বৃহস্পতিবার ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

ঝিনাইদহে স্কুলছাত্রীকে ছুরিকাঘাতের প্রধান আসামি লিটুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় গ্রেপ্তার! পরিবারের দাবী উল্টা!

আপডেটঃ ৩:১১ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ২৭, ২০১৬

জাহিদুর রহমান তারিক,ঝিনাইদহঃ ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নৃসিংহপুর গ্রামের গন্ডবিলাপাড়া গ্রাম বুধবার ভোরে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার আলী শেখ। ‘প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায়’ ঝিনাইদহ শহরের জমিলা খাতুন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্রী পূজাকে সোমবার সন্ধ্যায় ছুরিকাঘাত করে লিপু নামের এক বখাটে। এরপর থেকে পূজা ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

সোমবার গভীর রাতে লিটুকে প্রধান আসামি করে পাঁচজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেন ওই ছাত্রীর বাবা বিপুল কুমার মজুমদার। এরপর পুলিশ তার দুই নিকটাত্মিয় রুহুল আমিন ও রুপাকে আটক করে।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, আসামি লিটু নৃ-সিংহপুর গ্রামের একটি পরিত্যক্ত বাড়িতে অবস্থান করছে এমন সংবাদে সেখানে অভিযানে যায় পুলিশ।

“এ সময় লিটু পুলিশকে লক্ষ্য করে দুটি হাতবোমা ছুড়ে মারে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এক পর্যায়ে লিটুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়।”

এদিকে লিটুর পরিবার দাবী করছে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টায় আদর্শপাড়া থেকে পুলিশ লিটুকে গ্রেফতার করে নৃশিংহপুর গ্রামে নিয়ে তার পায়ে গুলি করে। পরদিন বুধবার ভোর ৩:৪৫ মিনিটে লিটুকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে নিয়ে আসে।

0010ঘটনাস্থল থেকে কয়েকটি ছুরি ও তিনটি হাতবোমা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান, পুলিশ কর্মকর্তা আজবাহার।

উল্লেখ্য, ঝিনাইদহে দির্ঘদিন চুটিয়ে প্রেম তারপরে লেনা দেনা অত:পর অন্য স্থানে বিবাহ দেওয়ায় পুজা (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রীর সাথে বাকবিতন্ডের এক পর্যায়ে ছুরিকাঘাত করে আহত করেছে লিটু (১৮) নামের অসহায় এক যুবক। গত সোমবার সন্ধ্যার দিকে পুজাদের নিজ বাসার ছাদের উপর এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বিপুল মজুমদার সোমবার রাতেই ৫ জনকে আসামি করে মামলা করে। পরে পুলিশ গতরাত ১ টার পরে উপশহরপাড়ার নিজবাসা থেকে লিটুর দুলাভাই বাবুর ভগ্নিপতি-রুহুল ও তার স্ত্রী রুপাকে গেফতার করে বলে প্রতিবেশিরা সাংবাদিককে জানিয়েছেন।

আহত পুজা ঝিনাইদহ শহরের উপশহর পাড়ার বিপুল মজুমদারের মেয়ে। পুজা শহরের জমিলা খাতুন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। ঘটনার সময় পূজা ছাদে বসে ছিল। এ সময় লিটু নামের এক বখাটে বাড়ির পেছনের গাছ বেয়ে উপরে উঠে তাকে ছুরকাঘাত করে।

আহত পুজার চিৎকারে পরিবারের সদস্য দৌড়ে এলে লিটু পালিয়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পূজার ভাই রিপন মজুমদার জানায়, গত একবছর হলো এলাকার বখাটে তরুণ লিটু তাকে উত্ত্যাক্ত করে আসছিল। সম্প্রতি পূজার একটি বিয়ের কথা চলছে। এরই মধ্যে লিটু ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ছুরিকাঘাত করে জখম করেছে।

ঝিনাইদহ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হরেন্দ্রনাথ সরকার জানান, বখাটে লিটুসহ তার দুই সহযোগীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

অপরদিকে, উপশহর পাড়ার জয়নাল আবেদিন সাংবাদিককে বলেন,পুজা ও লিটুকে নিয়ে কিছুদিন পুর্বে একটি ঘটনায় পাড়ার প্রভাবশালীরা পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করে।

এ ব্যাপারে পুজার বাবা বিপুল সজুমদার সাংবাদিককে বলেন, আমার মেয়ের গলার চেন ছিনতায় করতে এসে বখাটে লিটু-পুজাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।