শনিবার ১৮ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং ৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

তুরাগে টমেটো ভর্তি কাভার্ডভ্যান থেকে ৬০০ শ বোতল ফেন্সিডিল- সহ গ্রেফতার – দুই , কাভার্ডভ্যানটি জব্দ..

আপডেটঃ ১:২৩ অপরাহ্ণ | ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন –রাজধানীর তুরাগ থানার ডিয়াবাড়ি বটতলা এলাকায় টমেটো ভর্তি কাভার্ডভ্যান তল্লাশী চালিয়ে ৬০০শ বোতল ফেন্সিডিল সহ আন্তঃ জেলা মাদক ব্যবসায়ী চক্রের দুই সক্রিয় সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব-১)। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মোঃ বিপ্লব (২৪) ও মোঃ ইব্রাহিম (২৫)। এসময় র‌্যাব সদস্যরা তাদের কাছ থেকে ৩৫ ক্যারেট টমেটো, নগদ ২ হাজার ৪২০ টাকা ও ২ টি মোবাইল ফোন উদ্ধার করে। এছাড়া মাদক পরিবহনে ব্যবহৃত কাভার্ডভ্যানটি জব্দ করা হয়েছে।বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রাজধানীর তুরাগ থানার ডিয়াবাড়ি বটতলাস্থ তুর্কি কাবাব এন্ড রেস্টুরেন্ট এর পাশ থেকে ফেন্সিডিল সহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে র‌্যাব-১ এর সদস্যরা।বুধবার (১১ ডিসেম্বর) সকালে র‍্যাব-১ এর এএসপি মোহাম্মদ কামরুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ধৃত মাদক ব্যবসায়ী বিপ্লবের পিতার নাম মোঃ মোকছেদ হাওলাদার, মাতা- মোছাঃ বিলকিস বেগম, সাং- পূর্ব ঘোষের চর, পোঃ নাজিরপুর, থানা- মুলাদি, জেলা- বরিশাল, বর্তমানে- বাসা নং- ৩৯৫, পশ্চিম শেওড়াপাড়া, ৬০ ফিট রোড, থানা- মিরপুর, ডিএমপি, ঢাকা।পেশায় সে পেশায় একজন কাভার্ডভ্যান চালক। ইতিপূর্বে সে ট্রাক/কাভার্ডভ্যানে হেলপারের কাজ করত। সে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার জনৈক মাদক ব্যবসায়ীর মাধ্যমে মাদক ব্যবসায়ের সাথে জড়িত হয়। মৌসুমী ফসল টমেটো ভর্তি কাভার্ডভ্যানে বিশেষ কৌশলে ফেন্সিডিলের চালান রাজধানী ঢাকায় নিয়ে আসে। সে ইতিপূর্বে থেকে ৭ টি মাদকের চালান রাজধানী ঢাকাসহ আশপাশের জেলাসমূহে সরবরাহ করেছে বলে স্বীকার করে। চালানপ্রতি মাদক ব্যবসায়ীরা তাকে ৩৫ হাজার টাকা করে দিত বলে জানায়।

অপর মাদক ব্যবসায়ী ইব্রাহিম র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, তার পিতার নাম মোঃ জিলুর মিয়া, মাতা- মোছাঃ জামেলা বেগম, সাং- দেলী, পোঃ দেলী বাজার, থানা- কসবা, জেলা- ব্রাক্ষণবাড়িয়া, বর্তমানে- ডেমরা ষ্টাফ কোয়ার্টার, রাজাখালী, (মসজিদের পাশে), থানা- ডিএমপি, ঢাকা। সে জব্দকৃত কার্ভাড্যানের হেলপার। সে ধৃত মাদক ব্যবসায়ী বিপ্লবের মাধ্যমে মাদক ব্যবসায়ে জড়িত হয়। মাদকদ্রব্য পরিবহনে সে বিপ্লবের সহযোগী হিসেবে কাজ করে। এছাড়াও সে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে মাদক কারবারীদের নিকট মাদকদ্রব্য পাইকারী মূল্যে বিক্রয় করে বলে ধৃত আসামী স্বীকার করে। সে চালানপ্রতি মাদক ব্যবসায়ীদের নিকট হতে ১০-১২ হাজার টাকা করে পায় বলে জানায়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত মাদক ব্যবসায়ীরা র‌্যাবকে জানান, তারা একটি সংঘবদ্ধ মাদক ব্যবসায়ী চক্রের সক্রিয় সদস্য। তারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা শিবগঞ্জ দিয়ে অবৈধভাবে চোরাচালানের মাধ্যমে ফেন্সিডিল নিয়ে আসে। পরবর্তীতে ফেন্সিডিলের চালানগুলো মোসুমী ফল ভর্তি গাড়ি কিংবা কাভার্ডভ্যানে করে রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশে মাদক ব্যবসায়ীদের নিকট সরবরাহ করে থাকে।

র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, পরবর্তীতে ধৃত মাদক ব্যবসায়ীরা ফেন্সিডিলের চালানটি তারা মৌসুমী ফসল টমোটো ভর্তি কাভার্ডভ্যানের মধ্যে বিশেষ কৌশলে রাজধানী ঢাকায় নিয়ে আসছিল। এই চক্রের অন্যতম সদস্য চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার জনৈক মাদক ব্যবসায়ী। সে অবৈধভাবে ফেন্সিডিলের চালান দেশে নিয়ে এসে ধৃত আসামী বিপব ও ইব্রাহিম এর মাধ্যমে মাদকের চালান ঢাকা ও আশেপাশের এলাকায় নিয়ে এই সিন্ডিকেটের অন্যান্য সদস্যদের নিকট পাইকারী মূল্যে বিক্রয় করে বলে জানায়। উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য ও গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।