| |

Ad

সর্বশেষঃ

সৌদির বাণিজ্য সম্মেলন বর্জন করছে মিডিয়া স্পন্সররা

আপডেটঃ ১১:২৯ অপরাহ্ণ | অক্টোবর ১৩, ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সৌদি আরবে অনুষ্ঠিতব্য একটি উচ্চপর্যায়ের ব্যবসায়ী সম্মেলনে বিশ্বের প্রথম সারির যেসব মিডিয়া স্পন্সর করতে সম্মত হয়েছিল তাদের বেশিরভাগই সম্মেলনটি থেকে সরে দাঁড়িয়েছে।তুরস্কের ইস্তাম্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাসোগি নিখোঁজ হওয়ার পর মিডিয়াগুলো এবং বেশ কয়েকজন ব্যবসায়ী, কর্মকর্তা সম্মেলনটি বর্জনের সিদ্ধান্ত নেন বলে জানায় বিভিন্ন গণমাধ্যম।

 রিয়াদে অনুষ্ঠিতব্য ‘ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট ইনিশিয়েটিভ’ সম্মেলনটি বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন প্রভাবশালী সাপ্তাহিক ইকোনমিস্টের এডিটর-ইন-চিফ জ্যানি মিনটন বেডস। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসির উপস্থাপক ও নিউইয়র্ক টাইমসের ব্যবসা বিষয়ক সাংবাদিক অ্যান্ড্রু রস সর্কিন সম্মেলনটি বর্জন করবেন জানিয়ে একটি টুইটে বলেন, ‘জামাল খাসোগি নিখোঁজ হওয়ায় পর তার হত্যার খবরে তিনি ভীষণ শঙ্কিত’।সম্মেলনের মিডিয়া স্পন্সরের ভূমিকা থেকে সরে যাওয়ারও ঘোষণা দেয় নিউ ইয়র্ক টাইমস কোম্পানি।

ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট ইনিশিয়েটিভকে দাভোসে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের সঙ্গে তুলনা করা হয়। দ্বিতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনটিতে ওয়াল স্ট্রিটের অনেক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং বহুজাতিক, প্রযুক্তি, ও অর্থনৈতিক সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের নির্বাহী কর্মকর্তাদের অংশ নেয়ার কথা ছিল।


ওয়াশিংটন পোস্টের কলাম লেখক জামাল খাসোগি ২ অক্টোবর নিখোঁজ হওয়ায় সম্মেলনটি নিয়ে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে।খাসোগি সৌদি যুবরাজ তথা রাজপরিবারের সমালোচনা করায় সৌদি পত্রিকায় তার কলাম বন্ধ করে তাকে সতর্ক করে দেয়া হয়। এরপর তিনি যুক্তরাষ্ট্রে স্বেচ্ছা নির্বাসনে গিয়ে ওয়াশিংটন পোস্ট পত্রিকায় লেখালেখি করছিলেন।

শনিবার মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন জানায়, মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গও সম্মেলনটি বর্জন করেছে।
একটি ঘোষণায় ব্লুমবার্গ জানায়, তারা আর ফিউচার ইনিশিয়েটিভের মিডিয়া পার্টনার হয়ে থাকবে না এবং ওই অঞ্চলের অন্যান্য অনুষ্ঠানের মতোই এটির খবরও তারা সংবাদ ব্যুরোর মাধ্যমে সংগ্রহ করবে।

শুক্রবার সিএনএন, সিএনবিসি ও ব্রিটিশ পত্রিকা ফিনান্সিয়াল টাইমস শুক্রবার সম্মেলনটির স্পন্সরশিপ বাতিল করার ঘোষণা দিয়েছিল।


২৩ অক্টোবর থেকে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান আয়োজিত এই সম্মেলনে তার ‘ভিশন ২০৩০’ পরিকল্পনা উত্থাপন করার কথা ছিল। তেলের ওপর সৌদির নির্ভরতা কাটাতে এই পরিকল্পনা করছেন তিনি।