মঙ্গলবার ২৪শে নভেম্বর, ২০২০ ইং ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

ইতিহাস গড়ে ২০১৪’র বিশ্বচ্যাম্পিয়ন জার্মানি

আপডেটঃ ৫:৩৭ পূর্বাহ্ণ | জুলাই ১৪, ২০১৪

লাতিন আমেরিকা মহাদেশ থেকে শিরোপা জিতে নেয়ার রেকর্ড ছিলো না ইউরোপের কোনো দলের। শেষ পর্যন্ত আর্জেন্টিনাকে হারিয়ে সেই রেকর্ড গড়ে শিরোপা জিতে নিল জার্মানি। ১১৩ মিনিটে করা মারিও গোটজের গোলেই শিরোপা জয় নিশ্চিত হয় ফুটবলের পাওয়ার হাউস খ্যাত জার্মানি।

প্রথমার্ধের পর দ্বিতীয়ার্ধের খেলাও শেষ হয়েছিলো গোলশূন্যভাবে। আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে জমজমাট এক ম্যাচ উপহার দিলেও নির্ধারিত ৯০ মিনিটে গোলের দেখা পাননি আর্জেন্টিনা ও জার্মানির খেলোয়াড়েরা।

দ্বিতীয়ার্ধে, ৪৭ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেয়ার দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন আর্জেন্টিনার অধিনায়ক লিওনেল মেসি। কিন্তু কাঙ্ক্ষিত লক্ষে বল পাঠাতে পারেননি। তার শট চলে যায় জার্মান গোলপোস্টের কিছুটা বাইরে দিয়ে। ৮০ মিনিটের মাথায় গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন বেনেডিক্ট হুভেডেস। কিন্তু গোলপোস্টের একদম সামনে বল পেয়েও শট নিতে পারেননি এই জার্মান ডিফেন্ডার। দুই মিনিট পরে টনি ক্রুসের একটি শটও চলে গেছে আর্জেন্টিনার গোলপোস্টের কিছুটা বাইরে দিয়ে।

এর আগে প্রথমার্ধে, ২১ মিনিটের মাথায় গোল করার দারুণ একটি সুযোগ পেয়েছিলেন গঞ্জালো হিগুয়েইন। বল ক্লিয়ার করতে গিয়ে হিগুয়েইনের পায়েই বল তুলে দিয়েছিলেন টনি ক্রুস। কিন্তু সামনে শুধু গোলরক্ষক থাকলেও কাঙ্ক্ষিত লক্ষে শট নিতে পারেননি হিগুয়েইন। ৩০ মিনিটে একবার জার্মানির জালে বলও জড়িয়ে দিয়েছিলেন আর্জেন্টিনার এই তারকা স্ট্রাইকার। কিন্তু গোলটি বাতিল হয়ে যায় অফসাইডের কারণে। ৪০ মিনিটে লিওনেল মেসিও পেয়েছিলেন গোল করার দারুণ সুযোগ। কিন্তু গোললাইনের একেবারে সামনে থেকে বল বিপদমুক্ত করেন জার্মান ডিফেন্ডার জেরোমে বোয়েটাং।

জার্মানিও বেশ কয়েকবার আতঙ্ক ছড়িয়েছে আর্জেন্টিনার রক্ষণভাগে। ১৩ মিনিটে মুলারের দারুণ এক ক্রসে মাথা ছোঁয়াতে পারেননি মিরোস্লাভ ক্লোসা। প্রথমার্ধের একেবারে শেষমুহূর্তে এমন দৃশ্য দেখা গেছে আরও একবার। ৩৭ মিনিটে আন্দ্রে শুরলের দারুণ এক শট রুখে দেন আর্জেন্টিনার গোলরক্ষক সার্জিও রোমেরো। অবশেষে সকল যল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে মেসিকে কাঁদিয়ে ২৪ বছর পর চতুর্থ বারের মতো শিরোপা ঘরে তুললো জার্মানি।