বৃহস্পতিবার ২৮শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ১৪ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

কুষ্টিয়ায় মেডিকেল ছাত্রীর দায়ের করা পর্ণগ্রাফী মামলায় ট্রাফিক ইন্সপেক্টর কারাগারে

আপডেটঃ ১০:৩২ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ০৪, ২০১৬

 হাসিবুর রহমান রুবেল :কুষ্টিয়া।:চ্যানেল সেভেন বিডি: কুষ্টিয়া, ০৩নভেম্বর ২০১৬ ॥ কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের এক ছাত্রীর দায়ের করা পর্ণোগ্রাফী মামলায় ট্রাফিক ইন্সপেক্টরকে কারাাগরে পাঠিয়েছে আদালত। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে ট্রাফিক ইন্সপেক্টর মোমিনুল ইসলাম মোমিন আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করলে বিচারক তা নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
আদালত সুত্র জানায়, ২০১২ সালে কুষ্টিয়ায় ট্রাফিক ইন্সপেক্টরের দায়িত্ব পালনকালে মোমিনুল ইসলাম কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের প্রথম বর্ষের এক ছাত্রীর সাথে অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। পরে ওই ছাত্রীকে এক হোটেলে নিয়ে গিয়ে শারীরিক সম্পর্কের দৃশ্য ভিডিও ধারন করেন। পরে ওই ছাত্রীর স্বজনদের কাছে এ ছবি পাঠিয়ে দেয় মোমিনুল। এ ঘটনার পর মেডিকেল ছাত্রী চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল তথ্যপ্রযুক্তি আইনে কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। কুষ্টিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত )রবিউল ইসলাম গত ২৯ অক্টোবর মোমিনুলকে অভিযুক্ত করে আদালতে চুড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। উচ্চ আদালত থেকে জামিনে থাকলেও চার্জশীটে অভিযুক্ত হওয়ায় জামিনে নিতে নিন্ম আদালতে হাজির হলে আদালত তা নাকচ করে দেন। মামলা দায়েরের পর থেকে চাকুরিচ্যুত মোমিনুল ইসলাম। মোমিনুল পাবনা জেলার নাজিরপুর এলাকার নজরুল ইসলামের ছেলে। মেডিকেল ছাত্রীর বাড়িও পাবনাতে।