| |

Ad

গ্রন্থমেলার চতুর্থ দিনে ১১১টি নতুন বই

আপডেটঃ ৯:২৭ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ০৫, ২০১৮

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক :বই মেলার চতুর্থ দিনে নতুন ১১১টি বই এসেছে। এর মধ্যে গল্পগ্রন্থ ৯টি, উপন্যাস ১৯টি, প্রবন্ধবিষয়ক গ্রন্থ ৮টি, কাব্যগ্রন্থ ২৬টি, গবেষণাবিষয়ক বই ৩টি, ছড়া গ্রন্থ ৪টি, শিশুসাহিত্যের বই ৫টি, জীবনীমূলক গ্রন্থ ২টি, মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক গ্রন্থ ১টি, নাটকগ্রন্থ ৪টি, বিজ্ঞান ৩টি, ভ্রমণবিষয়ক বই ৬টি, ইতিহাসবিষয়ক গ্রন্থ ৩টি, স্বাস্থ্যবিষয়ক বই ১টি, সায়েন্স ফিকশন ৫টি এবং অন্যান্য ১২টি গ্রন্থ।

রোববার বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় শহিদ রণদা প্রসাদ সাহা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রতিভা মুৎসুদ্দি। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন রমণীমোহন দেবনাথ, হেনা সুলতানা এবং আজিজুর রহমান আজিজ। সভাপতিত্ব করেন রফিকুল ইসলাম।

প্রাবন্ধিক প্রতিভা মুৎসুদ্দি বলেন, ‘রণদা প্রসাদ সাহা দানবীর এবং সমাজকর্মী হিসেবে বাংলাদেশের মানুষের কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে আছেন। শিক্ষা বিস্তারে তার প্রয়াস ব্যতিক্রমী এবং তৃণমূললগ্ন। নারী শিক্ষার প্রায়োগিকতায় তার অবদান মৌলিক এবং সুদূরবিস্তৃত। সেবামূলক প্রতিষ্ঠান স্থাপন, বিশেষত উন্নত চিকিৎসা প্রতিষ্ঠান তৈরির মধ্য দিয়ে তিনি সমাজের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য সেবার আধুনিক পরিসর নিশ্চিত করেছেন। আলোচকরা রণদা প্রসাদ সাহার জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন।

সভাপতির বক্তব্যে রফিকুল ইসলাম বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের শহিদ রণদা প্রসাদ সাহা স্বাধীন বাংলাদেশের নিত্য স্মরণীয় হয়ে থাকবেন তার মানবসেবা, শিক্ষাব্রত এবং উদার-অসাম্প্রদায়িক চিন্তার জন্য।

আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী নাদিরা বেগম, আজগর আলীম, অনিমা মুক্তি গোমেজ।