শুক্রবার ৪ঠা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

আলজেরিয়াকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মানি

আপডেটঃ ৫:৫২ অপরাহ্ণ | জুলাই ০২, ২০১৪

অবশেষে অতিরিক্ত সময়ে জার্মান মেশিনকে আর রুখতে পারেনি আলজেরিয়ার রক্ষণভাগ। অতিরিক্ত সময়ের শুরুতেই টমাস মুলারের পাস থেকে বল পেয়ে সেটা জালে জড়িয়েছেন আন্দ্রে শুরলে। ১১৯ মিনিটে জার্মানির পক্ষে আরেকটি গোল করেছেন মেসুত ওজিল। এই গোলটাও যে জার্মানির জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল, সেটা বোঝা গেছে দুই মিনিট পরেই। ১২১ মিনিটে জার্মানির জালেও বল জড়িয়ে দিয়েছেন আবদেলমুমেন জাবু। ওজিল গোলটা না করলে ১-১ গোলের সমতার পর পেনাল্টি শুটআউটের ভাগ্যপরীক্ষায় নামতে হতো জার্মানিকে।

full_1137712848_1404182789

কে ভেবেছিল এবারের এই জার্মানিকে এত ভোগাবে আলজেরিয়ার মতো দল? কিন্তু বাস্তবে তাই হলো। আলজেরিয়ানরা ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি না করতে পারলেও প্রায় কাছাকাছি চলে গিয়েছিল। আর এই জয়ে শাপমোচন হলো জার্মানির। কারণ এর আগে দু’বারের মুখোমুখি দ্বৈরথে জার্মানি দুটোতেই হেরেছে। আর ১৯৮২ সালে বিশ্বকাপের একমাত্র মোকাবেলায় ২-১ গোলে হেরে বিদায়ই নেয় বিশ্বচ্যাম্পিয়ানরা।

যদিও আজকের পুরো ম্যাচে দাপট ছিল জার্মানদেরই। কিন্তু আলজেরিয়ানরা মাঝেমধ্যে তেরেফুঁড়ে খেলতে থাকে যা ভোগায় জার্মানদের।

প্রথমার্ধে বেশ কয়েকটি শানিত আক্রমণ হলেও গোলের স্বাদ নিতে পারেনি কেউই। দ্বিতীয়ার্ধে জার্মানি আক্রমণের ধার বাড়িয়ে দিলেও গোলের দেখা পায়নি।

খেলার ৫৫ মিনিটে ফিলিপ লামের বক্সের বাইরে থেকে করা শট গোলপোস্টের উপর দিয়ে যায়। এছাড়া জার্মানি মুহুর্মুহু আক্রমণ করলেও যেন বল জাল খুঁজে পাচ্ছিল না।

এর আগে খেলা শুরুর ৯ মিনিটের মাথায় এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছিলো আলেজেরিয়ার।  ইসলাম স্লিলিমানির ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাম পায়ের জোরালো শট জার্মান গোলরক্ষক না ঠেকিয়ে দিলে বিপদ হতে পারতো।

১৪ মিনিটে জার্মানির বাস্তিয়ান শোয়েনস্টেইগারের ডি-বক্সের বাইরে থেকে বাম পায়ের শট ফিরিয়ে দেন আলজেরিয়ান গোলরক্ষক।

এরপর পাল্টা আক্রমণে ১৭ মিনিটে আলজেরিয়ান স্ট্রাইকার স্লিলিমানি হেডের মাধ্যমে গোল করে বসেন। তবে তা রেফারির চোখে অফসাইড হিসেবে ধরা পড়ে।  এ যাত্রায় জার্মানরা গোল হজমকরা থেকে বেঁচে যান।