রবিবার ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ ইং ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

রামপালের বিরুদ্ধে কর্মসূচি দিচ্ছে বি এন পি

আপডেটঃ ৪:০৪ পূর্বাহ্ণ | আগস্ট ২০, ২০১৬

চ্যানেল সেভেন বিডি :  সুন্দরবনের অদূরে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যু কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদ জানিয়ে প্রকল্পটি বন্ধ করতে পরিবেশবাদী বিভিন্ন সংগঠনের পর এবার কর্মসূচি নিয়ে আসছে বিএনপি।

বৃহস্পতিবার রাতে দলটির সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম ‘জাতীয় স্থায়ী কমিটি’র বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে দলটির একাধিক সূত্রে জানা গেছে।

গত ৬ আগস্ট স্থায়ী কমিটির নতুন কমিটি ঘোষণার পর এটিই প্রথম বৈঠক। রাত ৯টা ১০ মিনিটে বৈঠকটি শুরু হয়ে চলে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র ছাড়াও দলের সাংগঠনিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে বৈঠকে।

সূত্র বলছে, বৈঠকে রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ হলে সুন্দরবনের ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে আলোচনা হয়েছে। এর বিরুদ্ধে প্রাথমিকভাবে বিক্ষোভ বা মানববন্ধনের মতো কর্মসূচির চিন্তা করছেন দলের নেতারা। তবে এর চেয়েও কঠোর কর্মসূচিতে যেতে পারেন তারা। এর আগে রামপালে বিদ্যুৎ কেন্দ্র হলে সুন্দরবনের কী পরিমাণ ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে, সে বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য সরবরাহ করবে দলটি।

শনিবার ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে বৈঠকের পর এ বিষয়ে কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়ার চিন্তা ভাবনা করছে বিএনপির হাইকমান্ড।

এ ছাড়া বৈঠকে দলের সাংগঠনিক পুনর্গঠনের বিষয়ে দলের নীতি নির্ধারকরা আলোচনা করেছেন বলে জানা গেছে। দলের স্থগিত হওয়া জেলা কমিটিগুলোর কাজ শুরু করার নির্দেশ দিয়েছেন খালেদা জিয়া।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, নির্বাহী কমিটির আকার আরো বাড়ানোর কথা থাকলেও অবশেষে সেই অবস্থান থেকে সরে এসেছে বিএনপি। কমিটির আকার আর না বাড়িয়ে ‘এক নেতার এক পদ’ নীতি অনুসরণ করার মাধ্যমে কিছু পদ শূন্য হবে। ওই পদগুলোতে নতুন নেতৃত্ব আনবেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

এ ছাড়া ঢাকা মহানগরকে আরো শক্তিশালী করতে ওয়ার্ড পর্যায়ে ১০১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠনেরও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপির নীতি নির্ধারণী ফোরাম।

বিএনপির সদ্য ঘোষিত স্থায়ী কমিটি, উপদেষ্টা পরিষদ এবং নির্বাহী কমিটির নতুন পদ পাওয়া নেতাদের আগামী ২১ আগস্ট দলটির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর বিষয়টিও নির্ধারিত হয়েছে বৈঠকে।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, তরিকুল ইসলাম, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আ স ম হান্নান শাহ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান উপস্থিত ছিলেন।

গত ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের প্রায় সাড়ে চার মাস পর গত ৬ আগস্ট বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটি ঘোষণা করা হয়। স্থায়ী কমিটির সদস্য সংখ্যা ১৯ জন হলেও দুটি পদ ফাঁকা রেখে ১৭ জনের নাম ঘোষণা করা হয়।