বুধবার ১৪ই এপ্রিল, ২০২১ ইং ১লা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

ক্ষোভ কমেছে উত্তরাবাসীর

আপডেটঃ ৫:২৬ পূর্বাহ্ণ | আগস্ট ১৮, ২০১৬

 

স্টাফ রিপোর্টার:চ্যানেল সেভেন বিডি:

সড়ক উন্নয়নের জন্য গত অর্থবছরে উত্তরা এলাকায় কয়েক শ গাছ কাটে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি)। গাছ কাটা নিয়ে ক্ষোভ ছিল উত্তরার বিভিন্ন সেক্টরের বাসিন্দাদের মধ্যে। আগের চেয়ে প্রশস্ত করে ওই সড়কগুলো ডিএনসিসি কর্তৃপক্ষ সংস্কার করায় তাদের ক্ষোভ অনেকটাই কমেছে। তবে সংস্কার করা সড়কগুলো কতটা টেকসই হবে, তা নিয়ে সন্দেহ আছে বাসিন্দাদের মধ্যে।

ডিএনসিসি সূত্রে জানা গেছে, গত অর্থবছরে ৬৮ কোটি টাকা ব্যয়ে উত্তরার বিভিন্ন সেক্টরের ৫২টি সড়ক সংস্কার করেছে ডিএনসিসি। এ সময় প্রায় ২৩ কিলোমিটার সড়ক, ১৫ কিলোমিটার ফুটপাত ও ২৭ কিলোমিটার পানিনিষ্কাশন নালা সংস্কার করা হয়। সড়কগুলো সংস্কারের সময় বেশ কিছু গাছ কাটা হয়েছিল। সেগুলোর মধ্যে বিভিন্ন প্রজাতির ৫ থেকে ২০ বছর বয়সী গাছ ছিল। এই গাছ কাটা নিয়ে সেক্টরের বাসিন্দারা ক্ষুব্ধ ছিলেন।
গত ডিসেম্বর মাসে উত্তরার ৪ নম্বর সেক্টরের শাহজালাল অ্যাভিনিউ এবং ৬ নম্বর সেক্টরের ঈশা খাঁ অ্যাভিনিউয়ে ডিএনসিসির সংস্কারকাজ চলার সময় ছোট-বড় ২০০ গাছ কেটে ফেলা হয়। সে সময় গাছ কাটা নিয়ে সেক্টর কল্যাণ সমিতির নেতারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

গতকাল মঙ্গলবার এ বিষয়ে জানতে চাইলে ৬ নম্বর সেক্টরের সভাপতি মো. নজরুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, রাস্তাগুলো ভালো হওয়ায় বাসিন্দাদের ক্ষোভ অনেকটাই কমেছে। নাগরিকেরা যেমন আশা করেন, সেভাবে কাজ হলে সবাই সন্তুষ্ট হন। সিটি করপোরেশন বাসিন্দাদের সচেতন করে গাছ লাগানোর চেষ্টা করছে। রাস্তাগুলো সবুজায়নের কাজ হলে বাসিন্দারা আরও খুশি হবেন।

৭ আগস্ট মেয়র আনিসুল হকের সঙ্গে উত্তরার বিভিন্ন সেক্টরের কল্যাণ সমিতির নেতা, ভবনমালিকদের এক মতবিনিময় সভা হয়। সভায় বিভিন্ন সেক্টরের নেতারা বলেন, নতুন ও প্রশস্তভাবে সড়কগুলো সংস্কার হওয়ায় গাছ কাটা নিয়ে তাঁদের ক্ষোভ অনেকটা কমেছে। তবে সেখানে উপস্থিত উত্তরার বাসিন্দারা এসব সড়ক সংস্কারে ব্যবহৃত সামগ্রীর মান ও সড়কগুলো কতটা টেকসই হবে, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন।

আনিসুল হক বলেন, ‘কখনো প্রয়োজনে গাছ কাটা দরকার হতে পারে। তবে আমরা গাছের পক্ষে, একটি কাটলে পাঁচটি লাগাতে হবে। সবুজ ঢাকা গড়ার অংশ হিসেবে উত্তরা এলাকায় বেশ কিছু সড়ক নতুন করে করা হয়েছে। এসব সড়কের পাশে গাছের চারা লাগানো হচ্ছে। এই উদ্যোগের সহযাত্রী হিসেবে আছেন বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্রের সভাপতি অধ্যাপক আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ।’

সবুজ ঢাকা গড়ার অংশ হিসেবে উত্তরার বিভিন্ন সেক্টরে ৩১ আগস্টের মধ্যে ২৯ হাজার গাছের চারা লাগাবে ডিএনসিসি। গাছ লাগানোর ক্ষেত্রে নতুনভাবে সংস্কার হওয়া এসব সড়কের বিভাজক, ফুটপাত ও খালি জায়গাকে প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। চলতি মাসের শুরু থেকে ইতিমধ্যে প্রায় ১৬ হাজার চারা লাগানো হয়েছে।

ডিএনসিসি সূত্রে জানা যায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ১২৫ কোটি টাকা ব্যয়ে উত্তরার বিভিন্ন সেক্টরের প্রায় ৪০ কিলোমিটার সড়ক, ৪৯ কিলোমিটার ফুটপাত এবং ২০ কিলোমিটার নালা নির্মাণ করা হবে।

জানতে চাইলে ডিএনসিসির আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা জিয়াউদ্দীন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, অনেক ক্ষেত্রেই সড়কের প্রস্থ বাড়াতে গিয়ে সড়কের মাঝামাঝি পড়ায় কিছু গাছ কাটতে হয়েছে। এই অর্থবছরে যেসব সড়ক উন্নয়ন করা হবে, সেগুলোর ক্ষেত্রে ফুটপাতের ওপরে থাকলে কোনো গাছ কাটা হবে না।

সুত্রঃ প্রথম আলো।।