| |

Ad

খালেদাকে নির্বাচনের বাইরে রাখার ইচ্ছা নেই : আইনমন্ত্রী

আপডেটঃ ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৮

 
স্টাফ রিপোর্টার: আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, খালেদা জিয়াকে নির্বাচনের বাইরে রাখার  কোনো  চেষ্টা আমাদের  নেই। তিনি বলেন, আইনি কারণে  কেউ নির্বাচনের বাইরে থাকলে সরকারের করার কিছু  নেই। গতকাল রোববার দুপুরে বিচার প্রশাসন  প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটে বিচারকদের একটি প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠান  শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।
খালেদাকে নির্বাচনের বাইরে রাখার  চেষ্টা চলছে, বিএনপির  নেতাদের এমন অভিযোগ  প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আইন তার নিজস্ব গতিতে চলবে। আদালত ও বিচারব্যবস্থা স্বাধীন। নিরপেক্ষভাবেই আদালত এই রায় দিয়েছেন। এখন বিএনপির উচিত আইনগতভাবে এই মামলার  মোকাবিলা করা। বিএনপির  চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) আইনে মামলা হলেও আদালত দ বিধির ৪০৯ ধারায় রায় দিয়েছেন দাবি করে এই মামলা বাতিলের দাবি জানিয়েছে বিএনপি।
এ  ক্ষেত্রে আইনি প্রক্রিয়া কী হবে জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী বলেন, আমি যতটুকু মনে করি, বিএনপি এখন রায়ের কপি নিয়ে উচ্চ আদালতে আপিল করতে পারে। আপিলের পর জামিন চাইতে পারে। আপিলের পর আদালত জামিনের বিষয়টি বিবেচনা করবেন। আদালত স্বাধীনভাবেই বিষয়টি বিবেচনা করবেন।
সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক বলেন, আমরা কারো ভয়ে ভীত নই। হুমকি-ধামকিতে আইনের ব্যত্যয় ঘটবে না। খালেদা জিয়ার ব্যাপারে স্বাধীন আদালত স্বাধীনভাবেই সিদ্ধান্ত  নেবেন। পুরো বিষয়টাই এখন আদালতের এখতিয়ারে। আমাদের কিছু করার  নেই। তাকে নির্বাচনের বাইরে রাখার ইচ্ছে আমাদের  নেই। নির্বাচন একটি সাংবিধানিক প্রসেস। সাংবিধানিক প্রক্রিয়াই নির্বাচন কমিশন নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত  নেবেন।
গত ৮  ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়  ঘোষণা করেন বিশেষ আদালতের বিচারক ড.  মো. আখতারুজ্জামান। রায়ে তিনি সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে ঁপঁচ বছরের কারাদ   দেন। এ ছাড়া বিএনপির সিনিয়র ভাইস  চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ পাঁচ আসামিকে ১০ বছর করে কারাদ  এবং ২  কোটি ১০ লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়।
রায়  ঘোষণার পর পরই খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার নাজিমুদ্দিন  রোডের পুরোনো  কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।