মঙ্গলবার ২৪শে জুন, ২০১৯ ইং ১১ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগের সভাপতি প্রার্থী তৃণমূল পর্যায়ের হেভিওয়েট নেতা বদরুল আলম পাশা প্রচারনায় এগিয়ে…………

আপডেটঃ ৫:২২ অপরাহ্ণ | জুন ১৪, ২০১৯

এস. এম. মনির হোসেন জীবন ॥ গাজীপুর মহানগরী -জেলা ও গাজীপুর সিটি করপোরেশন (জিসিসি) বিভিন্ন থানা, ওয়ার্ড এবং ইউনিট পর্যায়ে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও যুবলীগের কমিটি গঠন কার্যক্রম শুরু হয়েছে। তারই অংশ হিসেবে গাজীপুর মহানগরী টঙ্গী পশ্চিম, টঙ্গী পূর্ব ও গাঁছা থানা সহ বিভিন্ন থানা এবং আংশিক কিছু ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ-যুবলীগের কমিটি খুব শিগগিরই ঘোষনা হতে যাচেছ। ইতি মধ্যে কিছু ওয়ার্ডে নতুন কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে। বাকী গুলো পর্যায়ক্রমে করা হবে আওয়ামীরীগ-যুবলীগের দলীয় ও অন্যান্য বিশ্বস্থ তথ্য সুত্রে জানা গেছে।

 বৃহস্পতিবার দুপুরে অনলাইন নিউজ পোর্টাল ’’ চ্যানেল সেভেন বিডি ডটকম’’ এর সাথে একান্ত স্বাক্ষাতকারে গাজীপুরের টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগের সভাপতি প্রার্থী ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম পাশা এসব কথা বলেন।এদিকে, গাজীপুর মহানগরীতে সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে দীর্ষ দিন পর এই প্রথম বারের মতো টঙ্গী পশ্চিম থানা প্রতিষ্ঠার পর যুবলীগের আগামী দিনের একটি শক্তিশালী কমিটি গঠিত হতে যাচেছ। টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগের কমিটিতে সম্ভাব্য সভাপতি প্রার্থী হিসেবে এলাকায় ব্যাপক গনসংযোগ,প্রচার-প্রচারনা ও দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচিতে মাঠ পর্যায়ে জনমত জরিপে এগিয়ে আছেন প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা এবং আন্দোলন সংগ্রামের রাজপথের লড়াকু মুজিব সৈনিক যুবলীগ নেতা মো: বদরুল আলম পাশা।

দলীয় সুত্রে জানা গেছে, গাজীপুরের টঙ্গীর মুদাফা গ্রামের স্থায়ী বাসিন্দা মো: বদরুল আলম পাশা ছাত্র জীবন থেকে আওয়ামী রাজনীতির সাথে ওঁৎপ্রত ভাবে জড়িত। যুবলীগ নেতা বদরুল আলম পাশার দাদা আব্দুল হাকিম মাষ্টার ১৯৭০ সালের নির্বাচনে সাবেক এমএলএ ছিলেন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৭২ সালে তার বাড়িতে একটি পথসভায় অবস্থান করেন। তার বাবা মোহাম্মদ আলী মেম্বার সাবেক টঙ্গী ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের মেম্বার ছিলেন। বঙ্গবন্ধুর রাজনীতি ও জননেত্রী শেখ হাসিনার রাজনীতির সাথে পুরো পরিবার আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। তার বড় ভাই ফারুক আহমেদ মাষ্টার আমৃত্যু ভাওয়াল বীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টারের প্রতিষ্ঠিত মুদাফা হাজী সৈয়দ আলী উচচ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ছিলেন ।

টঙ্গীর মুদাফা গ্রামের বাসিন্দাররা ও টঙ্গী পশ্চিম থানার যুবলীগ নেতারা জানান, মাঠ পর্যায়ের তৃণমূল যুবলীগ নেতা বদরুল আলম পাশা ছাত্রজীবন থেকেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে অঙ্গাঅঙ্গীভাবে জড়িত ছিলেন। ১৯৯৪ সালে তিনি টঙ্গী থানা ছাত্রলীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক হিসেবে সুনামের সহিত দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৩ সালে টঙ্গী পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের যুবলীগের সভাপতি ছিলেন।

২০০৬ সালে গাজীপুর জেলা যুবলীগের স্বাস্থ্য ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৫ সালে গাজীপুর মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির স্বনামধন্য সদস্য হিসেবে ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেন এবং যুব সমাজকে ঐক্যবদ্ধ করে আওয়ামী যুবলীগের সাথে সম্পৃক্ত করেন। ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামীলীগের নেতারা জানান, ১৯৯৬ সালে এড. আজমত উল্লা খানের টঙ্গী পৌরসভার মডেল নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ১নং ওয়ার্ডের গণসংযোগ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বদরুল আলম পাশা সাথে ছিলেন। টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগকে নতুন কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে সম্ভাব্য সভাপতি হেভিওয়েট প্রার্থী হিসেবে প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম পাশাই একমাত্র যোগ্য হিসেবে আছে বলে যুবলীগের দলীয়নেতা কর্মীরা মনে করছেন।

পাশার নেতৃত্বেই আগামী দিনে সুন্দর ও মনোরম পরিবেশে দলীয় যুবলীগ নেতাকর্মীদেরকে ঐক্যবদ্ধ করা সম্ভব। তাই আগামী দিনে টঙ্গী থানা যুবলীগকে ঐক্যবদ্ধ করার লক্ষ্যে সম্ভাব্য যুবলীগের সভাপতি প্রার্থী হিসেবে এগিয়ে আছেন জনপ্রিয় যুবলীগ নেতা বদরুল আলম পাশা। এমনটিই আশা করছে টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগ নেতাকর্মী ও সংশ্লিষ্টরা। যুবলীগের মাঠ পর্যায়ের তৃণমূল পর্যায়ে পরীক্ষিত নেতারা এমনটা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তুলে ধরে জনপ্রিয় যুবলীগ নেতা বদরুল আলম পাশা বলেন, আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন বিশ্বনেত্রী । তার সুযোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচেছ। দলের জন্য নিজের জীবন বাজী রেখে হলেও আগামী দিনে টঙ্গী পশ্চিম থানা বাসির সর্বস্তরের মানুষের পাশে থেকে জনগনের কল্যাণের জন্য সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করতে চাই। সমাজের এলাকার মানুষের সুখ, দু:খে পাশে থেকে তাদের সেবা করতে চাই। এই হোক আমার আগামী দিনে শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অঙ্গীকার।টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগের সভাপতি প্রার্থী পাশা আরও বলেন, দেশ উন্নয়নে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। এলাকায়যে পরিমান উন্নয়ন হয়েছে অতীতে আর কোন সরকারের আমলে সেটি হয়নি। বর্তমান সরকার হলো উন্নয়নের সরকার। জাতির জনকের কণ্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচেছ, এগিয়ে যাবে। সে কারণে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ মো: জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি) কোন বিকল্প নেই।

বর্তমান সরকারের মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসীবিরোধী কর্মকান্ড প্রশংসা উল্লেখ করে বদরুল আলম পাশা বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সারা দেশব্যাপী মাদকবিরোধী অভিযান শুরু করা হয়েছে। সত্যিকার অর্থে এটি একটি ভাল উদ্যোগ। আমি টঙ্গী পশ্চিম থানা যুব লীগের পক্ষ থেকে জাতির জনকের সুযোগ্য কন্যা দেশরতœ শেখ হাসিনাকে আন্তরিক ভাবে ধন্যবাদ জানাচিছ।

তিনি আরও বলেন, সন্ত্রাস, জঙ্গী, জঙ্গীবাদ ও মাদক দেশও জাতির চিরশত্রু। বর্তমান সরকার কঠোর হস্তে এগুলো দমন করার জন্য নিরলস ভাবে রাত দিন কাজ করে যাচেছন। আগামী দিনে টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগকে সঙসংগঠিত করে সকলকে সাথে নিয়ে কাজ করতে চাই। সবাইকে পাশে রাখতে চাই। সকলে মিলে মিলে এলাকার উন্নয়নের জন্য কাজ ও সেবা করতে চাই।

দেশের পদ্মাসেতু, ফ্লাইওভার ও মেট্রোরেল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশীয় টাকা দিয়ে সরকার পদ্মা সেতু নির্মান করছেন। বিদেশী অর্থায়নে নয়। এটা সত্যিকারে গোটা বাঙ্গালী জাতির গর্ব। এছাড়া ফ্লাইওভার ও মেট্রোরেল তৈরী করছেন সরকার। অতীতে আর কোন সরকার তা করতে পারেনি।
এক প্রশ্নের জবাবে বদরুল আলম পাশা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার আদর্শকে মনেপ্রাণে ভালবেসে আমার পরিবারের সকলে জন্মলগ্ন থেকে আওয়ামীলীগ কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছি। আমার পরিবারের সকলে আওয়ামীলীগ রাজনৈতিক সংগঠনের সাথে জড়িত ।

তিনি আরও জানান মাদক, সন্ত্রান, চাঁদাবাজ, ছিনতাইকারী, জঙ্গী, জঙ্গীবাদ সহ অপরাধমূলক কর্মকান্ড বন্ধ করার জন্য আমি একমত।
অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা পাশা বলেন, বিএনপি-জামায়াত সরকারের শাসনামলে রাজনীতি করতে গিয়ে আমার বিরদ্বে ২ থেকে ৩টি মামলা দায়ের করা হয়েছিল। বিএনপি-জামায়াত শিবিরের সন্ত্রাসী বাহিনী দ্বারা অনেক সময় হামলা ও অপহনের শিকার হয়েছি এবং অনেক সময় বাড়ি থকে অন্যত্র পালিয়ে ছিলাম।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি’র শাসনামলে প্রয়াত সংসদ সদস্য ও ভাওয়ালবীর, প্রখ্যাত শ্রমিকনেতা শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার হত্যাকান্ডের সময়ে টঙ্গীতে আওয়ামীলীগ নেতারা আন্দোলন করার সময়ে টঙ্গী বাজার আনারকলি সিনেমা হল সংলগ্ন বিএনপি অফিস, চেরাগআলী কাদেরিয়া মিলস সংলগ্ন বিএনপি অফিস ঘর ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ বিষয়ে আমাকে জড়িয়ে ওই মামলায় আসামী করা হয়।

এক প্রশ্নের জবাবে বদরুল আলম পাশা বলেন, বর্তমান ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও মহিলা লীগ সহ সহযোগী অংগ সংগঠনের নেতাকর্মীরা আমার সাথে আছে। সব দলীয় কর্মসূচিতে তার সুযোগ্য ও সঠিক নেতৃত্বেও কারণে আমাদের আগামী দিনের পথচলা ও অনুপ্রেরনা যোগাবে।এদিকে, গাজীপুরের যুব সমাজের অহংকার যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ¦ মো: জাহিদ আহসান রাসেল (এমপি), গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি, এড. আজমত উল্লা খান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ এড. জাহাঙ্গীর আলম, গাজীপুর মহানগর যুবলীগের আহ্বায়ক কামরুল আহসান সরকার রাসেল, যুগ্ম আহ্বায়ক-১ সাইফুল ইসলাম মনে করেন, টঙ্গী পশ্চিম থানা যুবলীগের কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে বিগত দিনের রাজনৈতিক দলীয় কর্মকান্ড, তৃণমূল ও মাঠ পর্যায়ের দলের পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের যাচাই বাচাই করে মূল্যায়ন করা হবে।