| |

Ad

বুড়িগঙ্গা নদীর কামরাঙ্গীরচরের লোহারপুল ব্যাটারিঘাট এলাকায় ৩০টি টিনের ঘর গুড়িয়ে দিয়েছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ

আপডেটঃ ৭:৫৪ পূর্বাহ্ণ | ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন ॥ রাজধানীর বুড়িগঙ্গা নদীর দুই তীর অবৈধভাবে দখল করে বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ করেছে একাধিক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠান। এসব অবৈধ স্থাপনা দখল মুক্ত করতে গত ৬ দিন যাবত উচ্ছেদ অভিযান শুরু করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)। তৃতীয় দফা অভিযানে বুড়িগঙ্গা তীরে প্রায় ১ হাজার ২০০ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ।মঙ্গলবার সকাল থেকে সেখানে তৃতীয় ধাপের মতো অভিযান চালায় (বিআইডব্লিউটিএ) কর্তৃপক্ষ ।

জানা যায়,  মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে দুপুর ৪টা পর্যন্ত বুড়িগঙ্গা নদীর দুই তীর কামরাঙ্গীরচরের লোহারপুল ব্যাটারিঘাট এলাকা থেকে দিনব্যাপী এই উচ্ছেদ অভিযান শুরু করা হয়। অভিযান চলাকালে (বিআইডব্লিউটিএ) কর্তৃপক্ষ সেখানে অবৈধভাবে গড়ে ওঠা ৩০টি টিনের ঘর বুলডোজার দিয়ে ভেঙে গুড়িয়ে দেয়।

বিআইডব্লিউটিএ এর কর্মকর্তারা বাসসকে জানান, আগে দুই দফায় মোট গত ৬ দিন অভিযান চালিয়ে বুড়িগঙ্গা তীরের প্রায় ১ হাজার ২০০ অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে ১০৭টি পাকা ভবন, ১২১টি আধাপাকা স্থাপনা, ৮০টি স-মিল, ৮টি কারখানা এবং ৮৮৩টি টিনের ঘর ও টংঘর ছিল। ঢাকা নদীবন্দরের আওতাধীন এলাকায় আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এ উচ্ছেদ অভিযান চলবে।

বিআইডব্লিউটিএ এর উপ-পরিচালক মিজানুর রহমান জানান, উচ্ছেদের পর আমরা সীমানা চিহ্নিত করে নদীর তীরে ওয়াকওয়ে নির্মাণ করব। ভিতরে গাছ লাগিয়ে দেব। যাতে কেউ পুনরায় অবৈধভাবে গড়ে জমি জবর দখল করতে না পারে।