শনিবার ২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ ইং ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

মাশরাফির আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১৫ বছরে পদার্পণ

আপডেটঃ ৩:৩৫ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৮, ২০১৬

 চ্যানেল সেভেন বিডি  ডেস্ক : বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম একজন হলেন বর্তমানের ওয়ানডে ও টি২০ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। মঙ্গলবার (০৮ নভেম্বর) তার ক্যারিয়ারের ১৫ বছর পূর্ণ হলো। আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি সময় পার করেছেন তিনি। একজন অধিনায়ক ও পেসার হিসেবে দুই ক্ষেত্রেই বেশ সফলতার পরিচয় দিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেটের এই অন্যতম তারকা ক্রিকেটার।

ক্যারিয়ারের এই পুরো সময়টা বেশ উপভোগই করেছেন মাশরাফি। তার মতে, উপভোগ করেছেন বলেই দীর্ঘ এই সময়টা পাড়ি দিতে পেরেছেন সফলভাবে। অনেক প্রতিবন্ধকতা থাকা স্বত্ত্বেও কখনোই পিছু হটেননি বাংলাদেশের এই লড়াকু ক্রিকেটার।

২০০১ সাল থেকে বাংলাদেশ ক্রিকেটে আন্তর্জাতিক পথচলা শুরু মাশরাফির। দীর্ঘ এই সময়ে তিনি যেমন সাফল্য দেখেছেন, তেমনি এর উল্টো পিঠও দেখেছেন। সকল চড়াই উৎরাই হাসিমুখেই পার করেছেন তিনি।

বাংলাদেশে ক্রিকেটে মাশরাফিই একমাত্র ক্রিকেটার যিনি কিনা কয়েক প্রজন্মের সঙ্গেই খেলে চলেছেন। সাবেক ক্রিকেটার আকরাম-সুজন-পাইলট থেকে শুরু করে শরীফ-বৈশ্য-তালহা-আশরাফুলদের সঙ্গে খেলেছেন তিনি। এরপর সাকিব-তামিম-মুশফিকদের সঙ্গেও খেলেছেন। আর এখন মিরনাজ-সাব্বির-তাসকিনদের সঙ্গেও সমান তালেই খেলে চলেছেন এই তারকা ক্রিকেটার।

একজন পেসার হিসেবে যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এত দীর্ঘ সময় ধরে খেলা যায় বাংলাদেশ ক্রিকেটে মাশরাফিই তার আদর্শ উদাহরণ। তারওপর তিনি যত ইনজুরি নিয়ে খেলে চলেছেন এটাও কিন্তু বাংলাদেশ ক্রিকেটে বিরল। অনেকে তো একটু ইনজুরিতেই হতাশ হয়ে পড়ে, ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যায় তাদের। তবে মাশরাফি অনন্য। তিনি আগামীয় প্রজন্মের কাছে নিজেকে প্রেরণা হিসেবেই উত্থাপন করতে চান। তাকে দেখে যেন আগামী প্রজন্ম উৎসাহিত হয় এটাই তার কামনা।

এত চোটে না পড়লে হয়তো মাশরাফির ক্যারিয়ারটা আরও অন্যরকম হতে পারত। তবে তিনি বাংলাদেশ ক্রিকেটের যে উচ্চতায় দাঁড়িয়ে আছেন সেটাও কম নয়। শুধু একজন পেসার হিসেবেই নয় একজন অধিনায়ক হিসেবেও সমান সফল তিনি। বিশেষ করে ২০১৪ সালে নতুন করে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়ার পর দলকে যেভাবে এগিয়ে নিয়ে গেছেন তিনি, তা সত্যিই প্রশংসার। ভালো কিছু করার যে তাড়না তা এখনো তাকে তাড়া করে। তাইতো তিনি মনে করেন, যতদিন বাংলাদেশের জার্সি তার গায়ে থাকবে ততদিন তিনি চেষ্টা করে যাবেন।

মাশরাফি এখন একজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার হিসেবেই নতুন প্রজন্মের কাছে দায়িত্ব তুলে দিচ্ছেন। তাই বলে যে তিনি নিজে পিছিয়ে পড়েছেন, এমনটা মোটেও নয়। আইসিসি র‌্যাংকিংয়ের সেরা দশে উঠে এসেছেন এই পেসার। ইংল্যান্ড সিরিজে নিজের শক্তি আবারও নতুন দেখিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশের হয়ে এই ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে মাশরাফি ১৬৬টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলে উইকেট নিয়েছেন ২১৬টি। ৩৬টি টেস্ট ম্যাচে তার উইকেট সংখ্যা ৭৮। আর ক্রিকেটের ছোট সংস্করণ টি২০ ম্যাচ ৪৯টি খেলে উইকেট সংগ্রহ করেছেন ৩৮টি।