বুধবার ১৪ই এপ্রিল, ২০২১ ইং ১লা বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

পঞ্চগড়ে দুই সীমান্তে রাখি বন্ধন উৎসব পালিত

আপডেটঃ ৯:০৬ অপরাহ্ণ | আগস্ট ১৯, ২০১৬

এ রউফ, পঞ্চগড় প্রতিনিধি:
রক্তের বন্ধন বড় কথা নয় হৃদয়ে ভালবাসা তো আছে । আছে সংস্কৃতির টান। দুইদেশের সাংস্কৃতিক বন্ধনকে আরও সুদৃঢ করতে পঞ্চগড়ের দুই সীমান্তে পালিত হলো ঐতিহ্যবাহী রাখি বন্ধন উৎসব। বৃহস্পতিবার ভাইয়ের কপালে দিলাম ফোটা যমের দুয়ারে পড়ল কাটা এই প্রার্থনা নিয়েই ভারতীয় বোনেরা বাংলাদেশের ভাইদের হাতে রাখি পড়িয়েদেয়। এরপর কপালে ভাই ফোটা দিয়ে মিষ্টি মুখ করানো হয়। প্রতিবছরের শেষ পূর্ণিমায় প্রাচীন কালথেকে ভারতে এই উৎসব পালিত হয়ে আসছে। পঞ্চগড়ের সুকানী ও বাংলাবান্ধা সীমান্তে বিএসএফ ও বিজিবির মধ্যে রাখিবন্ধন এই উৎসব পালিত হয়েছে । সীমান্তের উভয় বাহিনীর মধ্যে সৌহার্দ্য, সম্প্রীতি ও ভাতৃত্ববোধ বজায় রাখতে ভারতের বিএসএফের উদ্যোগে এই উৎসব পালন করা হয়। সকালে পঞ্চগড়েরদেবনগর ইউনিয়নের সুকানী সীমান্তের ৭৪৪ নং পিলারের কাছে কলকাতার দৈনিক জাগরণ পত্রিকার পক্ষ থেকে শিলিগুড়ি হিন্দি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা বিজিবি সদস্যদের হাতে রাখি পড়িয়ে দেয়। এর পর উপস্থিত ভারতীয় নাগরিকরা বিজিবি সদস্যদেরকে ভাই ফোটা দিয়ে মিষ্টি মুখ করায়। এদিকে দুপুরে বাংলাবান্ধা সীমান্তের ফুলবাড়ি ক্যাম্পে বিএস এফ এর নারী সদস্যরা বিজিবি সদস্যদের হাতে রাখি পরিয়েদেয়। এর পর ভাইভোটা দিয়ে মিষ্টি মুখ করানো হয়।এসময় বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফ এর সদস্যদেরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয় এবং উপহার সামগ্রী প্রদান করা হয়। অন্যদিকে বাংলাবান্ধা সীমান্তের ভারতের ফুলবাড়ি বিএসএফ ক্যাম্পের সামনে ডাব গ্রাম ফুলবাড়ি ব্লক তৃণমূল যুব কংগ্রেসের উদ্যেগে রাখিবন্ধন উপলক্ষে মহাউৎসব আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ভারতের বিভিন্ন স্তরের নাগরিকরা অংশ নেয়। অনুষ্ঠানে পশ্চিম বঙ্গের অনগ্রসরশ্রেণী কল্যান মন্ত্রী জেমস খুজুর, শিলিগুড়ি বিএসফএর ডি আইজি আরসি সিং, পঞ্চগড় ১৮ বিজিবির অধিনায়ক ল: কর্ণেল আল হাকিম মোহাম্মদ নওশাদ, পঞ্চগড় চেম্বারস অব কমার্সের সহ-সভাপতি এটিএম কামরুজ্জামান শাহানশাহ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানটি শুরু হয় রবীন্দ্রনাথের বাংলার মাটি বাংলার জল গানটি দিয়ে। এরপর আগত ভারতীয় অতিথিরা বাংলাদেশের বিজিবি সদস্য, সাংবাদিক ও আমন্ত্রিত অতিথিদের হাতে রাখি পরিয়ে দেয়। এর পর আলোচনায় ভারতীয় মন্ত্রী বলেন আমরা দুইদেশে থাকলেও আমাদের সাংস্কৃতিক বন্ধন এক। আমাদের মধ্যে ভাতৃত্ববোধ আর বন্ধুত্ব যাতে অটুট থাকে এ জন্য প্রতিবছর এই অনুষ্ঠান আয়োজন করা হবে। পঞ্চগড় ১৮ বিজিবির অধিনায়ক তার বক্তব্যে বলেন রাখিবন্ধন উৎসবে আমাদেরকে আমন্ত্রন জানানোর জন্য ভারতীয় সরকারকে অভিনন্দন। এই অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ভারত বাংলাদেশের মধ্যে ভাতৃত্ব আরও বেড়ে যাবে। সমবেত ভাবে ভারতীয় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠান টিশেষ হয়।