বুধবার ১৬ই অক্টোবর, ২০১৯ ইং ১লা কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

টঙ্গীতে মাদ্রাসারছাত্র সাইফ হত্যা মামলার প্রধান আসামী গ্রেফতার—–

আপডেটঃ ১১:০২ পূর্বাহ্ণ | জুন ২৫, ২০১৯

টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধি – গাজীপুরের টঙ্গীতে “নিউ মা ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ’ নামক একটি লেদ মেশিনের দোকানে পাওনা টাকার জেরে সাইফ (১৪)নামে এক মাদ্রাসাছাত্রকে হত্যা করার প্রধান আসামি মো.হারুন অর রশিদ (৪৫) কে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। গত রবিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে মাছিমপুর ঘাপরিয়া মাদ্রাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। নিহতের মা শহিদা বেগম বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি হত্যা মামলা রুজু করে। যাহার নাম্বর-৫৯ তারিখ ২২/০৬/২০১৯ ইং, ধারা ৩০২/৩৪ দঃ বিঃ। গ্রফতারকৃত আসামি হারুন গাজীপুরের টঙ্গীর মাছিমপুর এলাকার মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে।

র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল সারোয়ার বিন কাশেম জানান, নিহত সাইফুর রহমানের পিতা আব্দুল কাইয়ুম মাসিক পনের হাজার টাকায় হারুন অর রশিদের কাছ থেকে একটি দোকান ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ওয়ার্কসপ পরিচালনা করে অসাছিল। প্রতি মাসের ১০ তারিখের মধ্যে পূর্ববর্তী মাসের ভাড়া পরিশোধ করার কথা থাকলেও সাইফের পিতা গত মে মাসের ভাড়া সময়মত পরিশোধ করে নাই। এ নিয়ে একাধিকবার তাগাদা দিলেও ভাড়া পরিশোধে ব্যর্থ হয়।

এর প্রেক্ষিতে গত ২২ জুন শনিবার হারুন দোকানে গিয়ে স্যাটর বন্ধ করে দিয়ে ভাড়া না দেওয়া পর্যন্ত দোকান বন্ধ রাখতে নির্দেশ দিয়ে চলে যায়। এর কিছুক্ষন পর হারুন তার ম্যানেজারের মাধ্যমে জানতে পারে যে দোকানটি পূনরায় খোলা হয়েছে। এতে রাগান্মিত হয়ে বেশ কয়েকজন লোক নিয়ে সে দোকানে আসে এবং আব্দুল কাইয়ুমকে না পেয়ে তারা তার ছেলের উপর চড়াও হয়। একপর্যায়ে সাইফকে মারধর করে দোকানের স্যাটার বন্ধ করে চলে যায়। পরবর্তীতে বন্ধ দোকানটির ভেতর চলন্ত লেদ মেশিনের শব্দ পেয়ে পার্শ্ববর্তী দোকান ও স্থানীয় লোকজন ভিতরে প্রবেশ করলে সাইফকে লেদ মেশিনের সাথে প্যাঁচানো অবস্থায় দেখে।

গুরুতর আহত অবস্থায় সাইফকে টঙ্গী সরকারী হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এঘনায় সাইফের পিতা বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। র‌্যাবের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামী হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন।