বৃহস্পতিবার ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

সম্মেলন উদ্বোধন করলেন শেখ হাসিনা

আপডেটঃ ৫:০৫ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৩, ২০১৬

চ্যানেল সেভেন বিডি প্রতিবেদক : রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আওয়ামী লীগের দুই দিনব্যাপী ২০তম জাতীয় সম্মেলন উদ্বোধন করেছেন দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং পায়রা উড়িয়ে শনিবার (২২ অক্টোবর) সকাল ১০টা ৭ মিনিটে তিনি সম্মেলনের উদ্বোধন করেন।

সম্মেলন উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের কিছু কালচারাল অনুষ্ঠান আছে। এরপর পবিত্র ধর্মগ্রন্থ থেকে পাঠ করা হবে, শোক প্রস্তাব গ্রহণ করা হবে। এরপর আমি আমার উদ্বোধনী বক্তব্য দেব।’

এ পর্ব পরিচালনার জন্য শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক হাছান মাহমুদ ও উপ-প্রচার সম্পাদক অসীম কুমার উকিলকে দায়িত্ব দেন।

শনিবার সকাল থেকেই সম্মেলন স্থলে আসতে শুরু করেন আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর ও ডেলিগেটরা।

দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে আগত আওয়ামী লীগের নেতারা গলায় সম্মেলনের প্রবেশের কার্ড ঝুলিয়ে সারিবদ্ধভাবে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করছেন। সম্মেলস্থনলের দেড় থেকে দুই কিলোমিটার দূর থেকেই কার্ড দেখিয়ে সম্মেলনস্থলে প্রবেশ করছেন তারা। সম্মেলনে ৫২ জন বিদেশির উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।

সম্মেলনের মূল প্যান্ডেল ও মঞ্চের নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ)। এ ছাড়া আশেপাশে বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তৎপর রয়েছেন। এ কাউন্সিলকে ঘিরে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

এরআগে শনিবার সকাল ১০টায় শেখ হাসিনা সম্মেলনস্থলে উপস্থিত হন। দেশ পরিচালনাকারী দলটি আগামীর নেতৃত্ব নির্ধারণে ২০তম জাতীয় সম্মেলন করছে। রবিবার এ সম্মেলন শেষ হবে।

অনুষ্ঠানসূচি অনুযায়ী, গত সম্মেলনের পর থেকে এ পর্যন্ত মারা যাওয়া জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, সব আন্দোলন-সংগ্রামে নিহত দলীয় নেতা ও দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মৃত্যুতে শোক প্রস্তাব পাঠ করবেন আব্দুল মান্নান খান। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেবেন অভ্যর্থনা কমিটির আহ্বায়ক মোহাম্মদ নাসিম।

বিগত সম্মেলন থেকে এ পর্যন্ত দলের বিভিন্ন কার্যক্রমের ওপর করা প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। এই প্রতিবেদনকে সাধারণ সম্পাদকের রিপোর্ট বলা হয়ে থাকে। সাধারণ সম্পাদকের রিপোর্ট উপস্থাপনের পর পর্যায়ক্রমে বক্তব্য দেবেন সম্মেলনে আমন্ত্রিত বিদেশি অতিথিরা। পরে দলীয় সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা বক্তব্যের মাধ্যমে এই পর্বের সমাপ্তি হবে।

মধ্যাহ্নভোজের বিরতিতে আমন্ত্রিত অতিথিসহ সম্মেলনস্থলে উপস্থিতদের মাঝে খাবার বিতরণ করা হবে।

সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে বিভিন্ন জেলা থেকে আগত দলের নেতারা বক্তব্য দেবেন। জেলার নেতাদের বক্তব্যের শেষে সন্ধ্যায় বাংলাদেশের ইতিহাস, এতিহ্য ও আওয়ামী লীগের আন্দোলন-সংগ্রাম নিয়ে সাজানো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হবে।

আওয়ামী লীগের সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন রবিবার সকাল ১০টায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে শুধু কাউন্সিলরদের উপস্থিতিতে চলমান কমিটি বিলুপ্ত করা হবে। ৬ হাজার ৭৫০ জন কাউন্সিলরের ভোটে দলের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। এ জন্য নির্বাচন কমিশনের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন দলটির উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন-ড. মসিউর রহমান ও রাশেদ উল আলম। এরইমধ্যে কাউন্সিলরদের মধ্যাহ্নভোজের বিরতি দেওয়া হবে। খাবারের পর বিকেলে আগামী তিন বছরের জন্য আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচন করা হবে। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নাম ঘোষণা হওয়ার পর নির্বাচিত সভাপতি একটি সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে দেবেন। এর মাধ্যমেই সম্মেলনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ হবে