রবিবার ১৮ই এপ্রিল, ২০২১ ইং ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

রাজনৈতিক ফায়দা লুটতেই সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা

আপডেটঃ ৩:৪৭ অপরাহ্ণ | আগস্ট ২০, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক: কোনো ধর্মই দাঙ্গা হানাহানি সমর্থন করে না। রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে ও ব্যক্তিস্বার্থ হাসিল করতে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানো হয়।

শনিবার দুপুরে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির গোলটেবিল মিলনায়তনে ‘দারশা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-১৯৬২’ শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ল’ টাইমস এ মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন।

ল’ টাইমসের সম্পাদক অ্যাডভোকেট সমরেন্দ্র নাথ গোস্বামী জানান, ব্যক্তিস্বার্থে ও রাজনৈতিক ফায়দা লাভের আশায় ধর্মকে ব্যবহার করে ঘৃণা, বিদ্বেষ ও মিথ্যাচার দিয়ে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করা হয়।

প্রথম আলোর যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান খান বলেন, ‘জামায়াত এই দেশে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়িয়ে দিয়েছে। এই বিষবাষ্প থেকে এ অঞ্চলের মানুষকে মুক্ত করতে হবে। জামায়াত শুধু দেশের স্বাধীনতার বিরোধীতা করেনি। তারা বাংলাদেশ নামেরও বিরোধিতা করেছিল।’

তিনি বলেন, ‘শুধু জামায়াত নিষিদ্ধ করলে চলবে না। জামায়াতবাদকে নিষিদ্ধ করতে হবে। যেন তাদের আদর্শে কোনো দল গড়ে উঠতে না পারে।’

কলামিস্ট কাজী সিরাজ বলেন, ‘কোনো ধর্মই দাঙ্গা, হানাহানি সমর্থন করে না। ইহলৌকিক স্বার্থ হাসিলের জন্য সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা লাগানো হয়।’

বাংলাদেশ ল’টাইমস (বিএলটি) এর গবেষণা বিভাগের প্রধান গবেষক ড. সাদিকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে জাতীয় হিন্দু মহাজোটের মহাসচিব অ্যাডভোকেট গোবিন্দ্র চন্দ্র প্রামাণিক, বাংলাদেশ মহিলা ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রিয়া সাহা প্রমুখ ছিলেন।