিচয় নিয়ে ভুল তথ্য হাজির করেন ট্রাম্প। তার ভাষায়, ওবামা একজন মুসলিম এবং তিনি কেনিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন, যেখানে তার বাবারও জন্ম।  কিন্তু ওবামা একজন খ্রিষ্টান এবং তিনি জন্মগ্রহণ করেন যুক্তরাষ্ট্রে হাওয়াইয়ে।

৮ নভেম্বর অনুষ্ঠেয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টি প্রার্থী হিসেবে লড়বেন ট্রাম্প। তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হিলারি ক্লিনটন। ক্লিনটনকে এর আগে ‘শয়তান’ বলে উল্লেখ করার পর মঙ্গলবার তাকে হত্যার জন্য রিপাবলিকানদের উস্কানি দেন ট্রাম্প- এমন অভিযোগ নিয়ে এখনো তোলপাড় চলছে।