মঙ্গলবার ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

সরকার আসে সরকার যায় কিন্তু এলাকার উন্নয়ন হয় না

আপডেটঃ ৯:৩৬ অপরাহ্ণ | জুলাই ১২, ২০১৪

আলতাফ হোসেন সরকার, রাজিবপুর, কুড়িগ্রাম থেকে ঃ
তাং ১১-৭-১৪
কুড়িগ্রাম ৪ আসনের এমপি জেপি’র নেতা রুহুল আমিন। সরকার
আসে সরকার যায় কিন্তু এলাকার উন্নয়ন হয় না। উন্নয়ন হয় নেতা ও তাদের সাথে থাকা
চামচাদের। বার বার এমপি জাতীয় পাটি থেকে হওয়ায় এলাকায় বলা হতো বিরোধী
দলের এমপি বাহে সেই জনে ̈ কাম হয় না। অনেক চেষ্টায় ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর
বাংলদেশের মু৩াঞ্চল রৌমারী ও রাজিবপুরে সরকার দলীয় এমপি নির্বাচিত হন আ’লীগের
জাকির হোসেন। কিন্তু ৫ বছর দাপটের সাথে এমপি গিরি করে আর কিছু না হলেও তার
পরিবার ও আ’লীগের কিছু নেতার অব ̄’ার উন্নয়ন হয়েছে সতি ̈। বা ̄Íবে রাজিবপুর ও
রৌমারী উপজেলার তেমন কোন উন্নয়ন চোখে পড়ে না। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারী জাতীয়
নির্বাচনে রানিং এমপি ও আ’লীগের প্রভাবশালী নেতা জাকির হোসেন জেপি’র
নেতা রুহুল আমিন এর কাছে ভোটযুদ্ধে পরাজয় বরণ করেন। কিন্তু ক্ষমতার দাপটে সে পরাজয়
তিনি মেনে না নিয়ে চ ̈ালেঞ্জ করে হাইকোর্টে অভিযোগ দায়ের করেন। পরে পুনরায়
রৌমারীর ২টি কেন্দেধ আবার ভোট করা হয়। সেখানেও তিনি পরাজয় বরন করেন। দু:েখর
বিষয় অনেক অত ̈াচার করার পরও তিনি হেরে গেলেন রুহুল আমিন এর সাইকেল প্রতীক
এর কাছে। এমপি নির্বাচিত হয়েই এলাকার রা ̄Íার যাতায়াতের দিকে নজর দিলেন রুহুল
আমিন। তিনি প্থমেই বালিয়ামারী টু চরলাঠিয়ালডা১⁄২া জিনজিরাম নদীর দ্বারা
বিভ৩ কালাপানি নামক খালের উপর একটি ৬শ’২০ ফুট দৈর্ঘ ̈, প্র ̄’ ২০ ফুট, এতে
হাইড রয়েছে ২২ ফুট মাটির কাচা রা ̄Íা তৈরীর নির্দেশ দিলেন রৌমারী উপজেলা প্রকল্প
বা ̄Íবায় কর্মকর্তাকে। উপজেলা প্রকল্প বা ̄Íবায়ন কর্মকর্তাকে কাজটি তৈরী করার
নিদের্শ দিলেও তিনি বিরোধী দলের এমপি হওয়ায় তাকে ̧রুত্ব দেন নি। পরে এমপি
সাহেব এলাকাবাসীর সহযোগিতায় তার নিজ উদ ̈াগে প্রায় দশ লাখ টাকার বিনিময়ে
চরলাঠিয়ালডাঙা টু বালিয়ামারী বাধ নির্মাণ করলেন।
এ বিষয়ে কুড়িগ্রাম ৪ আসনের এমপি রুহুল আমিন সাংবাদিকদের জানান- রৌমারী
উপজেলা প্রত ̈ন্ত এলাকার ২০টি গ্রামের ৩০ হাজার মানুষ ও রাজিবপুর উপজেলার ৫
গ্রামের ৫ হাজার মানুষ বালিয়ামারী টু চরলাঠিয়ালডা১⁄২া খালের উপর পানিতে কষ্ট
কইরা যাতায়াত করত। জন সাধারণের যাতায়াতের কষ্টই শুধু না, তাদের কষ্টের ক…ষি ফসল
ওই বাধ না থাকার কারণে অল্প পানিতে বন ̈া হয়ে যেত সারা এলাকায়। এতে করে খেয়ারচর,
লাঠিয়ালডাঙা, চর লাঠিয়ালডাঙা, আগলারচর,বিμিবিল,শিবিরডা১⁄২ী, নয়াপাড়া,
বালিয়ামারী,বকবান্ধা, নামাপাড়াসহ ২৫ গ্রামের হাজার হাজার একর ফসলী জমি সামান ̈
বৃষ্টিতে তলিয়ে যেত। এই বাধ দেওয়ায় এখন প্রায় এক হাজার হেক্টর জমি নতুন করে
ক…ষি আবাদের আওতায় আসবে। আর আগে এই সকল জমি পানিতে তলিয়ে থাকত ৮ মাস
ফলে কোন আবাদই করা সম্ভব হয় নাই। আর কোন ̄‹ুল কলেজের শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার
সমস ̈া হবে না। তারা বাড়ি থেকে সাইকেলে চরে সরাসরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে
পারবে। চরলাঠিয়ালডাঙা এলাকার মুরুব্বী সাত্তার দেওয়ানী এ প্রতিনিধিকে বলেন, কত
সরকার আইল গেল কেইই আমাগো এই রা ̄Íাডা করে নাই। আর রুহুল ভাই এমপি হয়াই
আমাগো এতবড় রা ̄Íা কইড়া দিছে। আমরা তার জীবনের উন্নতি কামনা করি। ঐ এলাকার
শফি মাষ্টার জানান- ছেলে মেয়েদের যাতায়াতের জন ̈ এখন সবাই ̄‹ুল গামী হবে। আর
এই খালের জন ̈ আমাদের এলাকার মেয়েদের বিয়ে হতো না। এখন আর সেই ভয় নাই। রা ̄Íার
জন ̈ ভাল মানুষ ̧লো আমাদের সাথে আত্মীয় করত না। সরজমিনে ঐ এলাকায় রা ̄Íার ছবি
তুলতে গেলে এলাকার সবাই বর্তমান এমপি রুহুল ভাইয়ের উদারতার কথা শিকার করে তাকে
সাধুবাদ জানান।