বৃহস্পতিবার ২৩শে মে, ২০১৯ ইং ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

টঙ্গীতে ৪ বছরের শিশু ধর্ষণ চেষ্টায় ঘটনায় ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী মিদুল র‌্যাবের হাতে গ্রেফতার

আপডেটঃ ৫:৪৯ পূর্বাহ্ণ | মে ১৮, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন ॥ গাজীপুরের টঙ্গীতে ৪ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে ৮ম শ্রেনীর শিক্ষার্থী ওমর ফারুক মৃদুল (১৫) নামে এক কিশোরকে আটক করেছে এলিট ফোর্স র‌্যাব-১ এর একটি দল।বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর দক্ষিণখান এলাকা আব্দুল্লাহপুর রেলগেইটস্থ এলাকা থেকে তাকে গোপনে অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে র‌্যাব-১ এর একটি দল।

র‌্যাপিড এ্যাকিশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১) এর কমান্ডিং অফিসার (সিও) লেফটেন্ট্যান্ট কর্ণেল সার ওয়ার বিন কাশেম আজ বৃহস্পতিবার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।র‍্যাব-১ এর স্কোয়াড কমান্ডার (এএসপি) মো. সালাউদ্দিন বৃহস্পতিবার বিষয়টি স্বীকার করে তিনি জানান, গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন গোপালপুর, সাতরং, ওয়াবদা গেইট সংলগ্ন নানা গিয়াস উদ্দিনের বাড়িতে গত ২৩ এপ্রিল ২০১৯ ইং তারিখে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ৪ বছরের শিশু’কে চকলেট খাওয়ানোর কথা বলে তার নিজ বসতঘরে নিয়ে যায়।

ধৃত আসামী মিদুৃল পরবর্তীতে ভিকটিমকে কৌশলে পুতুল খেলার কথা বলে খাটে শুয়াইয়া মুখ চেপে ধরে তার পরনে থাকা পায়জামা এবং গেঞ্জি খুলিয়া জোরপূর্বক ধর্ষণ করার চেষ্টা করে। পরবর্তীতে ভিকটিম তার মুখ হতে কৌশলে আসামীর হাত সরিয়ে চিৎকার করলে ভিকটিমের চাচা মোঃ শহিদুল ইসলাম মিলন (২৬) আসামীর বসতঘরে দরজায় ধাক্কাধাক্কা করিলে আসামী দরজা খুলে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে ভিকটিমের বাবা মোঃ রফিকুল ইসলাম মিঠুন (৩০) মেয়ের শারিরীক অবস্থা খারাপ দেখে নিকটস্থ টঙ্গী সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসা করায়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা রুজু করেন।

যার নং-৬৪, তারিখ- ২৪/০৪/২০১৯, ধারা- ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন (সংশোধিত ২০০৩) এর ৯(৪)(খ)। উক্ত ঘটনার পর এলিট ফোর্স র‌্যাব-১ এর সদস্যরা বুধবার দিবাগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর দক্ষিণখানের আব্দুল্লাহপুর রেলগেইট এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ধর্ষণের চেষ্টাকারী মোঃ ওমর ফার¦ক মিদুল (১৫), পিতা- মোঃ নুর¦ল ইসলাম ওরফে নুর¦, মাতা- মোসাঃ মুক্তা, সাং- আব্দুল্লাহপুর, সিকদারবাড়ি, রেলগেইট সংলগ্ন, থানা- দক্ষিণখান, ডিএমপি, ঢাকা, বর্তমান ঠিকানা- সাং- গোপালপুর, সাতরং, ওয়বদা গেইট সংলগ্ন, গিয়াস উদ্দিনের বাড়ি, থানা- টঙ্গী পূর্ব, জিএমপি, গাজীপুর’কে গ্রেফতার করে। সে গ্রেফতার এড়ানোর জন্য বর্ণিত এলাকায় আত্মগোপন করেছিল বলে জানায়।

র‌্যাব-১ এর এএসপি সালা উদ্দিন আজ বলেন, ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী মৃদুল ঘটনার দিন সকালে শিশুটিকে চকলেট খাওয়ানোর কথা বলে নিজ ঘরে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে পুতুল খেলার কথা বলে ধর্ষণের চেষ্টা করে। চিৎকারে শিশুটির চাচা দরজায় ধাক্কাধাক্কি করলে অভিযুক্ত মৃদুল দরজা খুলে পালিয়ে যায়। এরপর শিশুটিকে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়।

গ্রেফতারকৃত মিদুল জিজ্ঞাসাবাদে সে র‌্যাবকে জানায় যে, সে নিশাত ল্যাবরেটরী স্কুল, টঙ্গীতে অষ্টম শ্রেণীতে লেখাপড়া করে। মিদুল ইতিপূর্বেও অনেকবার তাকে বিভিন্ন ধরণের খেলনার লোভ দেখিয়ে তার স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দেয়। ভিকটিম তার মাকে জানায় যে, মা মৃদুল ভাইয়া আমাকে খেলার কথা বলে তার ঘরে নিয়ে গিয়ে তার শরীরে বিভিন্ন গোপন স্থানে হাত দিয়েছে। উপরোক্ত ঘটনা সম্পর্কে ধৃত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করিলে ধৃত আসামী মোঃ ওমর ফারুক মিদুল তার সত্যতা স্বীকার করে। উপরোক্ত বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।