শনিবার ১৮ই জানুয়ারি, ২০২০ ইং ৫ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

শাহজালালে পৃথক দু’টি অভিযানে ১৭ পিস সোনার চুড়ি ও ১৬ পিস সোনার বার সহ দুই যাত্রী আটক…

আপডেটঃ ৮:৩৬ পূর্বাহ্ণ | ডিসেম্বর ১৪, ২০১৯

এস,এম,মনির হোসেন জীবন-ঢাকা হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৃথক দুইটি অভিযান চালিয়ে প্রায় চার কেজি সোনা ও সোনার চুড়িসহ দুই যাত্রীকে আটক করেছে ঢাকা কাস্টমস হাউজের প্রিভেন্টিভ টিম। আটককৃত ওই দুই যাত্রীর নাম সৈয়দ আহমেদ মল্লিক (৪২) ও মো: ইউসুফ (৫০)। জব্দকৃত সোনার বাজার মূল্য প্রায় ১ কোটি ৯৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা।
বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় ও শুক্রবার ভোর ৬টায় শাহজালাল বিমানবন্দরের গ্রিন চ্যানেল এলাকা থেকে সোদি আরব ও দুবাই থেকে আসা দুই যাত্রীর কাছ থেকে এসব সোনার বার সোনার চুড়ি জব্দ করা হয়।
ঢাকা কাস্টমস হাউজের ডেপুটি কমিশনার মো. সাজ্জাদ হোসেন শুক্রবার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টায় কুয়েত এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট সৌদি আরবের মদিনা থেকে ঢাকায় অবতরণ করেন হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে শাহজালাল বিমানবন্দরের এসে অবতরণ করে। আর ওই বিমানের যাত্রী ছিলেন সৈয়দ আহমেদ মল্লিক (৪২)। বৃহস্পতিবার রাত পৌনে ১টার দিকে যাত্রী বিমান থেকে নেমে তড়িগড়ি করে গ্রিন চ্যানেল এলাকা দিয়ে বের হবার সময় গোপনে খবর পেয়ে ঢাকা কাস্টমস হাউজের প্রিভেন্টিভ টিমের সদস্যরা তার গতিবিধি লক্ষ্য করে তার পিছু নেয়। গ্রিন চ্যানেলে নজরদারি ও তল্লাশির একপর্যায়ে যাত্রীকে জিঞ্জাসা করা হয় তার কাছে কোন সোনা আছে কি না- জানতে চাইলে যাত্রী সৈয়দ আহমেদ মল্লিক অস্বীকার করেন। পরে তার শরীর,পরনের জ্যাকেট ও পাঞ্জাবির পকেটে তল্লাশী চালিয়ে তার ভেতর থেকে ২ কেজি ১২০ গ্রাম সোনা পাওয়া যায়। যার মধ্যে ১৭ পিস সোনার চুড়ি রয়েছে। যার বাজার মূল্য প্রায় এক কোটি ৬ লাখ টাকা। উদ্ধারকৃত সোনা কাস্টমস এর হেফাজতে আছে। পরবর্তীতে সৌদি থেকে ঢাকায় আগত যাত্রী সৈয়দ আহমেদ মল্লিক সোনার আনার কথা ঢাকা কাস্টমস হাউজের প্রিভেন্টিভ টিমের কর্মকর্তাদের কাছে স্বীকার করেছেন। জিঞ্জাসাবাদ শেষে শুক্রবার সকালে ওই যাত্রীকে বিমানবন্দর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে কাস্টমস আইনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
এদিকে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টায় এয়ার এমিরেটসের একটি বিমান দুবাই থেকে ঢাকায় এসে অবতরণ করে। আর ওই বিমানের যাত্রী ছিলেন মো: ইউসুফ (৫২)। সে সকালে বিমানবন্দরে নেমে গ্রিন চ্যানেল এলাকা দিয়ে বের হবার সময় তাকে ঢাকা কাস্টমস হাউজের প্রিভেন্টিভ টিমের কর্মকর্তারা সন্দেহজনক ভাবে চ্যালেঞ্জ ও তার শরীরে তল্লাশি করা হয়। পরে তার প্যান্টের পকেটের ভেতর থেকে ১০ তোলা ওজনের মোট ১৬ পিস সোনার বার পাওয়া যায়। যার ওজন হল ১ কেজি ৮৫৬ গ্রাম। জব্দকৃত সোনার বাজার মূল্য প্রায় ৯২ লাখ ৮০ হাজার টাকা। জিঞ্জাসাবাদ শেষে তাকে আটক করে বিমানবন্দর থানায় পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়েছে।
এদিকে, বিমানবন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবিএম ফরমান আলী শুক্রবার পৃথক দু’টি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।
ওসি বলেন, এসব ঘটনায় স্বর্ণ চোরাচালান আইনে থানায় আলাদা দু’টি মামলা রুজু করা হয়েছে। জিঞ্জাসাবাদ শেষে ধৃত মামলার আসামী সৈয়দ আহমেদ মল্লিক ও মো: ইউসুফকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।