শনিবার ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

সানারপাড় মোরতোজা আলী স্কুলে এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি আদায় প্রতিবাদে বিক্ষোভ

আপডেটঃ ১০:৫০ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ০৪, ২০১৬

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি :চ্যানেল সেভেন বিডি:সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে এস.এস.সি পরীক্ষার ফরম ফিলাপের জন্য অতিরিক্ত ফি আদায়ের প্রতিবাদে পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভ। প্রত্যেক পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে ৪ হাজার ৬‘শ টাকা করে আদায় করা হচ্ছে। এতে অভিবাবক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম ক্ষোভ। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১২ টায় স্কুল প্রাঙ্গনে বিক্ষোভ ও হড্রগুল করে পরীক্ষার্থী এবং তাদের অভিবাকরা। সরকার নির্ধারিত ফি ছাড়াও বাধ্যতামূলক কোচিং ও বিভিন্ন অজুহাতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম এবং ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তোফায়েল হোসেন যোগসাজশ করে আড়াই হাজার টাকা করে বেশি অর্থ আদায় করছে বলে অভিযোগ জানা গেছে। স্কুলের ৩৪২ জন পরীক্ষার্থীর কাছ থেকে আড়াই হাজার টাকা করে সাড়ে ৮ লাখ টাকার মিশন শুরু করেছে স্কুলটির অর্থলোভী শিক্ষক ও ম্যানেজিং কমিটির সদস্যরা।
অভিবাবক ও শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, আসছে ২০১৭ সালের এস.এস.সি পরীক্ষার্থীদের ফরম ফিলাপের জন্য সানারপাড় শেখ মোরতোজা আলী উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জনপ্রতি ৪ হাজার ৬‘শ টাকা করে আদায় করছে। অথচ সরকার নির্ধারিত ফি সর্বসাপেক্ষে ২ হাজার ১‘শ টাকা। স্কুল কর্তৃপক্ষ অতিরিক্ত নিয়ে জনপ্রতি ২ হাজার ৫‘শ টাকা। ৪ হাজার ৬‘শ টাকা করে আদায় করলেও স্কুল কর্তৃপক্ষ রিসিট দিচ্ছে ২ হাজার ৬‘শ টাকার। গতকাল বৃহস্পতিবার ফরম ফিলাপের ফি প্রদানের শেষ দিনেও টাকা কম না নেওয়ায় অভিবাবক ও শিক্ষার্থীর ফুঁসে উঠে। এক পর্যায় বেলা ১২ টায় বিক্ষোভ করে তারা। এসময় স্কুল প্রাঙ্গলে অভিবাবক ও শিক্ষার্থীরা হড্রগুল শুরু করে। পরীক্ষার্থী নাঈম সরকার, সিফাত, তারভীর আহমেদ, মাজেদুল ইসলাম, রাব্বি, ওয়ারেস ও অভিবাবক জেসমিন আক্তার অভিযোগ করে বলেন আমাদের কাছ থেকে ৪ হাজার ৬‘শ টাকা করে নিলেও রিসিট দিয়েছে ২ হাজার ৬‘শ টাকার। বাকী ২ হাজার টাকার রিসিট কেন দেওয়া হচ্ছেনা প্রশ্ন করলে বলে ওই টাকা কোচিং ফি হিসেবে নেওয়া হচ্ছে।
স্কুলের প্রধান শিক্ষক জহিরুল ইসলাম উপস্থিত না থাকায় ভারপ্রাপ্ত শিক্ষিকা দিলরুবা আক্তারের সাথে কথা হলে তিনি প্রথমে কিছু বলতে রাজি না হলেও বিভিন্ন প্রশ্নের মুখে পড়ে বলেন,তিন মাসের কোচিং ও ৩ টি টেস্ট পরীক্ষা বাবদ কিছু অতিরিক্ত টাকা আদায় করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি তোফায়েল হোসেনের সাথে অনেক চেষ্টা করেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তবে অভিবাবক প্রতিনিধি সেলিমের সাথে কথা হলে,তিনি বলেন,ফরম ফিলাপের সাথে কোচিং ফি বাবদ বাকী টাকা নেয়া হচ্ছে। তবে বিষয়টি নিয়ে অভিভাবক ও স্কুল শিক্ষার্থীদের মাঝে অসন্তুষ দেখা দিয়েছে।
অতিরিক্ত ফি আদায়ের বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার বেনজির আহমেদের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি বলেন,বোর্ড নির্ধারিত ফি ব্যতিত অতিরিক্ত অর্থ আদায় করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে ।p3