শুক্রবার ১৯শে জুলাই, ২০১৯ ইং ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

টঙ্গীতে স্কুলছাত্র শুভ হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামী পাপ্পু সহ ৪জনকে আটক করেছে র‌্যাব……….

আপডেটঃ ১১:৪৬ অপরাহ্ণ | জুলাই ১২, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন : রাজধানীর অদূরে গাজীপুরের টঙ্গীতে নবম শ্রেণির ছাত্র শুভ আহমেদ (১৬) হত্যার প্রধান আসামিসহ কিশোর গ্যাং গ্রুপের চার সদস্যকে আটক করেছে এলিট ফোর্স র‌্যাব-১। এসময় র‌্যাব সদস্যরা আটককৃতদের কাছ থেকে হত্যার কাজে ব্যবহৃত ধারালো সুইচ গিয়ার চাকু উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতরা হলেন- মৃদুল হাসান পাপ্পু ওরফে পাপ্পু খাঁন (১৭), সাব্বির আহমেদ (১৬)), রাব্বু হোসেন রিয়াদ (১৭) ও নূর মোহাম্মদ রনি (১৬)।
বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে টঙ্গী পূর্ব থানার পাগাড় এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করে।
র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের সিনিয়র সহকারী পরিচালক সিনিয়র এএসপি মো: মিজানুর রহমান ভুঁইয়া আজ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
এবিষয়ে আজ শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় রাজধানীর উত্তরায় র‌্যাব-১ এর কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানান, গত ৭ জুলাই ২০১৯ তারিখে গাজীপুর মহানগরীর টঙ্গী পূর্ব থানাধীন বিসিক ফকির মার্কেট পাগার মদিনা পাড়া এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শুভ আহমেদ (১৬) নামক একজন স্কুল ছাত্রকে বুকে, পিঠে ও মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি আঘাত করে হত্যা করা হয়। নিহত শুভ আহমেদ পিতা-মাতার একমাত্র সন্তান। সে স্থানীয় পাগাড় ফিউচার ম্যাপ স্কুলে ৯ম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত। গত ৭ জুলাই ৯টার দিকে চুল কাটার জন্য সেলুনের উদ্দেশে বাসা থেকে বের হয় সে। ওই দিন রাত ১২টার দিকে টঙ্গী বিসিকের শাখা রস্তাায় শুভকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। সে বিসিক ফকির মার্কেট এলাকার রাজু মিয়ার ছেলে রাত ২টার দিকে মা শুভর মোবাইলে ফোন করলে পুলিশ ফোন ধরে এবং তার নিহতের খবর দেয়। তার মাথায় ধারালো অস্ত্র ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন ছিল। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি মোবাইল উদ্ধার করে।
এদিকে, র‌্যাব-১ এর একটি দল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৮টা থেকে টঙ্গী পূর্ব থানার পাগাড় এলাকায় অভিযান চালিয়ে টঙ্গীতে চাঞ্জল্যকর নবম শ্রেণির ছাত্র শুভ আহমেদ (১৬) হত্যার প্রধান আসামি মৃদুল হাসান পাপ্পু ওরফে পাপ্পু খাঁন (১৭), তার সহযোগী সাব্বির আহমেদ (১৬), ) রাব্বু হোসেন রিয়াদ (১৭) ও নূর মোহাম্মদ রনি সহ ৪জনকে আটক করে। এসময় র‌্যাব সদস্যরা হত্যার কাজে ব্যবহৃত ধারালো সুইচ গিয়ার চাকু উদ্ধার করা হয়েছে।
এদিকে, টঙ্গী পূর্ব থানা পুলিশ হত্যার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল হতে লাশ ময়না তদন্তের জন্য শহীদ তাজউদ্দিন আহম্মেদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। লাশ উদ্ধারের খবর পেয়ে ভিকটিমের পরিবার মর্গে গিয়ে লাশ সনাক্ত করে। বর্ণিত হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহতের পিতা রাজু আহম্মেদ বাদী হয়ে টঙ্গী পূর্ব থানায় মৃদুল হাসান পাপ্পু (১৭) এবং অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা রুজু করে, যার নম্বর-২০ তারিখ ০৮/০৭/২০১৯ ইং, ধারা ৩০২/৩৪ দঃ বিঃ।
র‌্যাব সংবাদ সমম্মেলনে সাংবাদিকদেরকে জানান, একটি মেয়েকে নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে তাদের মধ্যে ঝগড়া চলছিল বলে ধৃত আসামীরা র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছে। পাপ্পুর কথামতো এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের উদ্দেশ্যে এই হত্যাকান্ডে অংশগ্রহণ করেছিল তারা। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত আসামীরা বর্ণিত হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে।
টঙ্গী পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: কামাল হোসেন আজ জানান, নিহতের বাবা রাজু আহমেদ সোমবার রাতে মৃদুল হাসান পাপ্পু নামে এক কিশোরকে চিহ্নিত করে অজ্ঞাত আরও কমপক্ষে পাঁচ জনকে অভিযুক্ত করে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।