| |

Ad

বকশীগঞ্জে সন্তান বিক্রি করা সেই রাবেয়া‘র ঋণের টাকা পরিশোধ করলেন ইউএনও

আপডেটঃ ১:৪৬ অপরাহ্ণ | নভেম্বর ০৭, ২০১৮

খাদেমুল বাবুল- জামালপুর: জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলায় অভাবের তাড়নায় গর্ভের অনাগত সন্তান বিক্রির চেষ্টা করা সেই রাবেয়ার ঋণ পরিশোধ করেছে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম। একই সাথে তাকে মাতৃত্বকালীণ ভাতার কার্ড প্রদান করা হয়েছে। এ সময় বকশীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ একেএম মাহবুবুল আলম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের সুপারভাইজার সুশান্ত কুমার চক্রবর্তীসহ স্থানীয় সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
জানা গেছে, উপজেলার মেরুরচর ইউনিয়নের রবিয়ারচর গ্রামের দম্পত্তি জাহাঙ্গীর ও রাবিয়া বেগম ৪ সন্তান নিয়ে অভাব অনটনে দিন কাটাতে থাকে। জমিজমা না থাকায় স্থানীয় ‘আশা’ ও গ্রামীণ ব্যাংক’ থেকে সাপ্তাহিক কিস্তিতে ৭০ হাজার টাকা ঋণ নেন তারা। ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পেরে স্ত্রী সন্তান রেখে পালিয়ে গা ঢাকা দেয় জাহাঙ্গীর। নিরুপায় হয়ে ঋণ চাপ থেকে অব্যাহতি পেতে গর্ভের অনাগত সন্তান বিক্রি করার চেষ্টা করে রাবেয়া। বিষয়টি জেনে দ্রুত রাবেয়ার বাড়িতে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম। তিনি অভাবের তাড়নায় সন্তান বিক্রি বন্ধ করে তাকে তাৎক্ষণিক কিছু আর্থিক অনুদান প্রদান করেন এবং ঋণের সমুদয় টাকা ও সন্তান লালন পালনের জন্য সার্বিক সহায়তার ঘোষণা দেন। কিছুদিন পরেই রাবেয়া একটি পুত্র সন্তান জন্ম দেন। পরে স্থানীয় এনজিওদের ঋণের টাকা পরিশোধ করেন ইউএনও। সেই সাথে তার জন্য মাতৃত্বকালীন ভাতার ব্যবস্থা করা হয়।