| |

Ad

জামালপুর-৪ সরিষাবাড়ী আসনে আ’লীগের একাধিক – বিএনপি‘র একক প্রার্থী মাঠে

আপডেটঃ ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ | নভেম্বর ০৫, ২০১৮

খাদেমুল বাবুল, জামালপুর: জামালপুর-৪ (সরিষাবড়ী) আসন। এ আসনে ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ২২ হাজার ১‘শ ২৭ জন। এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তর ইউরিয়া উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান যমুনা ফার্টিলাইজার কারখানা ও বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব ব্যারিস্টার আব্দুস সালাম তালুকদারের আসনের কারণে ২ দলের জন্যই এ আসনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দশম সংসদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করায় মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টিকে আসনটি ছেড়ে দেয়া হয়। কিন্তু একাদশ সংসদ নির্বাচনে আসনটি জাপাকে ছেড়ে দিতে নারাজ স্থানীয় আ’লীগ নেতারা। এই মিশন সামনে রেখে নৌকার মাঝি হতে মাঠে নেমেছেন দলের একাধিক প্রার্থী। প্রার্থীদের মধ্যে চলছে প্রভাব বিস্তার ও মাঠ দখলের লড়াই। ফলে দলের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে চরম দ্বন্দ্ব ও কোন্দল। একাধিক প্রার্থী নিয়ে আ’লীগ বেকায়দায় থাকলেও একক প্রার্থী নিয়ে ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে বিএনপি। প্রার্থী থাকলেও অনেকটা কোনঠাসা অবস্থায় রয়েছে জাতীয় পার্টি।

এ আসনে আ’লীগের প্রার্থী তালিকায় রয়েছেন-সাবেক এমপি আ’লীগের এক সময়ের গুরুত্বপূর্ণ রাজনীতিবিদ এ্যাডভোকেট মতিউর রহমান তালুকদারে ছেলে সাবেক এমপি ডা. মুরাদ হাসান, তেজগাঁও থানা আ’লীগের সভাপতি ও তেজগাঁও বিশ^বিদাল্যয় কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদ, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি ছানুয়ার হোসেন বাদশা এবং কেন্দ্রীয় স্বেছাসেবক লীগের পানি সম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুল মালেকের পুত্র প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান হেলাল। নৌকার মাঝি হতে নির্বাচনী মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন তারা। যার যার অবস্থানে সর্বশক্তি নিয়োগ করে মাঠ দখলের প্রতিযোগিতা শুরু করেছেন।

প্রার্থীরা কেউ কাউকে ছাড় দিতে নারাজ বলে জানান সাধারণ ভোটাররা। আ’লীগ প্রার্থীদের চাপাচাপি ও এলাকার উন্নয়নে আশানুরূপ অবদান রাখতে না পারায় অনেকটাই কোনঠাসা হয়ে পড়েছেন জার্তীয় পার্টির প্রার্থী বর্তমান এমপি মামুনুর রশিদ জোয়ারদার। ফলে এ বারের নির্বাচনে মনোনয়ন নিয়ে সংশয়ে রয়েছেন তিনি। এতে মহাজোট চরম বেকায়দায় রয়েছে বলে জানা গেছে। এখানে একক প্রার্থী বিএনপির প্রয়াত মহাসচিব ব্যারিস্টার আব্দুস সালাম তালুকদারের ভাতিজা জেলা বিএনপির সভাপতি ও সরিষাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান ফরিদুল কবির তালুকদার শামীম। দলীয় কোন কোন্দল না থাকায় চাচা আব্দুস সালাম তালুকদারের ইমেজ ও ব্যাক্তি জনপ্রিয়তায় অনেকটা ফুরফুরে মেজাজে রয়েছেন তিনি। তবে সাধারণ ভোটারদের অভিমত, বিএনপি নির্বাচনে অংশ নিলে সুষ্ঠ-নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আসনটি বিএনপি‘র ঘরে উঠবে। আর বিএনপি অংশ না নিলে এ আসনে নির্বাচনী চিত্র পাল্টে যেতে পারে বলে অভিমত স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের।