মঙ্গলবার ২৮শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং ১৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

এ দেশে কেউ সংখ্যালঘু নয়, সব ধর্মের লোকের সমান অধিকার নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা …. গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী- শ. ম. রেজাউল করিম..

আপডেটঃ ৪:২৩ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯

হাসান মামুন- পিরোজপুর প্রতিনিধি-:চ্যানেল সেভেন – : পিরোজপুর গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ. ম রেজাউল করিম এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের সকল ধর্মের মানুষের জন্য একটা স্বর্ণালী অধ্যায় শেখ হাসিনার শাসনামল। রাজনীতিতে, সমাজে, প্রশাসনে, ভালবাসায়, আন্তরিকতায় শেখ হাসিনার আমল একটা সোনালী অধ্যায়। শেখ হাসিনা না থাকলে এই আমল আর থাকবে না। অন্য ধর্মাবলম্বীদের অধিকার নিশ্চিত করা ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের অনিবার্য দায়িত্ব। একটি উত্তরণ কিন্তু বাংলাদেশের হয়েছে সেটি হয়েছে একজন মানুষের জন্য তিনি হলেন শেখ হাসিনা। শেখ হাসিনা আছে বলেই পূর্ণিমা, ফাহিমাদের এখন আর ধর্ষিত হয়ে রাস্তায় চিৎকার করতে হয় না। বাংলাদেশে হিন্দু, মুসলিম, খৃষ্টান, বৌদ্ধ সব ধর্মের লোকের বসবাস রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব ধর্মের লোকের সমান অধিকার নিশ্চিত করেছেন। যে যার ধর্ম শান্তিপূর্নভাবে পালন করতে পারছে। বর্তমান সরকার অসম্প্রদায়ীক চেতনায় বিশ^াসী, সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতি নষ্ট হয় এমন কোন কাজ না করার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান। মিলেমিশে না থাকলে মানবতা বিপন্ন হয়ে যাবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, শেখ হাসিনার সরকার আছে বিধায় সনাতন ধর্মলম্বীদের অনেকেই আজ সচিব, পুলিশের বড়কর্তা থেকে প্রশাসনের উচ্চ থেকে নিন্ম পর্যায়ের বিভিন্ন পদে অধিষ্ট আছেন। এদেশ সবার, সবার সমান অধিকার এখানে। আপনার অধিকার আপনাকেই আদায় করে নিতে হবে। মন্ত্রী শুক্রবার দুপুরে বাংলাদেশ পুঁজা উদযাপন পরিষদ পিরোজপুর জেলার দ্বিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
এ সময় মন্ত্রী বলেন, এ দেশে কেউ সংখ্যালঘু নয়। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে হিন্দু-মুসলিম সবাই মিলে যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করেছি। তিনি বলেন সংখ্যালঘু তারাই যারা সে সময় পাকিস্থানের পক্ষে কাজ করেছে। আমরা সবাই বাংগালী এটাই হোক আমাদের পরিচয়। শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় থাকলে এ দেশ ছেড়ে কাউকেই অন্য দেশে চলে যেতে হবে না। এখনও মাঝে মাঝে যারা দূর্বৃত্তায়ন করেন তাদের কোন জাত নেই। তাদের জাত একটিই তারা দূর্বৃত্ত।
জেলা পুঁজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিমল চন্দ্র মন্ডলের সভাপতিত্বে সম্মেলনে অতিথি হিসেবে ছিলেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য শেখ এ্যনি রহমান, বাংলাদেশ পুঁজা উদযাপন পরিষদ কেন্দ্রীয় সভাপতি মিলন কান্তি দত্ত, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট সালেহ মোন্তাজির, পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার, পরিষদ কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নির্মল কুমার, যুগ্ম সম্পাদক তাপস কুন্ডু, শ্যামল কুমার সহ কেন্দ্রীয়, জেলা-উপজেলার নেতৃবৃন্দ্ব।