বৃহস্পতিবার ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও পরিবারের ভাতা বৃদ্ধি

আপডেটঃ ৩:৪৫ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৫, ২০১৬

 চ্যানেল সেভেন বিডি প্রতিবেদক : খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ছাড়াও খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের মাসিক সম্মানী ভাতা বৃদ্ধি করেছে সরকার।

এজন্য ‘খেতাবপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানী ভাতা বিতরণ নীতিমালা, ২০১৬’ এর খসড়া এবং খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারবর্গের মাসিক সম্মানী ভাতা বৃদ্ধির প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সচিবালয়ে সোমবার (২৪ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম প্রেস ব্রিফিংয়ে এ অনুমোদনের কথা জানান।

ভাতা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে কার্যকর ধরা হবে জানিয়ে শফিউল আলম বলেন, ‘খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা ১৫০ শতাংশ বেড়েছে। এছাড়া মুক্তিযোদ্ধাদের এ-শ্রেণির বেড়েছে ৫০ শতাংশ, বি-শ্রেণির ৭৫ শতাংশ, সি-শ্রেণির ৮৭ দশমিক ৫ শতাংশ, ডি-শ্রেণির ১৫৮ শতাংশ, শহীদ পরিবারের ভাতা ১০০ শতাংশ, মৃত যুদ্ধাহত পরিবারের ভাতা ৬৭ শতাংশ ও বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ পরিবারের ভাতা ২৫ শতাংশ বেড়েছে।’

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘বীরশ্রেষ্ঠ খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা মাসিক ১২ হাজার থেকে বেড়ে ৩০ হাজার টাকা, বীর উত্তমদের ভাতা ১০ হাজার থেকে বেড়ে ২৫ হাজার টাকা, বীর বিক্রমদের ভাতা ৮ হাজার থেকে বেড়ে ২০ হাজার এবং বীর প্রতীক খেতাবপ্রাপ্তদের ভাতা ৬ হাজার থেকে বেড়ে ১৫ হাজার টাকা হয়েছে।’

একই সঙ্গে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের ভাতাও বাড়ানো হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘এ-শ্রেণির (যারা ৯৬ থেকে ১০০ শতাংশ পঙ্গু) মুক্তিযোদ্ধাদের মাসিক ভাতা ৩০ হাজার থেকে বৃদ্ধি করে ৪৫ হাজার টাকা, বি-শ্রেণির (৬১ থেকে ৯৫ শতাংশ পঙ্গু) যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ২০ হাজার টাকা থেকে ৩৫ হাজার টাকা, সি-শ্রেণির (যারা ২০ থেকে ৬০ শতাংশ পঙ্গু) যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা ১৬ হাজার টাকা থেকে ৩০ হাজার টাকা, ডি-শ্রেণির (যারা ১ থেকে ১৯ শতাংশ পঙ্গু) ভাতা ৯ হাজার ৭০০ টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ২৫ হাজার টাকা করা হয়েছে।’

এছাড়া শহীদ পরিবারের সদস্যদের মাসিক ভাতা ১৫ হাজার থেকে বাড়িয়ে ৩০ হাজার টাকা, মৃত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ভাতা ১৫ হাজার টাকা থেকে ২৫ হাজার টাকা, বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ পরিবারের ভাতা ২৮ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে ৩৫ হাজার টাকা করা হয়েছে বলেও জানান শফিউল আলম।

তারামন বিবি বীরপ্রতীক ক্যাটাগরিতে ভাতা পাবেন বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘সাতজন বীরশ্রেষ্ঠ, ৬৮ জন বীর উত্তম, ১৭৫ জন বীর বিক্রম এবং ৪২৬ জন বীর প্রতীক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন।’

মুক্তিযোদ্ধা এ-শ্রেণির ২০, বি-শ্রেণির ১৪৬, সি-শ্রেণির ২ হাজার ৩২৯ জন ও ডি-শ্রেণির ২ হাজার ৫৩২ জন রয়েছেন জানিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘শহীদ পরিবার রয়েছে ২ হাজার ৫০০, যুদ্ধাহত পরিবার ৩০৩, বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার ৭টি।’

সাধারণ মুক্তিযোদ্ধাদের ভাতা বৃদ্ধির বিষয়টি বৈঠকে আলোচনায় আসেনি বলে জানান শফিউল আলম।

একজন একাধিক ভাতা পাবেন না

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘যারা (খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা) একাধিক ভাতা পান, তারা একটা পাবেন, যেটা সর্বোচ্চ। দু’টো একসঙ্গে পাবেন না।’

তিনি বলেন, ‘অনেক পর্যালোচনা করে সবার মত নিয়ে নতুন এ বিধান করা হয়েছে।’