রবিবার ২৬শে মে, ২০১৯ ইং ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

৪০ তম বিসিএস পরীক্ষা নকলমুক্ত করতে সরকারের বিশেষ পদক্ষেপ

আপডেটঃ ২:৩৪ অপরাহ্ণ | এপ্রিল ২২, ২০১৯

বিশেষ সংবাদদাতা-:: আগামী ৩ মে (শুক্রবার) অনুষ্ঠিত হবে ৪০তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি (এমসিকিউ) পরীক্ষা। ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য বিভাগীয় শহরে একযোগে অনুষ্ঠিত হবে এই পরীক্ষা। ঢাকার ১৬৫টি কেন্দ্রে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত একযোগে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। জানা গেছে, পরীক্ষা নিরবচ্ছিন্ন ও নকলমুক্ত করতে ১৬৫ কেন্দ্র পরিদর্শনে ১৭৫ জন ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দিয়েছে বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন (বিপিএসসি)।সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ৪০তম বিসিএস পরীক্ষা ঢাকার ১৬৫টি কেন্দ্রে একসাথে অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে কেন্দ্রের ভেতরে ও বাইরের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার্থে প্রত্যেক কেন্দ্রে একজন করে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটসহ পিএসসির কন্ট্রোল রুমে অতিরিক্ত আরও ১০ জন বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডার কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করবেন।

পিএসসি সূত্র জানিয়েছে, একটি পরীক্ষা শুরুর আগে নানা ধরনের চ্যালেঞ্জ থাকে। প্রশ্নপত্র ফাঁস, বিশৃঙ্খলাসহ নানা ধরনের বিষয় থাকে। এগুলো নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। তাই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বিশেষ সভা ডাকা হয়েছে।

পিএসসির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাদিক বলেন, ৪০তম বিসিএসে রেকর্ডসংখ্যক প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন। তাই কীভাবে পরীক্ষাটি সুষ্ঠুভাবে নেওয়ার জন্য আমরা কাজ করছি। বুধবার (২৪ এপ্রিল) আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বিশেষ সভা ডাকা হয়েছে।

ঢাকার কেন্দ্রসমূহে নিয়োগকৃত এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেটরা আগামী ২৪ এপ্রিল বিকেল ৩টায় বিশেষ সভায় উপস্থিত হবেন। এছাড়া পরীক্ষার দিন দায়িত্ব পালন শেষে বিকেল সাড়ে ৪টায় পিএসসিতে তাদের রিপোর্ট করতে হবে। নিয়োগপ্রাপ্ত ম্যাজিস্ট্রেটরা বর্তমানে রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি দফতরে নিয়োজিত।

উল্লেখ্য, ৪০তম বিসিএসে মোট ৪ লাখ ১২ হাজার ৫৩২ জন প্রার্থী আবেদন করেছেন। পিএসসিতে বিপুলসংখ্যক পরীক্ষার্থীর আবেদনের রেকর্ডও এটি। ৪০তম বিসিএসের মাধ্যমে মোট ১ হাজার ৯০৩ জন ক্যাডার নিয়োগ দেয়া হবে। ক্যাডার অনুসারে প্রশাসনে ২০০, পুলিশে ৭২, পররাষ্ট্রে ২৫, করে ২৪, শুল্ক আবগারিতে ৩২ ও শিক্ষা ক্যাডারে প্রায় ৮০০ জন নিয়োগ দেয়ার কথা রয়েছে। তবে এ সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে জানা গেছে।