সোমবার ৩০শে নভেম্বর, ২০২০ ইং ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

বিপর্যয়ের মূখে জামালপুরের ইসলামপুরের ঐতিহ ̈বাহী কাঁসা শিল্প

আপডেটঃ ৪:০৮ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ০৭, ২০১৪

কাঁচামালের অ ̄^াভাবিক মূল ̈ বৃদ্ধি আর পূঁজির অভাবে বংশ পরম্পরায় চলে

আসা এ পেশা ছেড়ে দিতে বাধ ̈ হচ্ছে অনেক শিল্পী পরিবার।

নানা স১⁄৪ট আর সমস ̈ায় জামালপুরের ইসলামপুরের ঐতিহ ̈বাহী কাঁসা

শিল্প পড়েছে বিপর্যয়ের মূখে। একসময় ইসলামপুরের অসংখ ̈ পরিবার জড়িয়ে

ছিল এই শিল্পের সাথে। ইসলামপুরের উন্নতমানের কাঁসার বাসন-কোসনের

কদর ছিল মোগল আর বৃটিশ রাজ পরিবারেও। কিন্তু কাঁচামালের অ ̄^াভাবিক

মূল ̈ বৃদ্ধি আর পূঁজির অভাবে বংশ পরম্পরায় চলে আসা এ পেশা ছেড়ে দিতে

বাধ ̈ হচ্ছে অনেক শিল্পী পরিবার। জামালপুর প্রতিনিধি আরিফ মাহমুদের

রিপোর্ট জানাচ্ছে ……………………………

সময়ের বিবর্তনের সাথে সেই কাঁসা শিল্পের জৌলুস এখন অনেকটাই

হারিয়ে গেছে। সীসা, মেলামাইন, প্লাস্টিক, সিরামিক আর

কাচের তৈজসপত্রের ভিড়ে এখন কাঁসার প্রচলন ততোটা না থাকলেও

সৌন্দর্য প্রিয় মানুষ আর হিন্দু সনাতন ধর্মালম্বীদের কাছে এখনো

কাঁসার তৈজসপত্রের কদর রয়েছে আগের মতই। দেশে-বিদেশে এখনো কাঁসার

বাসন-কোসনের বিপুল চাহিদা রয়েছে। তাই অনেক পরিবার বংশ পরম্পরায়

চলে আসা এই শিল্পকে আকড়ে ছিল। কিন্তু পূঁজির অভাব, কারিগর স১⁄৪ট,

কাঁচামালের দু ̄প্রাপ ̈তায় কোনভাবে টিকে থাকা ঐতিহ ̈বাহী কাঁসা

শিল্প পড়েছে বিপর্যয়ের মূখে। কাঁসা শিল্পীরা জানায় …………………… #

ভক্সপপ ঃ ১-২-৩-৪-৫ কাঁসা শিল্পী

কাঁসার কাঁচা মাল হিসেবে ব ̈বহৃত তামা আর রাং এর দু ̄প্রাপ ̈তা এই

শিল্পকে স১⁄৪টের মূখে দাঁড় করিয়েছে। তামা দেশে কমবেশী পাওয়া গেলেও

রাং আমদানী করতে হয় মালয়েশিয়া থেকে। এছাড়া বেড়েছে কয়লার দামও। আর

এসব কারণে টিকে থাকতে পারছে না কাঁসারী পরিবার ̧লো। একই কারণে

তৈরী হচ্ছেনা নতুন কারিগরও। ফলে বাপ-দাদার পেশা ছেড়ে দিতে বাধ ̈ হচ্ছে

অনেক কাঁসারী পরিবার। কমতে কমতে ইসলামপুরের কাঁসারী পল্লীতে গত

কয়েক বছর আগেও যেখানে ছিল ২৫/৩০টি কাঁসা কারখানা। কিন্তু নানা

স১⁄৪টে বন্ধের পর টিকে আছে ৬/৭টি কারখানা। ধুঁকে ধুঁকে এখনও যে

কয়টি কারখানা টিকে রয়েছে তাও রয়েছে হুমকীর মুখে।

̄’ানীয় সংসদ জানান……………………. # সিন্ক ঃ এমপি ঃ সংসদ সদস ̈

ফরিদুল হক খান দুলাল

সংশ্লিষ্টদের দাবি- সরকার সহজ শর্তে ব ̈াংক ঋণ, শুল্কমু৩ রাং আমদানীর

উদে ̈াগ নেয় তবেই ঐতিহ ̈বাহী এই শিল্পটি টিকে থাকার পাশাপাশি এই

শিল্পের পূনর্জাগরনের সম্ভাবনাও থাকবে। এমনটাই আশা করছেন কাঁসা

তানভীর আহমেদ হীরা