সোমবার ৫ই এপ্রিল, ২০২০ ইং ২৩শে চৈত্র, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

সীমাহীন দুর্ভগে জর্জরিত টঙ্গীর উল্যেখ যোগ্য সেবামুলক প্রতিষ্ঠান..

আপডেটঃ 8:26 pm | March 26, 2020

শেখ রাজীব হাসান, টঙ্গী (গাজীপুর) প্রতিনিধিঃ গাজীপুর মহানগরী তথা দেশের অন্যতম ব্যাস্ত এলাকা টঙ্গীবাসী সীমাহীন দুর্ভগে জর্জরিত। বিভিন্ন পেশার অগণিত শ্রমজীবী মানুষের বসবাস এই টঙ্গীতে। ঘনবসতি পূর্ণ এলাকা হওয়ায় এখানকার মানুষ যেমন নানা রোগ বালাইয়ে আক্রান্ত তেমন আপদ বিপদের ও কমটি নেই। এখানকার মানুষের নিরাপত্তার জন্য মানুষের একমাত্র আস্থার ঠিকানা যেমন টঙ্গী পূর্ব ও পশ্চিম থানা তেমনি স্বাস্থ্য সেবার অন্যতম আস্থার ঠিকানা শহীদ আহসান উল্লাহ্ মাষ্টার জেনারেল হাসপাতাল। বেশ কিছুদিন যাবত লক্ষ্য করা যাচ্ছে টঙ্গীর ড্রেনেজ ব্যাবস্থার অবনতি ঘটায় সেবাহীন হচ্ছে টঙ্গীর সাধারণ মানুষ। সরোজমিনে শহীদ আহসান উল্লাহ্ মাষ্টার হাসপাতালে গেলে দেখা যায় রোগীরা মুল ফটকের বাইরে দাড়িয়ে আছে। ড্রেনের পানিতে হাসপাতালের ভিতর ও প্রবেশ পথসহ টঙ্গী পূর্ব থানায় ঢোকার মূল সড়কটি ডুবে গেছে। সরকারের নির্দেশনা মেনে পরিষ্কার পরিছন্ন থাকা মানুষ গুলো সাধারণ সমস্যার জন্য চিকিৎসা নিতে এসে ময়লা নর্দমার পচা পানির কারণে আক্রান্ত হচ্ছে ডায়রিয়া, কলেরা, ডেঙ্গুসহ নানা রোগে। করোনা ভাইরাসসহ নানা ব্যাধির সংক্রমণ ঘটতে পারে এমন অব্যাবস্থাপণার কারণে। ময়লার দুরগন্ধে ডাক্তাররা নিজেরাই রহেছেন আতঙ্কে। এছাড়া ময়লা নর্দমার পানির কারণে আইনি সহযোগীতার জন্য টঙ্গী পূর্ব থানায় যেতে পারছে না ভুক্তভোগী মানুষগুলো। প্রশাসন দিতে পারছেনা পরিপূর্ণ আইনি সেবা।
এ বিষয়ে কথা বললে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ নিজাম উদ্দিন জানান, সারাদেশে যেমন করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে কঠোর ভাবে সচেতনাতা মূলক কার্যক্রম হাতে নেওয়া হয়েছে তেমনি শহীদ আহসান উল্লাহ্ মাষ্টার হাসপাতালেও হাতে নেওয়া হয়েছে কঠোর কার্যক্রম। তবে হাসপাতালের আশপাশের ড্রেনেজ ব্যাবস্থা খারাপ হওয়ায় আমাদের ডাক্তার ও রোগিরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। ভর্তি রোগীরা নর্দমার পানির দুর্গন্ধে বাসায় চলে যাচ্ছে। এমন অবস্থা বেশীদিন থাকলে সামনের দিনগুলোতে হাসপাতালে কোন ধরনের রোগি আসবেনা। আমরা এ ব্যাপারে স্থানীয় কাউন্সিলর ও সিটি কর্পোরেশন কে চিঠি দিয়েছি। দ্রæত ড্রেনের পানি নিষ্কাশনের ব্যাবস্থা না করা হলে এখান থেকে আরো অনেক বড় ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে বলে আমি মনে করি।
এ বিষয়ে টঙ্গী পূর্ব থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, জলাবদ্ধতার কারণে আমাদের আসা যাওয়া করতে যেমন সমস্যা হয়েছে তার চাইতেও অধিক সমস্যা হয়েছে সাধারণ মানুষের। এবিষয়ে সিটি কর্পোরেশনকে বহুবার অবহিত করা হয়েছে। জলাবদ্ধতা এখানকার একটি পুরাতন সমস্যা তবে পূর্বে বৃষ্টির কারণে এ জলাবদ্ধতা হলেও এবার ড্রেনেজ ব্যাবস্থা খারাপ হওয়ায় এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। আমরাদের অফিসাররা নিজ উদ্যেগে মাটি এনে থানার ঢোকার রাস্তাটুকু ভরাট করেছি। তবে সিটি কর্পোরেশন থেকে খুব দ্রæত ড্রেনেজ সমস্যার সমাধান করার প্রয়োজন বলে আমি মনে করি।