মঙ্গলবার ১লা ডিসেম্বর, ২০২০ ইং ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

মানুষকে রক্ষার চেষ্টা করছি প্রাণপণে -প্রধানমন্ত্রী…….

আপডেটঃ ২:১৯ অপরাহ্ণ | জুন ০৭, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক -: বিত্তশালীরা সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘দেশের জনগণের মাঝে এই আন্তরিকতাটা আছে দেখেই দেশের মানুষ অন্ততপক্ষে খেতে পারছে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তার ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান গ্রহণকালে বক্তৃতা করেন -ফোকাস বাংলা
করোনাভাইরাসের মহামারি থেকে দেশের মানুষকে রক্ষায় সরকার ‘প্রাণপণ’ চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে অনুদান গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে প্রাণপণ চেষ্টা করে যাচ্ছি এই করোনাভাইরাস থেকে আমাদের দেশের মানুষকে রক্ষা করতে। তবে যেহেতু অর্থনীতি একেবারে স্থবির অবস্থায় রয়েছে, আমরা কিছু কিছু ক্ষেত্রে এখন উন্মুক্ত করছি, কারণ মানুষকে আমাদের তো বাঁচাতে হবে।’ অর্থনীতি সচল করতে না পারলে সরকার যে অনির্দিষ্টকাল মানুষকে সহযোগিতা দিয়ে যেতে পারবে না, সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘তারপরও আমি বলব, আমরা এই কয় মাস এদেশের প্রায় প্রতি স্তরের মানুষকে ব্যাপকভাবে সহযোগিতা করে গিয়েছি।’ সরকারের পাশাপাশি দল হিসেবে আওয়ামী লীগ এবং সমাজের বিত্তশালীরাও সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন জানিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের মাঝে এই আন্তরিকতাটা আছে দেখেই কিন্তু এখনো আমাদের দেশের মানুষ অন্ততপক্ষে খেতে পারছে বা তারা চলতে পারছে। মানুষের জন্য মানুষের এই সহানূভূতি অব্যাহত থাকবে, সেই প্রত্যাশাই করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সর্বস্তরের মানুষকে সহযোগিতা দিতে সরকারের উদ্যোগগুলোর কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘বিনা পয়সায় খাদ্যের ব্যবস্থা যেমন করেছি, আবার একটু যারা সঙ্গতি আছে, কিনতে চান, তাদের ১০ টাকা কিলো দরে আমরা চাল দিচ্ছি।’ ‘আমরা সাধারণ নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত বা খেটে খাওয়া মানুষকে সহযোগিতা দিচ্ছি। বিভিন্ন ধরনের পেশাজীবী, যেমন শ্রমিক থেকে শুরু করে… দিনমজুর থেকে শুরু করে ছোটখাটো কাজ যারা করে তাদের আমরা সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছি।’ করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের উদ্যোগ নেওয়ার কথাও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী। দেশের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড সচল করতে সরকারের দেওয়া বিশেষ প্রণোদনার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘আমাদের শিল্প থেকে শুরু করে সর্বস্তরের সবাই যেন কাজ চালাতে পারে, সেজন্য বিশেষ প্রণোদনাও আমরা দিচ্ছি। আমাদের জিডিপির ৩.৭ শতাংশ আমরা প্রণোদনা দিয়ে যাচ্ছি।’ ‘এখানে বলতে হবে যে, গত ৩-৪ মাস ধরে আমাদের অর্থনীতি একেবারে স্থবির। তারপরও আমরা অন্ততপক্ষে মানুষের কথা চিন্তা করে, মানুষের কল্যাণের কথা চিন্তা করেই কাজ করে যাচ্ছি।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘এটা মনে রাখতে হবে যে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন। সব সময় জনগণের কল্যাণেই আমরা কাজ করি।’ ‘কাজেই আমরা জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এইটুকু বলব, তিনি আমাদের যে শিক্ষা দিয়ে গেছেন-মানুষের জন্য মানুষ- আমরা সেভাবেই কাজ করে যাই।’ করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে জনগণের সুরক্ষার কথা বিবেচনা করেই যে সরকার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠান স্থগিত করেছিল, সে কথাও প্রধানমন্ত্রী বলেন।