রবিবার ২৪শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

একষট্টিতে পা দিলেন চিরঞ্জিত্‍,বাংলার এই তারকা সম্পর্কে অজানা ৬টি তথ্য!

আপডেটঃ ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ০৩, ২০১৬

বিনোদন ডেস্কঃ  চিরঞ্জিত্‍ চক্রবর্তী সেই সময়ে বাংলা সিনেমার জগতে পা রেখেছিলেন যখন টালিগঞ্জ এতটা ঝাঁ-চকচকে ছিল না। বিদেশী লোকেশনে ছবির গানের শ্যুটিং হতো না। নায়ক-নায়িকার পরনে উঠত আক্ষরিক অর্থে ‘যাত্রাপার্টি’-র পোশাক। এখনকার নায়ক-নায়িকারা ডিজাইনার ওয়্যার ছাড়া পরেন না। সেই সময় পরিচালক-প্রযোজকদের কাছে সে সব ছিল লাক্সারি।

শুধু তাই নয়, আন্তর্জাতিক পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালকেরা বাদ দিলে বাকি পরিচালকেরা ছবির এসথেটিক্স নিয়ে একেবারেই মাথা ঘামাতেন না। তাঁদের লক্ষ্য থাকত শুধু কিছু একটা গল্প কোনও মতে গান-অ্যাকশন-রোম্যান্স গুঁজে দাঁড় করিয়ে দেওয়া।
তাই চিরঞ্জিত্‍ চক্রবর্তীর হিট ছবিগুলি আজকের প্রজন্মের কাছে হাসির খোরাক হয়েই থেকে গিয়েছে।

আর অন্তরালে রয়ে গিয়েছেন অভিনেতা চিরঞ্জিত্‍ যাঁর অভিনয়ক্ষমতার নিদর্শন সাম্প্রতিক সময়ের বাংলা ছবিতে কিছুটা হলেও পেয়েছেন এই প্রজন্মের দর্শক। সারা দেশ যখন আজ শাহরুখ খানের জন্মদিন নিয়ে মত্ত, তখন টলিউড কিন্তু সেলিব্রেট করছে চিরঞ্জিত্‍-এর জন্মদিন। অতটা হাঁকডাক নেই, গ্র্যাঞ্জার নেই কিন্তু এই সময়ের নায়ক-নায়িকা-অভিনেতা-পরিচালকেরা শুভেচ্ছা জানাতে ভোলেননি একষট্টি বছরে পা দেওয়া এই অভিনেতাকে।
ওঁর বহু সাক্ষাত্‍কার বহুবার প্রকাশিত হয়েছে বিভিন্ন জায়গায় কিন্তু ওঁর সম্পর্কে এই ছ’টি তথ্য সবাই হয়তো জানেন না-
১. চিরঞ্জিত্‍ বা দীপক চক্রবর্তীর বাবা শৈল চক্রবর্তী একজন অত্যন্ত জনপ্রিয় কার্টুনিস্ট। যাঁরা আশির দশকে নিয়মিত দূরদর্শনে ছোটদের অনু্ষ্ঠান দেখতেন তাঁদের অনেকেরই মনে থাকবে শৈলবাবুর কথা। শোনা যায়, চিরঞ্জিত্‍ নিজেও খুব ভাল ছবি আঁকেন এবং একবার একটি সাক্ষাত্‍কারে বলেছিলেন, দ্বিতীয়বার জন্মালে তিনি একজন পেন্টার হয়েই জন্মাতে চান।
২. সিনেমার পাশাপাশি তিনি বহুদিন ধরে অভিনয় করেছেন কমার্শিয়াল থিয়েটারে, সত্য বন্দ্যোপাধ্যায় ও তরুণকুমারের মতো বিখ্যাত অভিনেতাদের সঙ্গে। তাঁর অত্যন্ত জনপ্রিয় নাটক ছিল ‘নাগপাশ’।
আরও পড়ুন
বাংলা টেলিভিশন জগতের দম্পতিরা, দেখুন ফোটোগ্যালারি
বাংলার নায়কদের জীবনের আসল নায়িকারা, দেখুন ফোটোগ্যালারি
বাংলা টেলিভিশনের সবচেয়ে সুন্দরী ১০ নায়িকা
৩. ছাত্র হিসেবে অত্যন্ত মেধাবী ছিলেন তিনি। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বিই কোর্সে পড়াশোনা করতেন কিন্তু ফাইনাল পরীক্ষায় অবতীর্ণ হননি।
৪. সিনেমায় আসার আগে বহুদিন তিনি দূরদর্শনে নিউজরিডার ছিলেন।
৫. টালিগঞ্জে সিনেমায় অভিনয় করার পাশাপাশি তিনি বেশ কিছু ছবি পরিচালনাও করেছেন। ‘মর্যাদা’, ‘ফিরিয়ে দাও’, ‘সংসার সংগ্রাম’, ‘কেঁচো খুঁড়তে কেউটে’, ‘ভয়’, ‘বস্তির মেয়ে রাধা’ ও ‘মানুষ-অমানুষ’ তাঁর পরিচালিত ছবি।
৬. বাংলা ছবিতে তাঁর ৩৫ বছরের অভিনয় জীবনে তিনি ১১৯টি ছবিতে কাজ করেছেন। এ ব্যাপারে শাহরুখকে ছাপিয়ে গিয়েছেন বলা যায়। কারণ বলিউড তারকার ঝুলিতে এখনও পর্যন্ত রয়েছে মোট ৮৬টি চলচ্চিত্র।