| |

Ad

সর্বশেষঃ

কোন্দল নিরসনে গাজীপুরে আ.লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা

আপডেটঃ ১০:৩৮ অপরাহ্ণ | মে ২১, ২০১৮

এস,এম ,মনির হোসেন জীবন : গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী মনোনয়ন নিয়ে সৃষ্ট দলীয় কোন্দল নিরসন এবং নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে সমন্বয় সভা করেছে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। কেন্দ্রীয় নেতাদের এ তৎপরতায় গাজীপুরের আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণায় নামার অপেক্ষায় রয়েছে। টঙ্গীর নোয়াগাঁও স্কুল মাঠ প্রাঙ্গণে এ সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
গাজীপুর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক, কর্নেল ফারুক খান এমপি, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ, ডা. দিপু মনি এমপি, জাহাঙ্গীর কবির নানক এমপি, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি এমপি, কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মো. মুহিবুল হাসান নওফেল, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক মো.আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, গাজীপুর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আখতারউজ্জামান, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যডভোকেট আজমত উল্লাহ খান, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী ইলিয়াস আহমেদ, থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকে যোগ দেয়া এক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, কেন্দ্রীয় নেতাদের নিয়ে সমন্বয় বৈঠকের অন্যতম দিক ছিল মূলত গাজীপুরে দলীয় কোন্দল নিরসন এবং আসন্ন সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের জয় লাভের বিভিন্ন কৌশল নিয়ে আলোচনা।
সভায় নেতারা মত প্রকাশ করেন যে, খুলনার জনগণ সরকারের উন্নয়নের কারণে ভোট দিয়েছে। সরকারের সাফল্য তৃণমূল জনগণের মাঝে পৌঁছানো হয়েছে বলে নৌকার বিজয়ে সহায়ক ভূমিকা রেখেছে। তাই বর্তমান সরকারের উন্নয়নের বার্তাকে গাজীপুরের জনগণের ঘরে ঘরে পৌঁছাতে হবে। গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের উন্নয়নের জন্য নৌকার কোনো বিকল্প নেই। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলমের ব্যক্তিগত গ্রহণযোগ্যতা এবং সারাদেশে সরকারের উন্নয়নের দিক সমূহ ভোটারদের কাছে পৌঁছানোর জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ গাজীপুরের নেতাদের নির্দেশ দেন।

খুলনা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নৌকা বিজয়ের পর উজ্জীবীত আওয়ামী লীগের নেতাদের এখন টার্গেট গাজীপুরের দিকে। কেন্দ্রীয় নেতারা মনে করেন দলীয় অভ্যন্তরীণ কোন্দল মিটিয়ে গেলে বিপুল ভোটে নৌকার বিজয় হবে।