সোমবার ২২শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ৯ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলার প্রতিবাদে গোপালগঞ্জে মানববন্ধন

আপডেটঃ ১২:৩৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৪, ২০১৯

এম শিমুল খান-গোপালগঞ্জ : কেরানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তরের কেরানীগঞ্জ প্রতিনিধি আবু জাফরকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার এবং যুগান্তরের গোপালগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি এস, এম হুমায়ূন কবীরসহ পাঁচ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে হয়রানীমূলক মামলার প্রতিবাদে গোপালগঞ্জে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার সকাল সাড়ে ১০ টায় স্থানীয় প্রেসক্লাবের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেন জেলার কর্মরত সাংবাদিক ও সচেতন সমাজ।পরে দৈনিক যুগকথার সম্পাদক ও যমুনা টেলিভিশনের স্টাফ রিপোর্টার মোজাম্মেল হোসেন মুন্নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কবি ও সাংবাদিক রবীন্দ্রনাথ অধিকারী, এনটিভির স্টাফ রিপোর্টার মাহাবুব হোসেন সারমাত, এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের জেলা প্রতিনিধি চৌধুরী হাসান মাহমুদ, দৈনিক বর্তমান গোপালগঞ্জের সম্পাদক ও বৈশাখী টেলিভিশনের জেলা প্রতিনিধি শেখ মোস্তফা জামান, ডেইলি এশিয়ান এইজের জেলা প্রতিনিধি মিজানুর রহমান মানিক, দৈনিক বাঙালি খবরের জেলা প্রতিনিধি মাহমুদ আলী কবির প্রমুখ।এছাড়া এ সময় অন্যান্যের মধ্যে কালের কন্ঠের জেলা প্রতিনিধি প্রসূন মন্ডল, দেশ টিভির সলিল বিশ্বাস মিঠ,ু একুশে টেলিভিশনের একরামুল কবীর মুক্ত, এসএ টিভির বাদল সাহা, চ্যানেল ২৪ রাজিব আহমেদ রাজু, চ্যানেল নাইনের জয়ন্ত শিরালী, সিএনএন বাংলা টিভির এম শিমুল খান, আনন্দ টিভির সেলিম রেজা, প্রথম আলোর নতুন শেখ, ভোরের ডাকের সৈয়দ আকবর হোসেন, নিউজ ২৪ এর হোসাইন আহমেদ, দেশের পত্রের ফকির মিরাজ আলী শেখ, যুগান্তরের কাশিয়ানী প্রতিনিধি লিয়াকত হোসেন লিংকন, চ্যানেল এস’র কাজী মাহমুদ, প্রতিদিনের সংবাদের এম এ জামান, দৈনিক আমার সংবাদের বিজয় মল্লিক, আজকালের খবরের মুকসুদপুর প্রতিনিধি শহিদুল ইসলাম, প্রতিদিনের সংবাদের টুঙ্গীপাড়া প্রতিনিধি সজল সরকার, মাতৃছায়ার কাজী হারুন অর রশিদ, দৈনিক বজ্রশক্তির পারভেজ লিপু, আমাদের নতুন সময়ের সাবের হোসেন, যোগাযোগ প্রতিদিনের হেমন্ত বিশ্বাস, গণ নিউজের সাইমুর রহমান বিল্লাল, আমার সংবাদের শেখ হাচান, আমার কাগজের মনির মোল্লা ও আলোড়নের কাজী কাফুসহ সাংবাদিক ও সচেতন সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় বক্তারা বলেন, দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে হলে সাংবাদিকদের স্বাধীনতায়ও হস্তক্ষেপ করা যাবে না এবং মামলা দিয়ে গ্রেফতার করে কণ্ঠরোধ করা যাবে না। হয়রানিমূলক কর্মকান্ড অবিলম্বে বন্ধ করতে হবে। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেফতার ও হয়রানি বন্ধ না হলে দুর্নীতিবাজরা উৎসাহিত হবে।বক্তারা আরো বলেন, অবিলম্বে সাংবাদিক আবু জাফরকে মুক্তি ও সকল চার সাংবাদিকদের নামে করা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় সারা দেশব্যাপী কঠোর কর্মসূচীর ডাক দেয়া হবে।নেতৃবৃন্দ নিবর্তনমূলক ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কালো ধারাগুলো বাতিলের দাবী জানিয়ে বলেন, আইনটি বাতিল করা না হলে অনুসন্ধানী সাংবাদিকতার পথ রুদ্ধ হয়ে যাবে। অন্যায়, দূর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের বিরুদ্ধে লেখার সুযোগ থাকবে না।