শনিবার ৩০শে মে, ২০২০ ইং ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

কথিত সাংবাদিক তারেকের গোমড় ফাঁস………..

আপডেটঃ ২:২৯ অপরাহ্ণ | মার্চ ২৭, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক: – সাংবাদিকতা ও মিডিয়ার বিরাম্বনা আর কত ?? দেশে এখন অনলাইন নিউজ পোর্টাল আর অনলাইন টিভি, রেডিও র সংখ্যা কত সে তথ্য সরকারের কাছে আছে, চলছে মনিটরিং ও যাচাই।
স্বল্পটাকা খরচ করে একটা পোর্টাল খুলে রাজনৈতিক/মাদক/ চাঁদাবাজি জুয়া কিংবা ইয়াবা ব্যবসা হালাল করার জন্য সাংবাদিকতার মুুুখোশ পড়ে অপকর্মে লিপ্ত এরা।
নামে বেনামে আর জনপ্রিয় অনেক অনলাইন নিউজ পোর্টাল, আর টিভি চ্যানেল এর নাম এবং লগো হুবুহু নকল করে নতুন অনলাইন নিউজ পোর্টাল বা ওয়েবসাইট চালু করেছে। অনেকে এখন অনলাইন নিউজ পোর্টাল/টিভি চালু করে সাংবাদিকতার নামে অপসাংবাদিকতা ইতোমধ্যে শুরু করেছেন।
অনুসন্ধানে এমনই একজন কথিত সম্পাদকের সন্ধান পাওয়া গেছে।
সুত্রে জানায়, অনলাইন টেলিভিশন ও অনলাইন পত্রিকার চেয়ারম্যান দাবি করে বিভিন্ন স্থানে একটি নোয়া গাড়ি নিয়ে মোটা অঙ্কের টাকা চাঁদা দাবি করছেন আর চাঁদা না দিলেই মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করার হুমকি দিচ্ছেন দেশের কণ্ঠ টুয়েন্টিফোর ডটকম’ ও ‘দেশ নিউজ ডট টিভি’র কথিত নামধারী চেয়ারম্যান মীর আক্তারুজ্জামান তারেক ।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ফেসবুক ও অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সংবাদ কর্মী চাকরির বিজ্ঞাপন দিয়ে তরুণ-তরুণীসহ অনেকের সাথে প্রতারনা ও অনৈতিক প্রস্তাব দিয়ে থাকে তরুণীদের,নামধারী চেয়ারম্যান তারেক।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক প্রতারণার শিকার এক তরুণীর জানিয়েছেন, মিরপুর ১০নং এলাকায় তরুণীর এক বন্ধুর ম্যাধমে তারেক এর সাথে পরিচয় হয় তরুণীর চাকরির কথা বললে তারেক তরুণীর মুঠো ফোনে যোগাযোগ করার জন্য বলে বেশ কয়েক দিন পরে তারেক এর সাথে চাকরির জন্য মুঠো ফোনে যোগাযোগ করলে তরুণীকে অনৈতিক প্রস্তাব দেন নামধারী চেয়ারম্যান তারেক ।
জানা যায়, আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার মিয়া মার্কেটে হোমিওপ্যাথিক ফার্মেসি পরিচালনা করতো মীর আক্তারুজ্জামান তারেক। জামগড়া
এলাকায় বিয়ের প্রলোভন দিয়ে একাধিক তরুণীর সাথে অনৈতিক কার্যক্রম করতেন এসকল অপকর্ম ও অনৈতিক কার্যকলাপের বিষয়ে এলাকায় জানাজানি হলে হঠাৎ করেই জামগড়ার হোমিওপ্যাথিক ফার্মেসী ছেড়ে দেন তারেক। গা-ঢাকা দিয়ে চলে আসেন মিরপুরে।
কয়েক হাজার টাকা দিয়ে অনলাইন টেলিভিশন ও অনলাইন পত্রিকার ওয়েবসাইট করে ও ইউনিয়ন পরিষদ এর ট্রেড লাইসেন্স নিয়ে নিজেকে চেয়ারম্যান ও সাংবাদিক দাবি করে রাজধানী সহ সারাদেশে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন আর বিভিন্ন মানুষকে হুমকি দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে মোটা অঙ্কের টাকা আর চাঁদার টাকা না দিলেই মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করার হুমকি দিচ্ছেন কথিত চেয়ারম্যান মীর আক্তারুজ্জামান তারেক।
আরো জানা যায়, সাম্প্রতিক নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ী উপজেলার বিউটি নামের এক তরুণীকে কবির গং এর সদস্য ৫জন ও মীর তারেক তরুণীকে ঘুরতে নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দিয়ে আন্তর্জাতিক নারী পাচার চক্র এর ম্যাধমে ভারত বিক্রি করেন বিউটি নামের ওই তরুণীকে র্দীঘ তিন মাস তরুণীর উপর নির্যাতন সহ্য না করতে পেরে তরুণী বাংলাদেশে পালিয়ে এসে কবির গং এর সিন্ডিকেট এর বিরুদ্ধে রামপুরা থানায় সাধারণ ডায়েরি ও আদালতে হাজির হয়ে নারী পাচার আইনে মামলা করেন ।

এসকল বিষয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন,
সাংবাদিকতা করেননি কখনও কিংবা সংবাদ পত্রের কার্যালয়ের বারান্দায় পা পড়েনি কোনদিন অথচ অনলাইন নিউজ পোর্টাল,টিভি সম্পাদক/মালিক হয়েছেন নিউজ পোর্টাল বা প্রিন্ট পত্রিকায় লেখালেখি না করলেও চাঁদাবাজি ভালোই অভিজ্ঞতা রয়েছে। প্রতারণা আর চাঁদাবাজি করে অর্থ হাতিয়ে নেয়া ছাড়াও ঢাকাসহ দেশের বিভিন্নস্থানে অর্থের বিনিময়ে পরিচয়পত্র প্রদান করছে সাংবাদিকতার নামের এই প্রতারক চক্রটি। এদের বিরুদ্ধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর দ্রত পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।
অপ সাংবাদিকতা বিষয়ে,ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মোঃ মাহবুব আলম জানান, বিভিন্ন সময় আমরা সাংবাদিকতার নামে অপ সাংবাদিকতার করে চাঁদাবাজি করছেন এমন অভিযোগ আসলেই আমরা ব্যবস্থা নিয়ে থাকি ।