রবিবার ২৮শে মার্চ, ২০২০ ইং ১৫ই চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় খাদ্য গুদামের কর্মকর্তার যোগসাজসে কৃষকের নাম জালিয়াতি

আপডেটঃ 2:10 pm | February 28, 2020

হাতীবান্ধা প্রতিনিধি: লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় খাদ্য গুদামের কর্মকর্তার যোগসাজসে কৃষকের নাম জালিয়াতি করে ধান বিক্রয় করে টাকা উত্তোলন করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ ঘটনায় লালমনিরহাট জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও হাতীবান্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী পাঁচজন কৃষক।

ভুক্তভোগী ওই পাঁচ কৃষক হলেন, উপজেলার পশ্চিম ফরিকপাড়া গ্রামের মৃত মোকলেছার রহমানের স্ত্রী কৃষক জাহানারা খাতুন, বুড়া সারডুবি গ্রামের ছামাদের পুত্র কৃষক আবু সামা, একই গ্রামের কুতুব উদ্দিনের পুত্র কৃষক সাবু আলম, উত্তর জাওরানী গ্রামের প্রভাস চন্দ্র রায়ের পুত্র সুধাংশু রায় ও একই গ্রামের নরেন্দ্র চন্দ্র রায়ের পুত্র সুজন চন্দ্র।

জানা গেছে, বর্তমান সরকার প্রান্তিক কৃষকের নিকট থেকে ধান ক্রয়ের জন্য লটারির মাধ্যমে নাম বাচাইয়ের উদ্যেগ নেয়। যাদের নাম লটারিতে উঠবে তারাই শুধু মাত্র গুদামে ধান দিতে পারবে। সে অনুযায়ী হাতীবান্ধা উপজেলায় লটারির মাধ্যমে কৃষকের নাম বাচাই করা হয়। এতে উপজেলার দুই হাজার দুই শত আট জন কৃষকের নামের তালিকা করা হয়।

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ আছে যে, লটারিতে নাম ওঠা পাঁচ জন কৃষক খাদ্য গুদামে ধান নিয়ে যায়। খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওই কৃষকদের জানান ক্রয় তালিকা অনুযায়ী আপনাদের ধান ক্রয় করা হয়েছে ও বিলও পরিশোধ করা হয়েছে। তাই আমি আর আপনাদের ধান ক্রয় করতে পারবো না। ওই কৃষকের দাবি খাদ্য গুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার যোগসাজসে নাম জালিয়াতি করে গুদামে ধান দিয়ে টাকা উত্তোলন করা হয়েছে।