রবিবার ১৭ই জানুয়ারি, ২০২১ ইং ৩রা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Ad

সর্বশেষঃ

উত্তরায় পুলিশ আসায় প্রাণে রক্ষা পেলো গলাকাটা সন্দেহের এক নারী

আপডেটঃ ৪:১৩ অপরাহ্ণ | জুলাই ১৯, ২০২০

বিষেশ প্রতিনিধি {ক্রাইম }-:মোঃসাইফুল ইসলাম (একা) -: অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেন হোটেল ব্যবসায়ী সাপলা বেগম (৩৬)সারাদিন হোটেল ব্যবসা শেষে উত্তরা ১০ নং সেক্টর হানিফ আলীর মোড়  এলাকায় গেলে স্থানীয় কয়েকজন নারী ও পুরুষ সাপলাকে গলাকাটা সন্দেহ করে। পরবর্তীতে তাদের আত্ম চিৎকারে আশপাশের লোকজন ঘটনাস্থলে জড়ো হয়ে সাপলাবেগমকে বেধরক গণধোলাই দেয়ার চেষ্টা করে । এক পর্যায়ে ঘটনার বিষয়টি উত্তরা পশ্চিম  থানার  এস আই সাদেক জানতে পারে পরে  ঘটনাস্থল আসে ওসি তদন্ত আবুল কালাম (আজাদ)এর নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পায় সাপলা বেগম।হোটেল ব্যবসায়ী সাপলা বেগম  রাজধানীর তুরাগের নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা বলে জানাগেছে। সাপলা বেগম  জানায় আমি আমার ছেলের খোঁজে কামারপাড়া হানিফ আলীর মোড় আসি পরে এলাকার কিছু লোকজন আমাকে ডাক দিয়ে বলে আপনি কে বা আপনার পরিচয় কি আমি পরিচয় দেয়ার আগেই একটি মহিলা গলাকাটা বলে চিৎকার করে পরে এলাকার স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসে আমায় মারধোর করার জন্য।পরে স্থানীয় কয়েকজন  ছেলে আমায়  একটি বাড়ীতে রাখে। ঘটনার বিষয়ে উত্তরা পশ্চিম  থানার (ওসি) তদন্ত আবুল কালাম (আজাদ) বলেন, কামারপাড়া এলাকায় সাপলা বেগম  নামে একজন হোটেল ব্যবসায়ী তার ছেলেকে খোজার জন্য গেলে স্থানীয় কয়েকজন নারী তাকে গলাকাটা সন্দেহ করে। সেই নারীদের আহ্বানে কয়েক হাজার উৎসুক জনতা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় এবং সাপলা বেগমকে  গণধোলাই দেওয়ার চেষ্টা করে। আমরা সংবাদ পাওয়ার সাথে সাথে আমি সহ একটি টিম ঘটনস্থল থেকে সাপলা বেগমকে  উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসি।তুরাগের কামারপাড়া এলাকায়  এখন গলাকাটা আতংক বিরাজ করছে। এ নিয়ে দিনভর নগর জুড়ে ব্যাপক আলোচনা ও সমালোচনার সৃষ্টি করেছে। সচেতন অভিভাবক মহল গলাকাটা আতংকে নিজেদের ছেলে মেয়েদের স্কুলে ও বাড়ীর বাহিরে বের হওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। অভিভাবকরা অভিযোগ করে বলছেন নগরির বিভিন্ন এলাকাগুলোতে অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আনাগুনা বেড়ে গেছে। অনেকেই মনে করছেন হয়তো তারা মাদক সেবী নয়তো ছেলে ধরা।সাধারণ অভিভাবকরা এলাকাগুলোতে পুলিশের জরুরী হস্তেক্ষেপ কামনরা করেছেন। যে সকল এলাকাগুলোতে অপরিচিত মানুষের আনাগুনা বাড়ছে সেই সকল এলাকায় পর্যান্ত পরিমাণ পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করার আহ্বান জানিয়েছেন।