মঙ্গলবার ২১শে জানুয়ারি, ২০২০ ইং ৮ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

শাহরাস্তিতে বিধবা ভাতার নামে অর্থ আত্মসাত মেম্বারের বিরুদ্ধে অভিযোগ….

আপডেটঃ ৩:৪৮ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ১০, ২০১৯

শাহরাস্তিতে বিধবা ভাতার নামে অর্থ আত্মসাত মেম্বারের বিরুদ্ধে অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি, চাঁদপুর থেকেঃ চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে বিধবা ভাতার কার্ড করে দেয়ার নামে অর্থ আত্মসাত করেছে এক ইউপি সদস্য। এঘটনায় গত ২৫ নভেম্বর সোমবার দুপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সুপারিশ নিয়ে ইউএনও বরাবর অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই ভুক্তভোগী। 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চিতোষী পূর্ব ইউনিয়নের মনিপুর পশ্চিম পাড়া বেপারী বাড়ির মৃত আরব আলীর স্ত্রী ছকিনা খাতুন (৫৭) কে বিধবা ভাতার কার্ড করে দেয়ার নামে প্রায় এক বছর আগে ৩ হাজার টাকা নেয় সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড মেম্বার সাখাওয়াত হোসেন সোহাগ (৩২)।দীর্ঘ মাস ঘুরে ভাতার কার্ড না পেয়ে ছকিনা খাতুন টাকা ফেরত চাইলে অকথ্য ভাষায় গালমন্দসহ অপমানজনক কথা বলে সোহাগ মেম্বার। 

এবিষয়ে ভুক্তভোগী ছকিনা খাতুন বলেন, আমি খুবই অসহায়। স্বামীর মৃত্যুর পর অভাব অনটনেই কেটেছে দিন। বর্তমানে বার্ধক্যজনিত কারনে প্রায়ই অসুস্থ্য থাকি। একদিন সোহাগ মেম্বারকে বলি আমাকে একটা বিধবা ভাতার কার্ড করে দিতে।

তখন সোহাগ মেম্বার আমার কাছে ৩ হাজার টাকা দাবী করে। আমি হাওলাত করে তাকে ৩ হাজার টাকা দেই। ১০ মাস পার হওয়ার পরও সে আমাকে ওই কার্ডটি করে দেয়নি। টাকা ফেরত চাইলেই সে আমার সাথে বাজে কথা বলে। এভাবে অনেকের কাছ থেকে সে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তাদের মধ্যে এখনও অনেকে টাকা ফেরত পায়নি। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, আমি নিরুপায় হয়ে আইনের আশ্রয় গ্রহন করেছি। তাই আইনের মাধ্যমে অর্থ আত্মসাতকারী সোহাগ মেম্বারের বিরুদ্ধে সুষ্ঠু বিচার প্রার্থনা করেন তিনি।

অভিযুক্ত সোহাগ মেম্বার বলেন, ছকিনা খাতুন আমার নিজ ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা। আমি ওনার উপকার করতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তিনি অপেক্ষা করেননি। আমাকে হেয় করতে তিনি অহেতুক অভিযোগ করেছেন। 

এলাকাবাসী বলেন, ঘটনা এটা নতুন নয়। এধরনের বহু ঘটনা রয়েছে তার। যারা আজও সোহাগ মেম্বারের রোষানলে ভুক্তভোগী। তাই এধরনের ঘটনাকারীর বিরুদ্ধে আইনের সুশাসন প্রতিষ্ঠায় ব্যবস্থা গ্রহন করার আহবান জানান তারা।