বৃহস্পতিবার ২৫শে এপ্রিল, ২০১৯ ইং ১২ই বৈশাখ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

ওবায়দুল কাদেরের প্রাণ বাঁচাতে গতকাল সকাল থেকে দিবানিশি পরিশ্রম করে চলেছেন-বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) করোনারি ইনটেনসিভ কেয়ার

আপডেটঃ ২:৫৩ অপরাহ্ণ | মার্চ ০৪, ২০১৯

বিশেষ সংবাদদাতা -:বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) করোনারি ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (সিআইসিইউ) চিকিৎসাধীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের প্রাণ বাঁচাতে গতকাল সকাল থেকে দিবানিশি পরিশ্রম করে চলেছেন বিএসএমএমইউয়ের ভিসি ও হাসপাতাল পরিচালক থেকে শুরু করে হৃদরোগসহ বিভিন্ন ডিসিপ্লিনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক, নার্স, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা।

গতকাল (রোববার) সকালে তীব্র শ্বাসকষ্ট ও বুকের ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে আসার পর থেকে তার সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তির পর থেকেই ব্যস্ততা শুরু হয় চিকিৎসকদের।হার্টের সমস্যা নির্ণয়ে দ্রুত এনজিওগ্রাম করে তিনটি ব্লক নির্ণয়, অস্ত্রোপচার কক্ষে দক্ষতার সাথে একটি ব্লকে রিং (ষ্ট্যান্টিং করা) পড়ানো ও অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত করোনারি ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (সিআইসিইউ) স্থানান্তর করে ভেন্টিলেশন সাপোর্ট দেয়া,সার্বক্ষণিক মনিটরে চোখ রেখে অক্সিজেন গ্রহণের মাত্রা, রক্তচাপসহ সার্বক্ষণিক শারীরিক অবস্থা দেখা, প্রয়োজনীয় ওষুধ ও ইনজেকশন দেয়াসহ নানা ব্যস্ততায় গতকাল সারাদিন ও রাত কেটেছে তাদের।যে ব্যস্ততা গতকাল শুরু হয়েছিল সে ব্যস্ততা আজ (সোমবার) দুপুর পর্য়ন্ত অব্যাহত রয়েছে।

জানা গেছে কাদেরের চিকিৎসায় সকলেই খোঁজখবর রাখলেও মূলত হৃদরোগবিভাগের ডজনখানেক সিনিয়র ও জুনিয়র প্রশিক্ষিত চিকিৎসক-নার্স অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন।শুধু বিএসএমএমইউয়ের চিকিৎসা নিয়েই নয়, চিকিৎসকদের একাংশকে রাত-বিরাতে দেশ-বিদেশের বিশেষজ্ঞ, বিশেষত সিঙ্গাপুর মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতাল ও ভারতের প্রখ্যাত হৃদরোগ দেবী শেঠির সাথে যোগাযোগ করে চিকিৎসার হালনাগাদ তথ্যউপাত্ত পাঠানোসহ সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।

শুধু তাই নয়, ওবায়দুল কাদেরের চিকিৎসাই নয়, তার অসুস্থতার খবর পেয়ে হাসপাতালে ছুটে আসা রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীসহ বর্তমান ও সাবেক ভিআইপি মন্ত্রী, সাংসদ, রাজনীতিবিদ ও আওয়ামী লীগ দলীয় হাজারো নেতাকর্মীর ভিড়ও সামাল দিতে হয়েছে তাদের।